২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭


মৌলভীবাজারে কাউন্সিলরের উপর হামলার ঘটনায় মামলা

শেয়ার করুন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক স্বাগত কিশোর দাশ চৌধুরীর উপর সন্ত্রাসী হামলার দায়ে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম সুমনকে প্রধান আসামী করে ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

শনিবার সকালে তার স্ত্রী জোনাকি দেব চৌধুরী বাদী হয়ে মৌলভীবাজার মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। এতে মৌলভীবাজার জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম সুমনকে প্রধান আসামী করে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামী করা হয়।

মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি সোহেল আহমেদ জানান, ব্যবসায়িক লেনদেন থেকে পূর্ব শত্রুতার জের থেকে কাউন্সিলর স্বাগত কিশোর দাশ চৌধুরীর উপর গতকাল সন্ধ্যায় তার নিজ বাসায় হামলার ঘটনা হয়।

মামলার এজাহার ও পরিবার সূত্র জানায় জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রেজাউল করিম সুমন সহ প্রায় ১৫ জন হামলা করেন। এসময় তার পরিবারের আরও চার সদস্য আহত হন উল্লেখ করে জোনাকি দেব চৌধুরী।

শুক্রবার রাত ৮টার দিকে মৌলভীবাজার শহরের কাশীনাথ সড়কের বাসার ভেতর ঢুকে ১৫/২০জন সন্ত্রাসীরা কাউন্সিলর স্বাগত কিশোর দাস চৌধুরী ও তার পরিবারের উপর এলোপাথাড়ি হামলা চালায়। এসময় তাদের হামলায় স্বাগত কিশোর দাস অজ্ঞান হয়ে মেঝেতে পড়ে গেলে তিনি মারা গেছেন ভেবে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায় ও বাসার আসবাবপত্র ভাংচুর করে।

সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত হন স্বাগত দাসের স্ত্রী জোনাকি দাস চৌধুরী, তার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী তন্বী দাস চৌধুরী, চাচাত ভাই বাঁধন দাস চৌধুরী, চাচী রুমি দাস চৌধুরী। সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যাওয়ার পর আহতদের চিৎকারে আশ পাশের লোকজন এসে স্বাগত কিশোর দাস আহত অন্য ৪ জনকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে স্বাগত কিশোরের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে সিলেট হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে বলে চিকিৎসক জানান।

এ ব্যাপারে যুবলীগ সম্পাদক সৈয়দ রেজাউর রহমান সুমন বলেন আমাকে জড়িয়ে মামলা রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক, আমার সাথে ব্যবসায়ীক কোনো লেনদেন বা পাওনা ভিত্তিহীন।

 

(আজকের সিলেট/২৩ সেপ্টেম্বর/ডি/কেআর/ঘ.)

শেয়ার করুন