৩ নভেম্বর ২০১৭


মৌলভীবাজারে মনু নদীর ভাঙ্গনের কবলে শতাধিক পরিবার

শেয়ার করুন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজার পৌর শহরের ১নং ওয়ার্ডের সৈয়ারপুর এলাকার মনু নদীর তীরে শতাধিক আধাকাচা ও টিনসেডের তৈরি বাড়িঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। কয়েকদিন পূর্বে টানা বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের কারণে নদীর পানি বৃদ্ধির ফলে এসব বাড়িঘর হঠাৎ করে ভাঙ্গনের কবলে পড়ে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নদীর পানির স্রোতে স্বাভাবিক রয়েছে তবে, নদীর পাড়ের বস্তি এলাকার বাসিন্দারা রয়েছেন আতঙ্কে। কারণ যে কোন সময় নদীগর্ভে বিলীন হতে পারে তাদের বাড়িঘর।

নদীগর্ভে বাড়ি বিলীন হওয়া স্থানীয় সমাজকর্মী শ্যামলী সূত্র ধর জানান, এ পর্যন্ত নদীগর্ভে প্রায় শতাধিক বাড়িঘর বিলীন হয়ে গেছে। এসব বাড়ির বাসিন্দারা অন্যত্র নিরাপদ আশ্রয় নিয়েছেন।

অপর দিকে ঘরের অর্ধেক অংশ ভেঙ্গে গিয়ে পানির স্রোতের সাথে বিলীন হয়ে যাওয়ার কারণে বিপাকে পড়ে পরিবার সহ নিজের সন্তানদের নিয়ে বেশ দুর্ভোগে আছেন বস্তি এলাকার গৃহিনী নিয়তী দাশ।

তিনি আরো বলেন, খুব কষ্টে আছি, যেকোন সময় পুরো ঘরটি নদীগর্ভে বিলীন হতে পারে।

স্থানীয়রা অভিযোগ করে জানান, যেসব জায়গায় ভাঙ্গন হয়েছে সেসব জায়গায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কোন তৎপরতা নেই। এ পর্যন্ত বসত ভিটা থেকে প্রায় ৮ থেকে ১০ ফুট জায়গা নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ে।

তারা বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ড যদি সঠিক তদারকি করে পাথর ও বালুর বস্তা দিয়ে বাঁধ পুনর্নির্মাণ না করে তা হলে ধীরে ধীরে সম্পূর্ণ নদীর তীর গ্রাস হয়ে যাবে।

এদিকে ভাঙ্গনের খবর পেয়ে বস্তি এলাকা পরিদর্শন করেছেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান।

উপজেলা চেয়ারম্যান জানান, নদীগর্ভে বাড়িঘর বিলীন হওয়ার খবর পেয়ে সাথে সাথেই ঐ এলাকা পরিদর্শনে যাই। পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের সাথে আমার কথা হয়েছে। তাঁরা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন বিষয়টি সরেজমিনে গিয়ে দেখে কার্যকর উদ্যোগ নেয়ার।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, নদীগর্ভে বাড়িঘর বিলীন হওয়ার বিষয়টি তাঁর জানা নেই, তবে তিনি খোঁজ নিয়ে দেখছেন।

 

(আজকের সিলেট/৩ নভেম্বর/ডি/কেআর/ঘ.)

শেয়ার করুন