আজ সোমবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং

স্বস্তি এসেছে সবজির বাজারে

  • আপডেট টাইম : November 28, 2020 10:08 AM

নিজস্ব প্রতিবেদক : শাক-সবজির দামে নাভিশ্বাস ক্রেতাদের। লাল শাকের আঁটিও ২০ টাকা।৫০-৭০ টাকার নিচে নেই কোনো সবজির কেজি। শীতের শুরুতেও এমন অস্থির ছিল বাজার। তবে ক্রেতাদের মনে স্বস্তি দিতে আসছে শীতের শাক-সবজি। বাজারে কমছে দামও। মাঠে চাষিরা বিভিন্ন ধরনের সবজি নিয়ে এখন শহর অভিমুখে। পাইকাররাও সবজি কিনতে ছুটছেন গ্রামের দিকে। আর নতুন সবজি বাজারে আসায় কমতে শুরু করেছে সবজির দাম।

তবে অভিযোগ রয়েছে, গ্রামাঞ্চলে কৃষকদের কাছ থেকে সস্তায় সবজি কিনে আনলেও দাম ছাড়েন না বিক্রেতারা। প্রত্যন্ত অঞ্চলে কৃষকের কাছ থেকে কমমূল্যে সবজি কিনে আনলেও শহরের বাজারে বিক্রিতে সিন্ডিকেট করে এ দাম বেশি রাখা হচ্ছে।

সরেজমিন দেখা গেছে, শীতে কৃষকরা ব্যস্ত সময় পার করছেন সবজি খেতে। খেত থেকে সবজি আনা হয় শহরের বাজারে। যে কারণে কৃষকের শ্রম-ঘামে ফলানো সবজিতে এখন ভরপুর হতে চলেছে সিলেটের বাজার। ফলে গ্রামে-গঞ্জে ফলানো শীতের তরতাজা সবজির দেখা মিলছে বাজারে।

সকালে কুয়াশার ভোরে দেখা মেলে কৃষকের পরম যত্নে ফলানো সবজির। সেসব সবজি নিয়ে শহরে আসছেন কৃষক। আলু, টমেটো, বাঁধাকপি, ফুলকপি, ধনিয়া পাতা, লাল শাক, পুঁই শাক, লাউ শাক, লাউ, মিষ্টি কুমড়া, চাল কুমড়া, কদুর ফুল, বেগুন, বরবটি, শসা, শালগম, ডাটা শাকসহ বিভিন্ন শাকসবজি আসতে শুরু করেছে সিলেটের বাজারে।

শহরতলীর টুকেরবাজার ইউনিয়নের মাসুকবাজারের হোসেন আহমদ বলেন, প্রতি বছরই সবজি খেত করি। তাতেই সংসার চলে। বছর ঘুরে এই সিজনটির জন্যই থাকে অপেক্ষা। নদীর পানি নেমে গেলে চরে সবজি ফলাই।

একই গ্রামের আজিজ মিয়া বলেন, বিদেশ থেকে ফিরে আগে লোক লজ্জার ভয়ে চাষা করতাম না। এখন নিজেই কৃষিখেতে সময় দিয়ে সংসার চালাচ্ছি। এবার প্রায় ৪ একর জায়গায় সবজির চাষ করেছি। তবে, পাইকারদের কাছ থেকে অনেক সময় সবজির কাঙ্ক্ষিত দাম মেলে না। আর কষ্ট করে শহরে নিয়ে গেলে বেশিমূল্যে বিক্রি করা যায়।
সিলেটের বিশ্বনাথের কামাল বাজারের আজগর আলী বলেন, প্রতি বছর সবজি চাষ করাই আমার নেশা। মৌসুমে আউশ লাউ, বেগুন, টমেটো, শিম বিক্রি করে প্রতিদিন অন্তত আড়াই থেকে তিন হাজার টাকা আয় করি।

সকালে নগরের পাইকারি হাট সোবহানিঘাট ট্রেড সেন্টার ও নোয়াব আলী মার্কেটে গিয়ে দেখা গেছে, সিলেটের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে বিভিন্ন ধরনের সবজি বাজারে আসছে। পাইকারি বাজার থেকে এসব সবজি নগরের বিভিন্ন বাজারে বিক্রি হচ্ছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, নগরের বাজারগুলোতে নতুন আলু বাজার ভেদে ১০০ টাকা, টমেটো ৮০ টাকা, বাঁধাকপি ৭০ টাকা, ফুলকপি ১২০ টাকা, ধনিয়া পাতা কেজি ২০০ টাকা, লাল শাক ২০ টাকা আঁটি, পুই শাক কেজি ৪০, লাউ শাক আঁটি ৩০ টাকা, শসা ৫০ টাকা কেজি, বেগুন ৫০ টাকা, শালগম ৬০ টাকা, লাউ পিস ৫০ টাকা, লেবু প্রতি হালি ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

বিক্রতাদের দাবি, শীতকালীন সবজিতে ভরে যাচ্ছে বাজার। ফলে সব সবজির দাম কমছে। আরও কমবে।

Print Friendly, PDF & Email
  •  
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ