২৯ আগস্ট ২০১৭


মৌলভীবাজার শহরে বাড়ছে যানজট

শেয়ার করুন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : আর কয়েকদিন পরই সারা দেশে পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে স্বজনদের সাথে ঈদ কাটানোর উদ্যেশে নারীর টানে কেউ কেউ গ্রামের উদ্যেশে শহর ছাড়ছেন আবার কেউ কেউ শহরমুখী হচ্ছেন। প্রবাসী অধ্যুসিত ও পর্যটন জেলা মৌলভীবাজারে নিজের আত্মীয়দের সাথে নিরাপদ ঈদ উৎসবে সামিল হতে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র সহ মধ্যেপ্রাচ্যে বিভিন্ন দেশ থেকে একা কিংবা সপরিবারে প্রবাসীর আসছেন নিরাপদ পবিত্র ঈদযাত্রায় শামিল হতে, উদ্দেশ্য একটাই। তা হলো নিরাপদ ঈদযাত্রা।

মৌলভীবাজার শহরের পৌর এলাকার বিভিন্ন সড়কে ঈদকে সামনে রেখে বাড়ছে প্রচন্ড জানজট। জানজটের কারণে এসব সড়ক দিয়ে চলাচলকারী বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি অফিস আদালতে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী থেকে শুরু করে স্কুল- কলেজের ছাত্রছাত্রীসহ সাধারণ মানুষ পড়ছেন প্রচন্ড দুর্ভোগে।

শহরের এম সাইফুর রহমান সড়ক, পশ্চিমবাজার, চৌমুহনা, আদালত সড়ক, শাহমোস্তফা সড়ক সহ শ্রীমঙ্গল সড়কে সবচেয়ে বেশি জনজটের শিকার হচ্ছেন মানুষজন। যানজটের কারণে সবচেয়ে বেশি দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন অফিস আদালতের কমকর্তা-কর্মচারী সহ স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থীরা। কারন সময়মতো নিজ কর্মস্থলে উপস্থিত না হতে পারা।

দিনে কিংবা রাতে এমনকি সপ্তাহে বন্ধের দিন এবং রাতেও উল্লিখিত সড়ক সমূহে জানজটের শিকার হতে হচ্ছে চলাচলকারী সাধারণ মানুষদের । জানজটের পাশাপশি দুর্ভোগ বাড়ছে সাইফুর রহমান সড়কে একটু পর পর কার্পেটিং উঠে গিয়ে খানাখন্দ তৈরি হওয়ার কারণে। এ সড়কের যেসব জায়গায় খানাখন্দ সেসব জায়গায় সাময়িক জোড়াতালি দিয়ে যান চলাচলের উপযোগী করা গেলেও বৃষ্টির কারণে আবার তা উঠে গিয়ে নতুন করে খানাখন্দ তৈরি হচ্ছে।

অপরদিকে শহরের বিভিন্ন ফুটপাত সাধারণ মানুষের নিরাপদ পথ চলাচলের জন্য করা হলেও তা আবার ছোটখাটো হকারদের কারনে বেদখল হয়ে যাচ্ছে। পাশাপাশি যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং ও অবৈধ স্ট্যান্ড থাকার কারণে জানজট বেশি তৈরি হচ্ছে বলে মনে করছেন অনেকে। মাঝে মধ্যে ফুটপাত থেকে হকার উচ্ছেদ হলেও কিছুদিন পর তা আবার পুর্বের অবস্থায় ফিরে যান।

অন্যদিকে নিজেদের লোকবল ও সার্বিক সিমাবদ্ধতা থাকার পরও শহরের সবগুলো সড়ক যানজটমুক্ত রাখতে ট্রাফিক বিভাগও হিমশিম খাচ্ছে।

মৌলভীবাজার শহরে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সার্জন এসআই কামরান হাসান রিয়াদ জানান, মূলত মৌলভীবাজার শহরে হঠাৎ করে জানজটের অন্যতম কারণ হচ্ছে, চালকদের অসেচতনতা, আইনকানুন না মেনে নাগরিকদের নিজেদের খোয়ালখুশি মতো যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং ইত্যাদি।

তিনি বলেন, বিপণি বিতান এমবি ক্লথ স্টোর ও বিলাস ডিপার্টমেন্টাল স্টোরসহ শহরে বড় শপিংমলগুলোতে নেই কোনো পার্কিং ব্যবস্থা পাশাপাশি শহরে সড়কগুলোতে ধারণ ক্ষমতার তুলনায় বেড়ে গেছে অতিরিক্ত যানবাহন আর এসব কারণেই মূলত এই শহরে বাড়ছে যানজট।

 

 

(আজকের সিলেট/২৯ আগষ্ট/ডি/এসটি/ঘ.)

শেয়ার করুন