২৭ আগস্ট ২০১৭


একযুগেও নির্মিত হলো না সুরমা সেতু

শেয়ার করুন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : নির্মাণ ব্যয় ১৮ কোটি থেকে বেড়ে ১১৩ কোটি টাকায় উঠলেও সুনামগঞ্জের ছাতকের সুরমা নদীর ওপর দীর্ঘ একযুগেও শেষ হয়নি সেতুর নির্মাণ কাজ। কবে কাজ শেষ হবে এ ব্যাপারেও স্পষ্টভাবে কেউ কিছু বলতে পারছেন না। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া শেষ না হওয়ায় সেতুর দু’পাশে কাজ শুরু করা যাচ্ছে না।

জানা যায়, ২০০৪ সালে ছাতক পৌরসভার বাজনামহল ও নোয়ারাই ইউনিয়নের বারকাপন এলাকায় সুরমা নদীর উপর সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নেয় তৎকালীন সরকার। ওই বছরের ২৩ আগস্ট সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। এরপর সরকারের বিশেষ প্রকল্পের আওতায় ২০০৬ সালে জানুয়ারিতে ১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে শুরু হয়েছিল সেতুটির নির্মাণ কাজ। সেতুটির নির্মাণে সময় বেঁধে দেয়া হয়েছিলো তিন বছর। ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ক্ষমতায় আসার পর প্রকল্পটি এডিপি (বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি) থেকে বাতিল করা হয়।

এরপর ২০১০ সালে সেতুটির অসমাপ্ত কাজ শেষ করার জন্য ৫১ কোটি টাকার একটি নতুন সংশোধিত প্রকল্প যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়। এই আবেদনের পর নতুন করে ১১২ কোটি ৯৯ লাখ ৪৯ টাকার প্রকল্প অনুমোদনের জন্য সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রধান কার্যালয়ে পাঠানো হয়। গত বছরের অক্টোবর মাসে পরিকল্পিত এপ্রোচ ও নেভিগেশন ব্যবস্থার মাধ্যমে সেতু নির্মাণে ১১৩ কোটি টাকার প্রকল্প জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় অনুমোদন দেয়।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ জানায়, সেতু নির্মাণে ভূমি অধিগ্রহণের বিষয়ে প্রায় দু’মাস পূর্বে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি আবেদন পাঠানো হয়েছে। জমি অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া শেষ হলেই এপ্রোচ সড়কের কাজ শুরু হবে। এরইমধ্যে প্রায় সেতুর প্রায় ৩০ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে দাবি করে তারা।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সজিব আহমদ জানান, মূল সেতুর দরপত্র মুল্যায়ন শেষ পর্যায়ে রয়েছে। এটি অনুমোদনের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। পূর্বের চারটি পিলারের সঙ্গে নতুন তিনটি পিলার সংযোজন করেই সেতুর কাজ সম্পন্ন হবে।

 

(আজকের সিলেট/২৭ আগষ্ট/ডি/এমকে/ঘ.)

শেয়ার করুন