২১ নভেম্বর ২০১৭


পিএসসি পরিক্ষায় প্রক্সি : ওসমানীনগরে আটক ১০

শেয়ার করুন

জয়নাল আবেদীন, ওসমানীনগর থেকে : ওসমানীনগরে পিএসসি পরীক্ষায় প্রক্সি দিতে এসে কর্তৃপক্ষের হাতে দশজন ধরা পড়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় বিষয়ের পরীক্ষার দিন উপজেলার রহমতপুর উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রে ঘটনাটি ঘটে। ফ্রক্সিদাতারা দু’টি আনন্দ স্কুলের শিক্ষার্থী সেজে পরীক্ষা দিচ্ছিল। প্রক্সিদাতাদের অভিভাবকদের অনুরোধে মুচলেকার মাধ্যমে ছেড়ে দেয়া হয় এবং দশজন পরীক্ষার্থীকে বহিস্কার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্র সচিব রহমতপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম।

কেন্দ্র সচিব জানান, পরীক্ষা চলাকালে প্রথমে বিধানসূত্র ধর নামের এক ছাত্রের আসনে বসে স্থানীয় মোস্তাকিন আহমদ পরীক্ষা দেয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। তাকে আটক করে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে চাতলপাড় আনন্দ স্কুল ও সুন্দিকলা আনন্দ স্কুলের পক্ষে জুবায়ের আহমদ, নানু মিয়া, সেজান আহমদ, সুমন আহমদ, রাকিব আলী, মুন্নি বেগম, শাপলা বেগম, সাজমিন বেগম ও তান্নি আক্তার রিমা প্রক্সি দেয়ার বিষয়টি বেরিয়ে আসে।

প্রক্সিদাতাদের অনেকেই ৬ষ্ট ও ৭ম ও একাদশ শ্রেনীর ছাত্র। তাদের হল থেকে আটক করার পর তারা প্রক্সি দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করে। তাদের অভিভাবকরা এসে অনুরোধ জানালে ভবিষ্যতে এমন কাজ না করার লিখিত প্রতিশ্রুতি দিয়ে ছাড়া পায়।

এসময় আনন্দ স্কুলের পরীক্ষার্থী ফাহিম মিয়া, মইনুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান, পাবেল মিয়া, শোয়েব আহমদ, বিধান সূত্রধর, আয়েশা বেগম, সালমা বেগম, শিবলী বেগম ও তান্নি আক্তার রিমাকে পরীক্ষা থেকে বহিস্কার করা হয়।

কেন্দ্র সচিব নজরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি ধরা পড়ার পরপর এসব পরীক্ষার্থীদের বহিস্কার করা হয়েছে।এবং প্রক্সিদাতাদের অভিভাবকের অনুরোধে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

আনন্দ স্কুলের থানা কো-অর্ডিনেটর আলী আকবর বলেন, বিষয়টি জানার পর পরীক্ষার্থীদের বহিস্কার করা হয়েছে। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এদিকে এর আগে পাশ্ববর্তী বালাগঞ্জ উপজেলায় আরো দু’টি পরীক্ষা কেন্দ্রে আনন্দ স্কুলের পক্ষে ফ্রক্সি দিতে আসা ১৯ জনকে আটক করা হয় এবং ১৯জন পরীক্ষার্থীকে বহিস্কারের ঘটনা ঘটে।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রকিব ভূইয়া বলেন, দশজন পরীক্ষার্থীকে বহিস্কার করা হয়েছে। একই কারণে এর আগে বালাগঞ্জের দুটি কেন্দ্রে ১৯ জন পরীক্ষার্থীকে বহিস্কার করা হয়েছিল। ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনিসুর রহমান বলেন, এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

(আজকের সিলেট/২১ নভেম্বর/এসটি/ঘ.)

শেয়ার করুন