আজ শনিবার, ১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

অবশেষে চালু হচ্ছে সিসিকের সুরমা ন্যাচারাল পার্ক

  • আপডেট টাইম : April 22, 2018 6:00 AM

বিশেষ প্রতিবেদক : ১৪ বছর পর অবশেষে চালু হচ্ছে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার আলমপুরে নির্মানাধীন সুরমা ন্যাচারাল পার্ক। ২০০৪ সালে নির্মাণকাজ শুরু হওয়া এ পার্কটি আগামী জুলাই মাসে উদ্বোধনের কথা জানিয়েছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। দীর্ঘ বিরতি শেষে পার্কটি চালুর লক্ষ্যে সম্প্রতি শুরু হয়েছে রাইড বসানোর কাজ।

এই পার্কে শিশুদের সাথে বড়দেরও বিনোদনের ব্যবস্থা থাকছে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প সমন্বয়ক মো. নজরুল ইসলাম। আর পার্ক বাস্তবায়নকারী সংস্থা সিলেট সিটি করপোরেশন জানায়, দেরিতে হলেও চলতি বছরের জুন মাসে সুরমা ন্যাচারাল পার্কের কাজ শেষ করা যাবে। চলতি জুলাই মাসে পার্কটি উদ্বোধন করা সম্ভব বলে আশা সিসিক কর্মকর্তাদের।

বিগত বিএনপির সরকারের সময় প্রয়াত অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান আলমপুরে এই পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ নেন। নগরবাসীর বিনোদনের কথা চিন্তা করে সুরমা নদীর তীরবর্তী আলমপুরে ৩ দশমিক ৭৭ একর জমির উপর ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০০৪ সালে পার্কপির নির্মাণ কাজ শুরু হয়।

নিজস্ব অর্থায়নে কাজ শুরুর পর সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, মাটি ভরাটসহ গাছের চারা লাগানো হয়। পার্কটি সুরমার তীর ঘেঁষা হওয়াতে রাইড বসানোসহ নদীর সাথে নান্দনিক সিঁড়ি করারও উদ্যোগ নেওয়া হয়।

সেসময় পার্কটি সাইফুর রহমানের নামে নামকরণ করা হয়। পরে ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকার এসে প্রকল্পের কাজ বন্ধ করে দিলে প্রকল্পের ১২ লাখ টাকা ফেরত চলে যায়। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে এই প্রকল্প বাস্তবায়নে এত দিন কোনো উদ্যোগ নেয়নি।

অতি সম্প্রতি সুরমা ন্যাচারাল পার্কের নামে ৭ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় চীনা একটি কোম্পানির সাথে চুক্তি করে পার্কে রাইড বসানোর কাজ চলছে।

মনোলোভা ‘মনো রেল’ সহ মোট ৯টি রাইড বসানোর কাজ চলছে। আকর্ষণীয় রাইডগুলোর মধ্যে রয়েছে- মনো রেল ও ম্যাজিক প্যারাসুট। ম্যাজিক প্যারাসুটে একসাথে ১৮জন ৭০ ফুট উঁচুতে উঠানামা করা যাবে। আর মনো রেলে মাটি থেকে ১৫ফুট উপর দিয়ে এক হাজার ৩৬১ফুট দূরত্ব অতিক্রম করা যাবে। এটি থাকবে পার্কের চারপাশ জুড়ে।

এছাড়া পাইরেটশিপ, টুইস্টার, বাম্পার কার, ফ্রুট ফ্লাইং চেয়ার, ক্যারসেল, জাম্পিং ফ্রগ ও ভিজিটিং ট্রেন রয়েছে। ভিজিটিং ট্রেন দিয়ে একসাথে ২৬ জনকে নিয়ে ৪২০ ফুট ঘোরা যাবে। এসব রাইডের সাথে আরো কিছু রাইড থাকবে। যেগুলো বিনা টাকায় চড়া যাবে। আর নির্ধারিত ৯টি রাইড চড়তে ফি দিতে হবে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সিলেট সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী নূর
আজিজুল ইসলাম বলেন, সুরমা ন্যাচারাল পার্ক নামে অনুমোদিত প্রকল্পে ৭ কোটি
টাকা বরাদ্দ পেয়ে কাজ শুরু করা হয়েছে। কাজ শেষ হবে চলতি বছরের জুনে। আর জুলাই মাসে উদ্বোধনের করছি। কাজটি করছে চীনা একটি কোম্পানি। তাদের দেয়া ডিজাইনেই রাইডগুলো বসানো হচ্ছে।

প্রকল্প বাস্তবায়ন কাজে বিলম্ব প্রসঙ্গে তিনি বলেন, প্রকল্পের টাকা ফেরত চলে যাওয়ার কারণে কাজ বন্ধ হয়ে যায়। পার্কের কাজ শেষ হলে এটি বন্দোবস্ত দিয়ে দেয়া হবে। যাতে এই টাকায় পার্কটি রক্ষণাবক্ষণ করা যায়।

(আজকের সিলেট/২২ এপ্রিল/ডি/এমকে/ঘ.)

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ