আজ মঙ্গলবার, ১৮ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং

স্থবির মহানগর বিএনপি, আসছে নতুন কমিটি

  • আপডেট টাইম : December 4, 2020 10:18 AM

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটে ভালো নেই বিএনপি। দলটির সাংগঠনিক কার্যক্রমে বিরাজ করছে একধরণের স্থবিরতা। বিশেষ করে অচলাবস্থা মহানগরে। মেয়াদউত্তীর্ণ কমিটি দিয়ে চলছে মহানগর বিএনপির কার্যক্রম। ওয়ার্ড পর্যায়ে নেই কোনও সাংগঠনিক তৎপরতা। দলের ব্যনারে আয়োজিত কর্মসূচিতে উপস্থিত হন না মহানগর কমিটির বেশিরভাগ নেতা। এমন অবস্থায় শীঘ্রই সিলেট মহানগর বিএনপির কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার কথা জানিয়েছেন দলটির নেতারা। চলতি মাসের শুরুতেই মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি হতে পারে বলে জানিয়েছেন তারা।

সিলেট মহানগর বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শামীম সিদ্দিকি বলেন, শীঘ্রই মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি হবে। শীঘ্রই কমিটি হতে পারে। যোগ্যরা কমিটিতে স্থান পাবে আশা করছি। ইতোমধ্যে কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

জানা যায়, সিলেট মহানগর বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৬ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি। সম্মেলনে মহানগর বিএনপির সভাপতি নির্বাচিত হন নাসিম হোসাইন ও সাধারণ সম্পাদক হন বদরুজ্জামান সেলিম। সম্মেলনের প্রায় ১৪ মাস পর ২০১৭ সালের ২৬ এপ্রিল সিলেট মহানগর বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয়। গঠনতন্ত্র অনুসারে, মহানগর বিএনপির কমিটিতে ১৫১ সদস্যের হওয়ার থাকার কথা ছিল। তবে মহানগরের পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হয় ২৩১ সদস্যের। এর বাইরে সহ-সভাপতি পদমর্যাদার ৫০ জনকে উপদেষ্টা করা হয়।

মহানগর বিএনপির নেতারা জানান, কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় দলের কার্যক্রমে স্থবিরতা দেখা দিয়ে। ২৩১ সদস্যের কমিটির ১শ জনও দলীয়ও কর্মসূচিতে সক্রিয় নন। নগরের ২৭ টি ওয়ার্ডে বিএনপির কমিটি থাকলেও প্রতিটি ওয়ার্ডে হাতেগুনা কয়েকজন সক্রিয়। মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম দীর্ঘদিন ধরে দেশের বাইরে। শীঘ্রই তিনি দেশে ফিরবেন না। তার অবর্তমানে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়া আজমল বক্ত সাদেকও দীর্ঘদিন দেশের বাইরে ছিলেন। সম্প্রতি দেশে ফেরেছেন তিনি।

সিলেট মহানগর বিএনপির এক নেতা বলেন, মহানগর বিএনপির ঢাউস কমিটির ৫০ উপদেষ্ঠা, ২১ সহ-সভাপতি, ১১ জন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের বেশিরভাগই দলীয় কর্মসূচিতে উপস্থিত হন না। অনেককে তার যোগ্যতার থেকে অনেক বড় পদ-পদবী দেয়া হয়েছিল। সহজেই গুরুত্বপূর্ণ পদ-পদবী পেয়ে তারা এখন দলে সক্রিয় নন। নিজেদের ব্যবসা বানিজ্য নিয়েই ব্যস্ত তারা।

নগর বিএনপির আরেক নেতা বলেন, সংগঠনকে গতিশীল করতে নিয়মিত কমিটি করা উচিত। কমিটিতে যোগ্য, ত্যাগী ও সাবেক ছাত্রদল নেতাদের মূল্যায়ন করলে দল শক্তিশালী হবে।

বিএনপির নেতারা জানিয়েছেন, নতুন আহ্বায়ক কমিটি তিন মাসের মধ্যে নগরের ২৭ টি ওয়ার্ডে সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করবে। এরপর মহানগর বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। তবে এবার আর আগের মত ঢাউস কমিটি হবে না।

এদিকে সিলেট মহানগর বিএনপির কমিটিতে কে আহ্বায়ক হচ্ছেন তা নিয়ে দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে আলোচনা হচ্ছে। নতুন কমিটিতে আহ্বায়ক হিসেবে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, বর্তমান সভাপতি নাসিম হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালি পংকি, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরীর নাম আছে আলোচনায়।

মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসেন বলেন, আমরা একাধিকবার কেন্দ্রকে সিলেট মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠন করতে বলেছি। যেহেতু জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি হয়ে গেছে তাই আমাদের কমিটিও হওয়া উচিত। জেলা ও মহানগর বিএনপির সবশেষ সম্মেলন এক সঙ্গে হয়েছিল।

দলের হাইকমান্ড সূত্রে জানা যায়, দেশের মহানগর বিএনপির নেতাদের সঙ্গে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ইতিমধ্যে ভার্চুয়াল বৈঠক শুরু করেছেন। এর মধ্যে চট্টগাম ও বরিশাল মহানগরের নেতাদের সঙ্গে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্কাইপিতে বৈঠক করেছেন। শীঘ্রই সিলেট মহানগর কমিটির নেতাদের সঙ্গেও বসবেন তিনি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, কমিটি পুনর্গঠন একটি চলমান প্রক্রিয়া। এরই মধ্যে তৃণমূলের কমিটি গঠনের কাজ শুরু হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন মহানগর কমিটি গঠন করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email
  •  
  •  
  •  
  •  

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ