১৬ আগস্ট ২০১৭


ম.ম কলেজের টেক্কা সুমনকে হন্যে হয়ে খুঁজছে পুলিশ

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরীর মদন মোহনের কলেজের কতিত বড়ভাই ও মহানগর ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক তানভীর কবির চৌধুরী সুমন উরফে টেক সুমন উরফে টেক্কা সুমনকে হন্যে হয়ে খুঁজছে পুলিশ। এসএমপির এক পুলিশ সদস্যকে মারধোরের জন্য তার ও তার সহযোগীদের উপর ক্ষুব্দ মহানগর পুলিশের সদস্যরা। এ ঘটনায় সিলেট কোতোয়ালি থানায় একটি এসল্ট মামলাও দায়ের হয়েছে।

বুধবার টেক্কা সুমনকে প্রধান আসামী করে এবং তার ৭/৮ জন সহযোগীদের আসামী করে এমামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং-২০।

পুলিশ সূত্র জানায়- ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজে স্পষ্টভাবে দেখা যাচ্ছে যে পুলিশ সদস্যকে বেদমভাবে তিনদফা পিটিয়েছেন ছাত্রলীগের এই নেতা। ওই ফুটেজ দেখেই আসামীদের চিহ্নিত করা হয়েছে এবং গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

আহত পুলিশ সদস্য শফি আহমদ জানান, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে রিকাবীবাজারের নূরী রেস্টুরেন্টে নাস্তা করতে যান তিনি। বিল দেওয়ার সময় কাউন্টারের সামনে ম্যানেজারের সাথে তানভীর কবির চৌধুরী সুমন ও তার সহযোগিদের কথা কাটাকাটির ঘটনা দেখতে পান। ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা এ সময় ম্যানেজারকে বলে শোকদিবসের কর্মসূচী পালন করে নাস্তা করতে এসেছে তাই তারা বিল দেবে না। এ নিয়ে ম্যানেজারের সাথে তাদের কথাকাটাকাটি হয়।

শফি আহমদ ঝগড়া না করে তার বিল রাখার জন্য বললে আচমকা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তার উপর হামলা চালায়। এ সময় তাকে উপর্যুপরি চড় থাপ্পড় মারতে থাকে। নিজেকে পুলিশ সদস্য পরিচয় দিলেও তিনি রেহাই পাননি। মারধরের দৃশ্য রেস্টুরেন্টের সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়েছে বলে জানান শফি।

কোতোয়ালি থানার ওসি গৌছুল হোসেন হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। আমরা অপরাধীদের ধরার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছি।

এসএমপির মূখপাত্র ও অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) দান আল মূসা বলেন, এ ন্যাক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে পুলিশ জোরালো ভাবে কাজ করছে। কোন অপরাধীর ছাড় নেই।

তবে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক তানভীর কবির চৌধুরী সুমনের ব্যক্তিগত মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

 

(আজকের সিলেট/১৬ আগষ্ট/ডি/এসটি/ঘ.)

শেয়ার করুন