২ নভেম্বর ২০১৭


কালোবাজারিদের হাতে সিলেট বিপিএল-এর টিকেট

শেয়ার করুন

শহীদুর রহমান জুয়েল :  সোনার হরিণ নিয়ে চলছে তেলেসমাতি কথা ছিল গত মঙ্গলবার সকাল দশটা থেকে সিলেটে ইউসিবিএল ব্যাংকের তিনটি শাখায় এবং সিলেট জেলা স্টেডিয়ামের একটি বুথে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটের টিকেট বিক্রি করা হবে। কিন্তু সোমবার রাতে হুট করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সংশ্লিষ্টরা জানান, ব্যাংকে নয়, টিকেট মিলবে শুধু সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে।

প্রথম দিনই বিপুল সংখ্যক টিকেট চলে গেছে কালোবাজারিদের হাতে । সোনার হরিণ’ টিকিট পেতে আগের দিন সোমবার মধ্যরাত থেকেই নির্ঘুম রাত কাটিয়েও ৩১ অক্টোবর মঙ্গলবার শুন্য হাতে বাসায় ফিরেছেন সিলেটের অনেক ক্রিকেটপ্রেমী।

বুধবার দ্বিতীয় দিনের মতো ধাওয়া ধাওয়ির ঘটনা ঘটেছে। টিকেট না পেয়ে বেলা ২টার দিকে লাইনে দাঁড়ানো লোকজন স্টেডিয়াম লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ও জুতা নিক্ষেপ করেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।

প্রথম দিন বিপিএলের উদ্বোধনী দিনের ম্যাচগুলোর টিকেট কিনতে সকালেই সিলেট আসেন মদন মোহন কলেজ ছাএ মোঃ অাযাদুর রহমান সকাল ৬টা থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলেন । কিন্তু দীর্ঘ ৭-৮ ঘন্টা দাঁড়িয়ে থেকেও টিকেট নামক সোনার হরিণের দেখা পাননি। অাযাদুর রহমানের মতো হাজার হাজার ক্রিকেটপ্রেমী টিকেট না পেয়ে ফিরেছেন শুন্য হাতে।

সিলেট জেলা স্টেডিয়ামের টিকেট বিক্রির বিভিন্ন কাউন্টার থেকে জানানো হয়, টিকেট শেষ হয়ে গেছে। বিশেষ করে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পূর্বপাশের গ্যালারি (টিকেটমূল্য ২শ’ টাকা) ও পশ্চিমপাশের গ্যালারির (টিকেটমূল্য ৩শ’ টাকা) টিকেট ‘শেষ হয়ে গেছে’ বলে বিক্রি শুরুর ঘন্টাখানেকের মধ্যেই জানিয়ে দেয়া হয়। পরবর্তীতে শুধুমাত্র গ্র্যান্ড স্ট্যান্ডের (টিকেটমূল্য দুই হাজার টাকা) কিছুসংখ্যক টিকেট আছে বলে জানানো হয়। এছাড়া ক্লাব হাউজ (টিকেটমূল্য ৫শ’ টাকা) ও গ্রিন গ্যালারির (টিকেটমূল্য ৪শ’ টাকা) টিকেটও দ্রুততম সময়ের মধ্যে শেষ হয়ে যায়।

জানাযায়, সাধারণ মানুষ কিছু জানার আগেই একটি চক্র সেসব টিকেট উচ্চমূল্যে বিক্রির জন্য আগেভাগেই কিনে রাখে। কালোবাজারি চক্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও উচ্চমূল্যে টিকেট বিক্রি করছে। ‘সিলেটের বেচা-কেনা [শুধুমাত্র সিলেট শহর]’ একটি গ্রুপে টিকেট বিক্রির ঘোষণা দিয়ে পোস্ট দেয়া হয়েছে।

সিলেটের বেচা-কেনা [শুধুমাত্র সিলেট শহর]’ একটি গ্রুপ ০১৭৩৭২৬২***ওই মোবাইল নম্বরে কল দেয়া হলে এক যুবক রিসিভ করে নিজেকে সিলেট নগরীর কাজিটুলা সাফওয়ান পরিচয় দিয়ে বলেন, ‘টিকেট আছে ৪টা দেয়া যাবে। ১২০০ টাকার কম হবে না। ৩০০ টাকার টিকেট ১৫০০,২০০০ করে বিক্রি করছেন।তিনি নিজের জন্য একটি টিকেট কিনেন,এবং অন্যদের কাছে বেশী দামে বিক্রি করার জন্য অার ও কয়েটা টিকেট কিনেন তিনি তিনি অার ও বলেন এইটা অামাদের উপস্হিত ব্যবসা তাই অামরা “সিলেটের বেচা কেনা “গ্রুপে টিকেছ বিক্রি করার পোষ্ট দিয়েছি।তিনি অারও বলেন,অাগামি কাল হয়তো অার ও অাপডেট হতে পারে দাম ।

শেয়ার করুন