২২ আগস্ট ২০১৭


নিজ দলের কর্মীদের শিবির বানানোর অভিযোগ সাইফু্লের বিরুদ্ধে

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক:: সম্প্রতী হঠাৎ করেই সিলেটে ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদধারী নেতাদের নামে শিবির সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ উঠছে। শুধু অভিযোগই নয় সেই সাথে মিলছে প্রমানও।

এ ঘটনার পরই সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের আশরাফুল আমিন নামের এক সাংগঠনিক সম্পাদকের বিরুদ্ধে উঠে একই ধরনের অভিযোগ। কিছুক্ষণের মধ্যেই এই নেতার বিরুদ্ধে শিবির সংশ্লিষ্টার বিভিন্ন প্রমান ছড়িয়ে পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। এ নিয়ে অনেকটা দ্বিধা-দ্বন্দ্বে পড়ে গিয়েছিল সিলেট জেলা ছাত্রলীগ।

অবশেষে মিলেছে হঠাৎ করে ছাত্রলীগ নেতাদের বিরুদ্ধে শিবির সংশ্লিষ্টতার প্রমানসহ অভিযোগ আনার মুল হোতাকে। মঙ্গলবার এ ঘটনার হোতা গোয়াইনঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী সাইফুল ইসলাম মামুন নামের এক কর্মীকে হাতে-নাতে ধরেছে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ। তার কাছ থেকে শিবিরের খালি ফরম এবং বিভিন্ন কাগজ উদ্ধার করা হয়। এছাড়া তার কাছে গোয়াইনঘাট উপজেলা আরো কয়েকজনের নাম ব্যবহার করে তাদেরকে শিবির সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ আনার চেষ্টা করেছিল।

এ ব্যপারে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ বলেন, সাইফুল ইসলাম মামুনের বাড়ি গোয়াইনঘাটের নন্দিরগাও ইউনিয়নে। একই ইউনিয়নে বাড়ি গোয়াইনঘাট উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুল আমিনের। তাদের মধ্যে পূর্ব শত্রুতার জেড় ধরে সাইফুল নন্দিরগাও ইউনিয়ন শিবিরের সাবেক সভাপতি কামাল আহমদের সহযোগিতায় শিবিরের খালি ফরমে ছাত্রলীগ নেতাদের নাম লিখে তাদের বিরুদ্ধে শিবির সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ আনে। সোমবার রাতে বিভিন্ন যায়গা থেকে এমন খবর পেয়ে মঙ্গলবার আমরা তাকে হাতে-নাতে ধরি এবং তর কাছ থেকে সব তথ্য ও প্রমান সংগ্রহ করি। এতে তাকে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের পদধারী নেতা মদদ দেন বলে সে জানিয়েছে। পরে তার কাছে থাকা সব তথ্য ও প্রমান রেখে পরিবারের জিম্মায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান শাহরিয়ার আলম সামাদ

 

(আজকের সিলেট/সৈয়দ/ঘ.)

শেয়ার করুন