১৪ জানুয়ারি ২০১৮


আরআরএফের সমাপনী কুচকাওয়াজ সম্পন্ন

শেয়ার করুন

ডেস্ক রিপোর্ট : সিলেটে ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টবল (টিআরসি) ৪র্থ ব্যাচের প্রশিক্ষণার্থীদের মনোজ্ঞ সমাপনী কুচকাওয়াজ সম্পন্ন হয়েছে। টিআরসি ৪র্থ ব্যাচে হবিগঞ্জ জেলার ৯৫ জন, মৌলভীবাজার জেলার ৮৬ জন, মুন্সীগঞ্জ জেলার ৬৩ জনসহ সর্বমোট ২৪৪ জন কনস্টেবল তাদের ০৬ মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ সমাপ্ত করেন।

রোববার সকাল ১০টায় সিলেটের লালাবাজারস্থ আরআরএফ নোয়াখালী পুলিশ ট্রেনিং স্কুলের সংযুক্ত ট্রেনিং সেন্টার হিসেবে ৪র্থ বারের মত ট্রেইনি রিক্রুট কনস্টবলদের ৬ মাস মেয়াদী ট্রেনিং সম্পন্ন করে।

আরআরএফ সিলেটের কমান্ড্যান্ট মো. মাহমুদুর রহমান পিপিএম এর সভাপতিত্বে সমাপনী কুচকাওয়াজে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি জনাব মো. কামরুল আহসান বিপিএম।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলার পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান, সুনামগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মো. বরকত উল্লাহ খান, মৌলভীবাজার জেলার পুলিশ সুপার মো. শাহজালাল, হবিগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা পিপিএম অতিরিক্ত ডিআইজি মো. নজরুল ইসলাম, সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ডিসি হেডকোয়ার্টার্স রেজাউল করিম, ডিসি (উত্তর) ফয়সল মাহমুদ, ডিসি (ট্রাফিক) তোফায়েল আহমদ, সিলেট জেলা কমিউনিটি পুলিশ সমন্বয় কমিটির আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ, মদন মোহন কলেজের অধ্যক্ষ ড. আবুল ফতেহ ফাত্তাহ।

এছাড়াও এসএমপি, আরআরএফ ও সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারবৃন্দ, সহকারী পুলিশ সুপারবৃন্দ, পুলিশের বিভিন্ন স্তরের পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

প্রশিক্ষনে মাসকেট্রি (ফায়ারিং) বিষয়ে টিআরসি-১৫ মেহেদী হাসান, প্যারেড বিষয়ে টিআরসি-১২১ মিনহাজুল ওয়াজেদ পিনন, পিটি বিষয়ে টিআরসি-১২৩ সজল দাস, আইন বিষয়ে টিআরসি-২২ আমজাদ হোসেন, ও সর্ব বিষয়ে টিআরসি-২২৮ মো. জুয়েল মিয়া শ্রেষ্ঠ টিআরসি নির্বাচিত হয়ে সাফল্যের স্বীকৃতি স্বরূপ প্রধান অতিথির নিকট হতে মেডেল ও সনদপত্র গ্রহণ করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মো. কামরুল আহসান মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের প্রথম প্রতিরোধসহ যুদ্ধকালীন পুলিশের বীর শহীদদের স্মরণ করে তিনি পুলিশের উন্নয়নে বর্তমান সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। বাংলাদেশ পুলিশের সকল সদস্যদের শতভাগ রেশন প্রদান, পুলিশের জনবল বৃদ্ধি, পরিদর্শক ও উপ-পুলিশ পরিদর্শকদের যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীতে উন্নীত করা, স্বাধীনতা পদকে ভূষিত করা, ঝুঁকি-ভাতা প্রদানের বিষয় উল্লেখ করে তিনি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সিলেটের শিববাড়ির আতিয়া মহলে জঙ্গি হামলায় শাহাদাৎ বরণকারী র‌্যাবের গোয়েন্দা প্রধান, পুলিশ কর্মকর্তা ও নিরীহ সাধারণ জনগণকে স্মরণ করেন। এছাড়াও মৌলভীবাজারের বড়হাট ও নাসিরপুর এলাকায় জঙ্গিবাদ দমনের ক্ষেত্রে পুলিশের সাহসিকতার প্রশংসার পাশাপাশি পুলিশের নবীন সদস্যদের সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূলসহ দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা ও সকল নাগরিকের নির্বিঘ্নে জীবনযাপনের লক্ষ্যে সেবার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে যেতে বলেন।

(আজকের সিলেট/১৪ জানুয়ারি/ডি/এমকে/ঘ.)

শেয়ার করুন