৩০ নভেম্বর ২০২২


বিয়ানীবাজারে আরও দুই এলাকায় গ্যাসের সন্ধান

শেয়ার করুন

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি : বিয়ানীবাজারের একটি পরিত্যক্ত গ্যাস কূপ থেকে সফলভাবে গ্যাস উত্তোলনের পর এবার নতুন তথ্য প্রকাশ করলো সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেড। অল্প দিনের মধ্যে এই উপজেলায় আরো দুটি গ্যাস কূপ খনন করবে বলে জানিয়েছেন একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা। আর এ দুটি জায়গায় গ্যাস কূপ খনন কাজ সফল হলে প্রবাসী অধ্যুষিত এই উপজেলায় গ্যাস কূপের সংখ্যা দাঁড়াবে ৪-এ। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এ জন্য তারা অনেক যাচাই বাছাই করছেন এবং প্রক্রিয়াগত সব কার্যক্রম সম্পন্ন করেই দ্রুত সময়ের মধ্যে তারা কূপ খননের কাজ শুরু করবেন।

সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, বিয়ানীবাজার গ্যাস ফিল্ড লিমিটেড-১ এর পরিত্যক্ত কূপ থেকে পাইপ লাইনের মাধ্যমে প্রতিদিন ৮০ লাখ ঘটফুট গ্যাস জাতীয় গ্রীডে যুক্ত হচ্ছে।

তিনি জানান, বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের চূড়ান্ত অনুমোদন পাওয়ার পর সোমবার সন্ধ্যা থেকে জাতীয় গ্রিডে গ্যাস সরবরাহ শুরু হয়। বিয়ানীবাজার গ্যাস ফিল্ডের ১ নম্বর কূপ থেকে ১৯৯১ সালে গ্যাস উত্তোলন শুরু হয়। ২০১৪ সালে তা বন্ধ হয়ে যায়।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে আবার উত্তোলন শুরু হলেও ওই বছরের শেষ দিকে আবারও তা বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৭ সালের শুরু থেকেই কূপটি পরিত্যক্ত অবস্থায় ছিল। এরপর বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন (বাপেক্স) ওই কূপে অনুসন্ধান কাজ চালিয়ে গ্যাসের মজুত পায়।

এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ১০ সেপ্টেম্বর ওই কূপে নতুন করে পুনঃখননকাজ (ওয়ার্ক ওভার) শুরু হয়। কূপে গ্যাস প্রাপ্তি নিশ্চিতের পর গত ১০ নভেম্বর থেকে গ্যাসের চাপ পরীক্ষা শেষে কূপ থেকে দ্রুত জাতীয় সঞ্চালন লাইনে গ্যাস দেওয়ার জন্য প্রস্তুত করা হয়। বর্তমানে কূপের ৩ হাজার ২৫৪ মিটার গভীরে ৭০ বিলিয়ন ঘনফুটের বেশি গ্যাস মজুত আছে।

গ্যাসের চাপ পরীক্ষার পর দেখা গেছে কূপটি দৈনিক ১০ থেকে ১২ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করতে সক্ষম। তবে কারিগরি বিভিন্ন দিক বিবেচনা করে দৈনিক আট মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হবে। এতে দৈনিক ১২৫ থেকে ১৩০ ব্যারেল কনডেন্স গ্যাস পাওয়া যাবে।

মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সারা দেশের ন্যায় বিয়ানীবাজারেও প্রাকৃতিক গ্যাস অনুসন্ধান কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বাপেক্সের তত্ত্বাবধানে বিয়ানীবাজারের সর্বত্র জরিপ চলছে। ইতোমধ্যে তারা নিশ্চিত হয়েছেন বিয়ানীবাজার পৌরসভার খাসা এলাকায় একটি এবং মাথিউরা ইউনিয়নে একটি জায়গায় প্রাকৃতিক গ্যাস রয়েছে।

তাই বাপেক্স এই দু’টি জায়গায় গ্যাস কূপ খননের কাজ করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তিনি আশা প্রকাশ করেছেন, ২০২৪-২৫ সালের মধ্যে নতুন জায়গায় গ্যাস কূপ দু’টি খনন কাজ শেষে আশানুরুপ গ্যাস উত্তোলন করতে পারবেন।

শেয়ার করুন