আজ শুক্রবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

মৃত্যুর মিছিলেও চলছে শাহ আরফিন টিলায় পাথর উত্তোলন

  • আপডেট টাইম : March 24, 2019 9:20 AM

উপজেলা প্রতিনিধি

কোম্পানীগঞ্জ : প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা ও কঠোর তদারকির থাকা স্বত্ত্বেও কোম্পানীগঞ্জের শাহ্ আরফিনে চলছে অবাধে পাথর উত্তোলন। এরই মধ্যে টিলার পুরোটাই সাবাড় হয়ে গেছে। আছে শুধু স্তূপাকৃতির ধ্বংসাবশেষ। অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে ঘটছে হতাহতের ঘটনা। একের পর এক শ্রমিকের মৃত্যুতেও থেমে নেই পাথর উত্তোলন। দুর্ঘটনার পর দায়ের হওয়া কোন মামলাই আলোর মুখ দেখেনি। দুর্বল সাক্ষ্য-প্রমাণের অভাবে আসামীরা পার পেয়ে যায় বলে পুলিশের একটি সূত্র জানায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সরকারি খাস খতিয়ানের ১৩৭ দশমিক ৫০ একর জায়গায় শাহ্ আরফিন টিলা। প্রায় সাত শ’ বছর আগে ওলিকুল শিরোমনি হযরত শাহজালাল (রহ.) এর অন্যতম সফরসঙ্গী হযরত শাহ আরেফিন (রহ.) খাসিয়া পাহাড় পরিভ্রমনকালে এখানে বিশ্রাম নিতেন। এরপর থেকে ওই টিলার নাম হয়েছে শাহ্ আরেফিন টিলা। লালচে, বাদামি ও আঠালো মাটির এ টিলার নিচে রয়েছে বড় বড় পাথরখন্ড। এসব পাথর উত্তোলন করতে চলে টিলা কাটা।

স্থানীয়রা জানান, শাহ আরফিন টিলায় পাথর উত্তোলন বন্ধ করতে গত বছর ট্রাক্টর চলাচলের পথ বন্ধ করে দিয়েছিল প্রশাসন। কিন্তু, প্রভাবশালীরা নতুন সড়ক তৈরি করে টিলায় পাথর উত্তোলন অব্যাহত রাখে। ২০১৭ সালের ২৩ জানুয়ারি পাথর তোলার কাজ করতে গিয়ে টিলা ধসে এক সঙ্গে ছয় শ্রমিকের মৃত্যু হয়। এভাবে গত দুই বছরে টিলা ধসে প্রাণহানি হয়েছে ৩০ জনের মতো। গত পাঁচমাসে মারা গেছে ৮ শ্রমিক। এসব ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হলেও কোনোভাবেই বন্ধ করা যাচ্ছে না পাথর উত্তোলন।

কোম্পানীগঞ্জের ইউএনও বিজেন ব্যানার্জী জানান, শাহ আরফিনে টিলা কেটে পাথর উত্তোলনের বিষয়ে তারা নিয়মিত অভিযান চালাচ্ছেন। তিনি বলেন, পাহাড় কেটে পাথর উত্তোলন সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ