আজ শুক্রবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

বিয়ানীবাজারে দুই বোনকে ধর্ষণ মামলায় পাঁচ আসামীর যাবজ্জীবন

  • আপডেট টাইম : August 20, 2017 3:28 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিয়ানীবাজারে দুই বোনকে ধর্ষনের ঘটনায় ৫ আসামীর যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। এঘটনায় আরো এক আসামীকে খালাস দেয়া হয়েছে। দন্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলো- কানাইঘাট উপজেলার বড়দেশ গ্রামের মৃত মকবুল আলী মকুল এর ছেলে সৈয়দুর রহমান সাইফুল (৩৮) ও মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার কটিয়া গ্রামের মৃত সুন্দর আলীর ছেলে সেলিম আহমদ (২৮), বিয়ানীবাজার উপজেলার জালালপুর গ্রামের মৃত মখদ্দছ আলীর ছেলে জয়নুল ইসলাম (৪০) ও তার বড় ভাই নজরুল ইসলাম (৪৫) ও কালাম আহমদ। তবে খালাসপ্রাপ্ত ব্যক্তি নাম জানা যায়নি। রায় ঘোষণার সময় আদালতে আসামীরা উপস্থিত ছিলো।

রবিবার দুপুরে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ ১ম আদালতের বিচারক এ রায় ঘোষণা করেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৫ মে রবিবার ভোররাতে উপজেলার চারখাই ইউনিয়নের হাজরাপাড়া ধর্ষণের শিকার হন দুই বোন। ধর্ষিতা দুই বোন ওই বছর এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে উর্ত্তীণ হয়েছিলেন। পুলিশ তাদের উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করে।

সেদিন যা ঘটেছিল : ২৫ মে রবিবার ভোররাত ৪টার দিকে মুখোশপরা ৭-৮ জন নরপশু সিদকেঁটে ঘরে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে পরিবারের সদস্যদের জিম্মি করে। পরে মা-বাবাকে বেধে রেখে তাদের দুই মেয়েকে ধর্ষণ করে। ধর্ষকরা চলে যাওয়ার পর পরিবারের সদস্যদের আর্ত-চিৎকারে লোকজন জড়ো হয়ে পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ নির্যাতিতা দুইবোনকে উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি বিভাগে ভর্তি করে। বিয়ানীবাজার থানার তৎকালীন ওসি আবুল কালাম আজাদ সেদিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছিলেন মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। তৎকালীন ওসি আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছিলেন- দুইবোনকে ধর্ষন করে ৫ নরপশু। এর মধ্যে বড় বোনকে ৩ জন ও ছোট বোনকে ২ জন ধর্ষণ করে।

পরে এ ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হলে ২৭ মে মঙ্গলবার পৃথক অভিযান চালিয়ে দুই লম্পটকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এরা হলো- সৈয়দুর রহমান সাইফুল (৩৮) ও সেলিম আহমদ (২৮)। সেলিম বর্তমানে কানাইঘাটের বড়দেশে বসবাস করত। এ ঘটনায় নির্যাতিতাদের বাবা বাদি হয়ে বিয়ানীবাজার থানায় মামলা দায়ের করেন। এর আগে ২৬ মে ধর্ষকদের সহযোগী ও নির্যাতিতাদের বাবাকে ফোনে হুমকিদাতা বিয়ানীবাজার উপজেলার জালালপুর গ্রামের মৃত মখদ্দছ আলীর ছেলে নজরুল ইসলামকে (৪৫) আটক করে পুলিশ। ২৭ মে দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

 

(আজকের সিলেট/২০ আগষ্ট/ডি/কেআর/ঘ.)

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ