আজ শুক্রবার, ২১শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

সাহেদকে নিয়ে মৌলভীবাজারে তোলপাড়

  • আপডেট টাইম : July 14, 2020 9:50 AM

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : ঢাকার রিজেন্ট হাসপাতালে করোনা নমুনা পরীক্ষায় জালিয়াতি মামলার প্রধান আসামী মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিম মৌলভীবাজারে লুকিয়ে আছেন এমন খবরে সোমবার দিনভর তোলপাড় চলে জেলা শহরটি।

সাহেদের সন্ধানে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। মৌলভীবাজার দিয়ে তিনি ভারত পালিয়ে যেতে পারেন এমন খবরে সীমান্তবর্তী এলাকাগুলোেও বিশেষ নজরদারি চালানো হচ্ছে। তবে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সাহেদের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

সোমবার সকাল থেকে সারা মৌলভীবাজার জেলা জুড়ে খবর ছড়িয়ে পরে যে সাহেদ মৌলভীবাজারের সীমান্তবর্তী দুই উপজেলা শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জের কোথাও লুকিয়ে আছেন৷ এমন খবর পেয়ে মাঠে নামে পুলিশ। বিভিন্ন সড়কে চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহনে তল্লাশী চালানো হয়৷

এর মধ্যেই সন্ধ্যায় খবর আসে ঢাকা হেডকোয়ার্টার থেকে র‍্যাবের একটি দল সাহেদকে ধরতে শ্রীমঙ্গল এলাকায় অভিযান চালাচ্ছে। তবে র‍্যাব-৯ এর শ্রীমঙ্গল ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর আহমেদ নোমান সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোরকে বলেন, এই রকম কোন তথ্য তাদের কাছে নেই এবং তারা নিজেও অভিযানে নেই। তবে র‍্যাবের হেড কোয়ার্টারের মাধ্যমে বা অন্যকোন ইউনিটের মাধ্যমে অভিযান চালানো হতে পারে বলে জানান তিনি।

এ দিকে কমলগঞ্জের শমশেরনগরে সোমবার বিকাল ৫টা থেকে আকস্মিক পুলিশি তৎপরতা শুরু হয়। শমশেরনগর চৌমুহনা থেকে ভারতের ত্রিপুরাগামী সড়কের মুখে শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা দাঁড়িয়ে যানবাহন তল্লাশি শুরু করেন।

শমসেরের নগর পুলিশ ফাঁড়ির সুত্রে জানা যায়, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারিকৃত আসামী সাহেদ মৌলভীবাজারের উপর দিয়ে সীমান্তপথে ভারতের ত্রিপুরা যেতে পারেন। তাই সতর্কতা হিসেবে পুলিশ সদস্যরা যানবাহন তল্লাশি চালাচ্ছেন।

সোমবার বিকাল থেকে শমশেরনগর ও শ্রীমঙ্গল উপজেলায় পুলিশি তৎপরতা বৃদ্ধি করা হয়।

শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ অরুপ কুমার চৌধুরী বলেন, সে এই দিকে আছে এমন কোন নির্দিষ্ট তথ্য নেই। তবে যেহেতু সীমান্ত এলাকা তাই সে পালানোর চেষ্টা করতে পারে এটা আমাদের সন্দেহ আর সেই কারণেই আমরা অতিরিক্ত সতর্কতা গ্রহন করেছি।

এদিকে সোমবার সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত পুলিশ সদস্যদের শমশেরনগর চৌমুহনায় যানবাহনে তল্লাশি চালাতে দেখা গেছে।

পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক সুত্রে জানা গেছে, সিলেট বিভাগের সাথে ভারতের দীর্ঘ সীমান্ত রয়েছে। ফলে সব যায়গায় সতর্ক অবস্থানে আছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তবে কোন জায়গায় সাহেদ আছে এরকম নির্দিষ্ট করে কিছু বলা যাচ্ছে না।

মৌলভীবাজারের গোয়েন্দা পুলিশের ওসি বিনয় ভূষন রায় বলেন, সাহেদ সীমান্ত এলাকায় অবস্থান করছে, এমন খবর ছড়িয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে নিশ্চিত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

তবে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি আব্দুস ছালেক বলেছেন, শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ সাহেদকে ধরতে অভিযানে আছে।

মৌলভীবাজার জেলার পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ জানান, সাহেদ এখানে আছে এই রকম সুনির্দিষ্ট কোন তথ্য নেই। তবে আমরা সতর্ক আছি। এই সতর্কতার নির্দেশ সব যায়গায় দেওয়া আছে।

র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক আশিক বিল্লাহ বলেন, ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে একাধিক দল সাহেদকে গ্রেপ্তারের জন্য কাজ করছে।

Print Friendly, PDF & Email
  •  
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ