৩ আগস্ট ২০১৮


৩নং ওয়ার্ডে মেয়র ও কাউন্সিলরদের ভোটের মিল নেই!

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক : অনুষ্ঠিতব্য সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ৩নং ওয়ার্ডের ফলাফল বাতিল ও পুনরায় নির্বাচনের দাবীতে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন কাউন্সিলর পদপ্রার্থী এস. এম. আবজাদ হোসেন (আমজাদ), বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালিক, ছালেহ আহমদ, রাজিব কুমার দে, মোঃ শামীম আহমদ চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসার বরাবরে ৩নং ওয়ার্ডের ৫জন কাউন্সিলর প্রার্থীই এ স্মারকলিপি প্রদান করেন।

কাউন্সিলর প্রার্থীরা স্মারকলিপি উল্লেখ করেন, গত ৩০ জুলাই সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজ ও পুলিশ লাইন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের ৪টি ব্যালট বই ও সিল ছিনতাই করা হয় এবং এ ছিনতাইকৃত ব্যালট পেপার ও সিল উদ্ধার না করে পুনরায় ভোট গ্রহণ করা হয় যা সম্পূর্ণ অবৈধ ও বেআইনি। পর্যালোচনা করে দেখা যায় ২টি কেন্দ্রে মেয়র প্রার্থীর মোট প্রাপ্ত ভোট ৬৬৯১ এবং সকল সাধারণ কাউন্সিলর মিলে ভোট পান ৫৯০২টি। এখানে ভোটের ব্যবধান ৭৮৯টি।

এটা কোনভাবেই হতে পারে না, কারণ প্রত্যেক ভোটারকে ৩টি করে ব্যালট পেপার দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে সকল সাধারণ কাউন্সিলর ভোট ও বাতিল ভোট একসাথে যোগ করলে সকল মেয়রের প্রাপ্ত ভোটের সমান হওয়ার কথা, কিন্তু এখানে কাউন্সিলর ও মেয়রের ভোটের পার্থক্য ৭৮৯টি তা কিভাবে সম্ভব। এখানে পরিষ্কার বোঝা যায় এই ভোটের পার্থক্যই জাল ভোট। ব্যালট বই ছিনতাই, সিল ছিনতাই ও কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট প্রদানের সুযোগ করে দেন নির্বাচনের সাথে নিযুক্ত কর্মকর্তাগণ যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

নেতৃবৃন্দ বলেন, বর্তমান সরকারের অর্জনকে কলঙ্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ করতে এই কাজ করা হয়েছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৩নং ওয়ার্ডের ফলাফল বাতিল ও পুনরায় ভোট গ্রহণ করার জন্য নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ জানাচ্ছি। অন্যথায় যে কোন উদ্ভট পরিস্থিতির দায়ভার নির্বাচন কমিশনকেই নিতে হবে।

(আজকের সিলেট/৩ আগষ্ট/ডি/এসসি/ঘ.)

শেয়ার করুন