১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮


হবিগঞ্জ শহরে রাস্তাঘাটের বেহাল দশা

শেয়ার করুন

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জ পৌর শহরের রাস্তাঘাটের অবস্থা বেহাল। খানাখন্দে ভরা এই রাস্তাঘাট এখন যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে। বর্ষা মৌসুমে একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তা ঘাটের অবস্থা আরো শোচনীয় হয়ে পড়ে। এছাড়াও রাস্তা ঘাটের অধিকাংশ ছোট বড় খানাখন্দ বৃষ্টির পানিতে ডুবে থাকার কারণে ঘটছে দুর্ঘটনা, সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। আর এতে করে পৌরবাসীর ভোগান্তি দিন দিন চরম আকার ধারণ করছে।

সরেজমিনে হবিগঞ্জ শহরের ঘাটিয়া বাজার, বগলা বাজার, কামারপট্টি, চৌধুরী বাজার পয়েন্ট, কোর্টস্টেশন পয়েন্ট, বেবিস্ট্যান্ড মোড়, গরুর বাজার, সার্কিট হাউজ রোড, অনন্তপুর এলাকায় ঘুরে দেখা যায়, ওই সব এলাকার রাস্তাঘাটে ছোট ছোট খানাখন্দগুলো এখন বড় বড় আকার ধারণ করে মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিনই কোন না কোন স্থানে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন সাধারণ যাত্রীরা। এ ব্যাপারে পৌর কর্তৃপক্ষের এমন উদাসীনতায় নাগরিকদের মধ্যে শুরু হয়েছে নানা সমালোচনা। পরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টি এলেই তলিয়ে যায় শহরের অধিকাংশ সড়ক। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সমালোচনা সামাজিক যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম ফেসবুকে ও উঠছে সমালোচনার ঝড়। শেয়ার করা হচ্ছে বিভিন্ন স্থানের দুর্ভোগের চিত্র।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ পৌর এলাকার বাসিন্দা মোস্তাক আহমেদ বলেন, রাস্তা নিয়ে কি আর বলবো? সমস্যার শেষ নেই। শহরের অধিকাংশ রাস্তাঘাটই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা রাস্তা দিয়ে আসা যাওয়ার পথে অনেকেই বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে। এছাড়াও প্রতিনিয়ত চলাচলকারী সাধারণ মানুষের ভোগান্তির কথা সবারই জানা। তাই তিনি পৌর নাগরিকদের দুর্ভোগের কথা মাথায় রেখে পৌর কর্তৃপক্ষকে যত দ্রুত সম্ভব রাস্তাগুলো মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া উচিত বলে মনে করেন।

শহরের কোরেশনগর এলাকায় অবস্থিত রাইটওয়ে একাডেমীর অধ্যক্ষ আফজাল হোসেন বলেন, বাচ্চাদের নিয়ে বেশি দুশ্চিন্তায় থাকতে হয়। খানাখন্দ ভরা রাস্তায় একাডেমিতে যাতায়াতের পথে রিকশা কিংবা ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা উল্টে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে শিশুরা।

শহরের ঘাটিয়াবাজার এলাকার এসডি স্টোরের স্বত্তাধিকারী দুলাল সূত্রধর জানান, পৌর এলাকার ঘাটিয়া বাজার রাস্তাটির অবস্থা খুবই নাজুক। আমরা ব্যবসায়ীরা প্রতি বছরই পৌর কর্তৃপক্ষকে ট্যাক্স প্রদান করি। কিন্তু ঘাটিয়া বাজার সড়কের কোন উন্নয়ন কাজ হয় না। রাস্তাটির অবস্থা বেহাল হওয়ায় আমরা ব্যবসায়ীরা ঠিকমত ব্যবসায়ীক কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারছি না। এছাড়া ক্রেতারাও এ সড়কটি দিয়ে আসতে চায় না। তাই অনতিবিলম্বে যদি সড়কটি সংস্কার করে না দেওয়া হয় তবে আগামী বছর থেকে ট্যাক্স বন্ধ করে দেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র দীলিপ দাস জানান, শহরের ঘাটিয়া বাজারসহ বেশ কিছু রাস্তার সংস্কার কাজের জন্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের চিঠি পাওয়ার পরেই টেন্ডারের মাধ্যমে কাজ শুরু হবে। তবে এখন পৌরসভার নিজস্ব ঠিকারদার দ্বারা বেশ কিছু রাস্তার সংস্কার কাজ করা হচ্ছে। যাতে মানুষ চলাচল করতে পারে। এছাড়াও যাতে করে রাস্তার পানি দ্রুত নিস্কাশন হয় সে জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থা পরিস্কার ও সংস্কার করা হবে।

শেয়ার করুন