১৬ ডিসেম্বর ২০১৭


কর্মীদের হাতে লাঞ্চিত হলেন জাপা নেতা তাজ রহমান (ভিডিও)

শেয়ার করুন

মবরুর আহমদ সাজু : এটিইউ তাজ রহমান। জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য। সিলেট-৪ আসন থেকে এবারের নির্বাচনে লাঙ্গলের কান্ডারীও হতে চান। কখনো বড় সাংবাদিক, কখনো রাজনৈতিক নেতা আবার কখনো নিজেকে ব্যবসায়ী হিসেবেও পরিচয় দেন। কিন্তু বিভিন্ন কারনে বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছেনা এই জাপা নেতার। সর্বশেষ শুক্রবার সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির হলরুমে একটি অনুষ্ঠানে হামলা চালিয়ে তাকে লাঞ্চিত করেছে জাতীয় পার্টির বিক্ষোব্ধ নেতাকর্মীরা।

জানা যায়, শুক্রবার জেলা আইনজীবী সমিতির হলরুমে জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক পার্টির ব্যানারে একটি মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক দাবীদার তাজ রহমান। কিন্তু এই অনুষ্ঠানে তাজ রহমানের কিছু অনুসারী ছাড়া আর কাউকে দাওয়াত দেয়া হয়নি এতে ক্ষোব্ধ হন দলটির তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

আর প্রায় একই সময়ে নগরীর কোর্ট পয়েন্ট মানববন্ধন কর্মসূচীর আয়োজন করে জেলা জাতীয় পার্ট ও অঙ্গ সংগঠন । এতে বক্তব্য রাখেন জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও হুইপ সেলিম উদ্দিন এমপি।

আইনজীবী সমিতির হলরুমে তাজ রহমানের অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার পরই দাওয়াত বঞ্চিত বিক্ষোব্ধ তৃণমূলের ত্যাগী কর্মীরা অনুষ্ঠানস্থলে হামলা চালায়। তারা চেয়ার টেবিল ভাংচুর করে অনুষ্ঠানের ব্যানার ছিনিয়ে নেয়। এসময় কর্মীরা তাজ রহমানকে লাঞ্চিত করেন বলেও জানান এক প্রত্যক্ষদর্শী।

প্রসঙ্গত, গত কিছু দিন পূর্বে জাপার চেয়ারম্যান হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের সিলেট সফরের সময় পার্টির চেয়ারম্যানকে না জানিয়েই সার্কিট হাউজে সংবাদ সম্মেলন ডেকে বসেন তিনি। সংবাদ সম্মেলন কাভারেজ করতে সাংবাদিকরা সার্কিট হাউজে গেলে জাপা চেয়ারম্যান কোন সংবাদ সম্মেলন ডাকেননি বলে জানান। এর পর উপস্থিত সাংবাদিকরা তাজ রহমানের কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি একাধিক সাংবাদিকের চাকুরী খাওয়ারও হুমকি দিয়েছিলেন।

বিষয়টি নিয়ে জানতে তাজ রহমানের ব্যক্তিগত সেলফোনে (০১৬১৫৩০০০০০) একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেন নি। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছু তাজ রহমানের পিএস পরিচয়দারী জনৈক ব্যাক্তি (০১৭৮২৩৭৪৮৬৯) কল দিয়ে জানান তিনি এই বিষয়ে গণমাধ্যমে কথা বলবেন না।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে জাপার সিলেট জেলা সভাপতি সেলিম উদ্দিন এমপি জানান, আইনজীবী সমিতির হলরুমে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তার দাওয়াত ছিল কিন্তু ব্যস্থতার কারনে তিনি যেতে পারেন নি।

তিনি বলেন, আমিই জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি। আর তাজ রহমান সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক।

সার্বিক বিষয়ে জানতে চাইলে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় যুগ্ন-মহাসচিব ও সিলেট মহাগনরের আহবায়ক ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া এমপি বলেন, সিলেটে কাল এধরনের কোন কর্মসূচী ছিল বলে আমার জানা নেই। আর কর্মসূচীতে হামলা ও লাঞ্চিত হওয়ার ঘটনা যদি ঘটে থাকে তা অবশ্যই দুঃখজনক। সঠিকভাকে সবাইকে নিয়ে কোন কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হলে এরকম অনাকাংখিত ঘটনা হয়তো ঘটত না। আমি বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

ভিডিও

(আজকের সিলেট/১৬ ডিসেম্বর/এমএস/এসটি/ঘ.)

শেয়ার করুন