৭ আগস্ট ২০১৮


‘নির্বাচনে অনিয়ম হবে না, এমন নিশ্চয়তা দেয়া যায় না’

শেয়ার করুন

আজকের সিলেট ডেস্ক : প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, পাবলিক নির্বাচনগুলোতে অনিয়ম হবে না, এমন নিশ্চয়তা দেয়া যায় না। বড় বড় পাবলিক নির্বাচনে কিছু কিছু অনিয়ম হয়ে থাকে। আমরা সেগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নিয়ে থাকি। বরিশালে বেশি অনিয়ম হয়েছে সেখানে আমরা বাড়তি ব্যবস্থা নিয়েছি।

মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশনে প্রতিবন্ধীদের ভোটার অধিকার নিয়ে আয়োজিত এক কর্মশালা শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, গত পাঁচটি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে যেখানে যত বেশি অনিয়ম হয়েছে, আমরা সেখানে তত বেশি অ্যাকশন নিয়েছি। এ ধরনের পাবলিক নির্বাচনে কিছু অনিয়ম হয়।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি না যে, জাতীয় নির্বাচনে এমন কোনো অসুবিধা হবে। তবে কোনো অনিয়ম হবে না এ রকম নিশ্চয়তা দেয়ার সুযোগ আমাদের নেই। যেভাবে নিয়ন্ত্রণ করা দরকার সেভাবে আমরা নিয়ন্ত্রণ করব। নির্বাচনের পরিবেশের সুব্যবস্থা আছে। আমরা কোনো অসুবিধা দেখি না।

ইসির ওপর জাতির আস্থা নেই ড. কামাল হোসেনের এমন মন্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, ড. কামাল হোসেন কীভাবে দেখেন তা আমি জানি না। কোন জাতির কী পরিসংখ্যান তার কাছে আছে আমার জানা নেই। একটা কথা বলতে হলে পরিসংখ্যান দিতে হবে। জাতি কি তাকে বলেছে নাকি- আমরা নির্বাচন কমিশনের ওপর আস্থা রাখতে পারছি না।

বিএনপিসহ স্টেকহোল্ডারদের সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে নির্বাচন কমিশন অস্বস্তিতে নেই বলেও জানান সিইসি।

সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি বিষয়ে তিনি বলেন, জাতীয় সংসদের প্রস্তুতি আগে থেকেই ছিল। অক্টোবরে তফসিল ঘোষণা হবে। ডিসেম্বরের শেষের দিকে অথবা জানুয়ারির প্রথম দিকে সংসদ নির্বাচন হবে। নিয়ম অনুযায়ী জানুয়ারির ২৮ তারিখের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে। এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি, কমিশনের বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

কর্মশালায় নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদসহ অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

(আজকের সিলেট/৮ আগষ্ট/ডি/এমকে/ঘ.)

শেয়ার করুন