২০ সেপ্টেম্বর ২০২৩


দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচন : সিলেট-৪ আসনে যেমন এমপি প্রত্যাশা তরুণ আলেমদের

শেয়ার করুন

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পেরিয়ে বাংলাদেশ এখন অতিক্রম করবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। ২০২৪ সালের জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার (ইসি) আনিছুর রহমান। তবে এখনো ভোটগ্রহণের কোন তারিখ নির্ধারণ হয় নি বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি। একাদশ জাতীয় নির্বাচন ও পরবর্তী পাঁচবছরে দেশ উন্নতির প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসাব মিলিয়ে এবারের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভিন্ন প্রতিফল দেখতে চান দেশের সচেতন জনতা। নির্বাচনী আলাপ-আলোচনা সামনে এলে সবসময়ই শীর্ষে থাকে খনিজ সম্পদে ভরপুর প্রকৃতিকন্যা সিলেট-৪ ( জৈন্তাপুর,গোয়াইনঘাট ও কোম্পানিগঞ্জ) আসন। খনিজ সম্পদ আর পর্যটন শিল্পের অপার সম্ভাবনাময়ী এই অঞ্চলের তরুণরা ‘এবার কেমন জনপ্রতিনিধি দেখতে চান’,এ বিষয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলে মতামত তুলে ধরেছেন আজকের সিলেটের আবু তালহা রায়হান

প্রাণাত্মীয় সিলেট-৪ এ জনগণপ্রেমী এমপি চাই

সিলেট-৪ আসন আমাদের প্রাণ। আত্মাস্বজন।মাসতিনেক পরেই দাদশ জাতীয় নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে অন্যরকম এক অনুভূতি কাজ করছে সবার মনে। অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে দেশের সরকার গঠন হবে এটা সকলের একান্ত প্রত্যাশা। দেশের সবক’টি আসনের মধ্যে সিলেট-৪ আসন পর্যটন নগরী ও কোয়ারী সমৃদ্ধ হওয়া সত্ত্বেও পড়ে আছে অবহেলার আড়ালে। গুরুত্বপূর্ণ এ আসনটি জৈন্তাপুর,গোয়াইনঘাট ও কোম্পানিগঞ্জ থানা নিয়ে গঠিত। অঞ্চলটির গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাঘাট,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলো এখনো মানসম্মত নয়। তাই দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে আসনটিতে স্থানীয়,সৎ,যোগ্য,জনগণবান্ধব এবং উন্নয়নপ্রেমী একজন এমপি চাই।

মাওলানা মুশতাক, তরুণ আলেম

 

প্রকৃতিকন্যা সিলেট-৪ এ আমনতদার এমপি চাই

জনপ্রতিনিধিগণ জনগণের অভিভাবক। জনগণের সুখ-দুঃখের কথাগুলো মহান জাতীয় সংসদে পৌঁছানোর একটা মাধ্যম। এই মহান দায়িত্ব যিনি গ্রহণ করবেন তার মধ্যে অবশ্যই ন্যায়পরায়ণতা,সুশিক্ষা, দায়িত্ববোধ,মানব সেবার মন-মানসিকতা থাকতে হবে। সামনে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আমাদের নির্বাচনী এলাকা সিলেট-৪ আসন। এ আসনে সর্বমহলে সৎসাহসী ও আমনতদার হিসেবে পরিচিত একজন এমপি চাই। যিনি জনগণের সুখে হাসবেন,দুখে কাঁদবেন। নিপীড়িত জনতার অধিকার আদায়ে লড়াই করবেন।

মাওলানা কয়েস আহমেদ,তরুণ আলেম

 

মাতৃভূমি সিলেট-৪ এ নীতিনিষ্ঠ এমপি চাই

নির্বাচনের ফলাফলে একটি বিষয় প্রায়ই দেখা যায়; কালো টাকার মালিক বা দুর্নীতিবাজরা নির্বাচিত হচ্ছে। আর্থনৈতিক অবস্থা, শিক্ষা, নাগরিক অধিকার ও দায়িত্ববোধ সম্পর্কে ভোটাররা অসচেতন থাকার কারণেই এমনটি ঘটছে। এর ফলে রাজনীতি, দুর্নীতিবাজ, খুনি, সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজদের দখলে চলে যাচ্ছে। আজকাল ভালো প্রার্থী পাওয়া দুষ্কর। অথচ জনগণ চায় সৎ, শিক্ষিত, চরিত্রবান, আদর্শবাদী ও সমাজ সেবার মানসিকতা সম্পন্ন যোগ্য মানুষ জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হোক। বস্তুত যারা সুখে-দুঃখে জনগনের পাশে থাকবে, কেবল তারাই জনপ্রতিনিধি হওয়ার অধিকারী।এলাকার রাস্তাঘাটের উন্নয়ন,যোগাযোগ, শিক্ষা, কৃষি ও সামাজিক শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় বলিষ্ঠ ভূমিকা পালনে সক্ষম ব্যক্তিকেই এমপি হিসেবে দেখতে চাই। যারা ঘোষ খায়, ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য পায়ে ধরে, ক্ষমতায় গেলে সাধারণ মানুষের উপর অত্যাচার করে, তাদের বর্জন করতে হবে। মনে রাখতে হবে—ন্যায়পরায়ণ, বিবেকবান, আদর্শবান, নীতিনিষ্ঠ, সমাজ উন্নয়নে নিবেদিত ও সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিরা জনপ্রতিনিধি হলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।

মাওলানা জাবির আহমেদ,তরুণ আলেম

 

ধর্মপ্রাণ মুসল্লিগরিষ্ঠ অঞ্চলটিতে সৎসাহসী এমপি চাই

বাংলাদেশের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিগরিষ্ঠ অঞ্চল সিলেট-৪ আসন। আসনটিতে সর্বদলীয় লোক নিয়ে নিরপেক্ষ কাজে বিশ্বাসী একজন এমপি চাই। যিনি ধর্মীয় যেকোন বিষয়ের ক্ষেত্রে আলেমসমাজের সঙ্গে পারামর্শ করে কাজ করবেন এবং সিদ্ধান্ত জানাবেন। রাস্তা-ঘাটের উন্নতিসহ সরকারি সকল অফিসে সাধারণ নাগরিকগণ যেন ঘুষবিহীন সেবা নিতে পারে, এ বিষয়ে সোচ্চার থাকবেন। বেকারত্বের দূরীকরণে মাদরাসা এবং জেনারেল সমাপ্তকারী যুবকদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবেন।

মাওলানা জুনাইদ আহমেদ,তরুণ আলেম

শেয়ার করুন