১৪ ডিসেম্বর ২০১৭


জামিন পেলেন মুক্তাদির

শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিবেদক : বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-১ আসনের সম্ভাব্য প্রার্থী খন্দকার আব্দুল মুক্তাদিরকে যেকোনো মুহুর্তে গ্রেফতার করতে পারে পুলিশ। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি অবমানার অভিযোগে বিশেষ আইনে দায়েরকৃত একটি মামলায় আসামী করা হয়েছে তাকে।

বৃহষ্পতিবার সকালে উচ্চ আদালত থেকে এই মামলায় জামিন নিয়েছেন তিনি।

সিলেট জেলা ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সজিবুর রহমান রুবেল আজকের সিলেট ডটকমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, গত ১১ ডিসেম্বর তাকে প্রধান আসামী করে এসএমপির জালালাবাদ থানায় বিশেষ মতা আইনে একটি মামলা হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি অবমানার অভিযোগ এনে এ মামলা করেছেন সিলেট জেলা বারের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর নুরে আলম সিরাজী। সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রট ২য় আদালতে গতকাল বুধবার মামলাটি রেজিষ্ট্রিভূক্ত হয়েছে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ওই আদালতের জি.আর.ও ফয়েজ।

মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির ছাড়াও এজাহারভুক্ত আসামী করা হয়েছে সিলেট সদর উপজেলার ২নং হাটখোলা ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মোঃ আজির উদ্দিন এবং জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাশেমসহ ৮জনকে । অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে সিলেট সদর হাটখোলা-জালালাবাদের ৬০ থেকে ৭০ জনকে ।

মামলা দায়েরের পর থেকে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদিরকে গ্রেফতার করতে তাকে হন্য হয়ে খোঁজছে পুলিশ। মামলাসহ সব ধরনের তথ্য গোপনের মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থা তাদের গ্রেফতারী নেটওয়ার্ক ও তল্লাশী অভিযান শুরু করেছে। এদিকে মামলার আসামী জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি চেয়ারম্যান মো. আজির উদ্দিন মার্কিন যুক্তরাষ্টে অবস্থান করছেন। ফলে সহসাই দেশে ফিরছেন না তিনি। তাকে গ্রেফতারে ইতোমধ্যে দেশের সবক’টি বিমানবন্দর ও ইমিগ্রেশন চেকপোস্টে ইনফরমেশন দিয়ে রাখা হয়েছে ।

জানা গেছে, গত ১ ডিসেম্বর শুক্রবার সিলেট সদর উপজেলার শিবের বাজারস্থ ২ নং হাটখোলা ইউনিয়নে পরিষদ কার্যালয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানে আজির উদ্দিনকে সংবর্ধনা দেয় সিলেট সদর বিএনপি। এসময় ইউনিয়ন পরিষদের দেয়ালে টানানো জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি উল্টিয়ে রাখা হয় বলে মামলায অভিযোগ করা হয়েছে।

জালালবাদ থানার ওসি শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, বিশেষ ক্ষমতা আইনে খন্দকার মুক্তাদিরসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা হয়েছে। পুলিশ পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণ করবে বলে জানান তিনি।

(আজকের সিলেট/১৪ ডিসেম্বর/ডি/এসটি/ঘ.)

শেয়ার করুন