আজ শুক্রবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, ৭ মাস পর বিশ্বনাথে মামলা

  • আপডেট টাইম : April 8, 2019 10:42 AM

উপজেলা প্রতিনিধি

বিশ্বনাথ : প্রায় সাত মাস আগে লন্ডন সফরে যান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে সময় প্রধানমন্ত্রীর ওপর হামলা ও তাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেন সেখানে অবস্থানরত বিএনপি নেতারা। সেই ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকাসহ নানা অভিযোগ এনে যুক্তরাজ্যের কলচেষ্টার বিএপির সভাপতি সিলেটের বিশ্বনাথের বাসিন্দা মিছবাহ উদ্দিনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। অভিযোগপত্রে কেবলমাত্র মিছবাহ উদ্দিনকেই অভিযুক্ত করা হয়েছে।

মিছবাহ উদ্দিন সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার সদর ইউনিয়নের বৈদ্যকাপন গ্রামের ইন্তাজ আলীর ছেলে। তিনি সদ্য সমাপ্ত উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়ে পরাজিত হয়েছেন এবং বিএনপি থেকেও বহিস্কার হয়েছেন।

২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে যুক্তরাজ্য সফরকালে সে দেশের ওয়েস মিনিষ্টার কুইন এলিজাবেত সেন্টারের সামনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর হামলা করেন বিএনপি নেতারা। ওই হামলায় সম্পৃক্ততাসহ জামায়াতের সঙ্গে আঁতাত করে দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার অভিযোগ এনে মিছবাহ উদ্দিনকে অভিযুক্ত করে বিশ্বনাথ থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

রোববার সন্ধ্যাায় বিশ্বনাথ থানায় লিখিত অভিযোগ দেন উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের রামচন্দ্রপুর গ্রামের যুবলীগ নেতা আসাদ আহমদ। তিনি ওই ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য ও রামচন্দ্রপুর গ্রামের ফিরোজ আলীর ছেলে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে অভিযোগকারী যুবলীগ নেতা আসাদ আহমদ বলেন, ২০১৮ সালের ২১ ও২২ সেপ্টেম্বর মিছবাহ উদ্দিনের নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ ও ঝাড়ু মিছিলের ছবিসহ প্রমানাদি দিয়ে তিনি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

তবে, এসকল অভিযোগ মিথ্যা দাবি করেছেন দেশে অবস্থানরত অভিযুক্ত বিএনপি নেতা মিছবাহ উদ্দিন। তার দাবি এধরনের কোন ঘটনার সঙ্গে তিনি সম্পৃক্ত নন। তাছাড়া ঘটনার দিন তিনি সেখানে উপস্থিতও ছিলেন না। তাকে ফাঁসাতে বিএনপির একটি গ্রুপ মিথ্যা এ অভিযোগ দায়ের করিয়েছে।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১৮সালে তৎকালীন ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লন্ডনে সফরকালে ২১ ও ২২ সেপ্টেম্বর ওয়েস মিনিষ্টার কুইন এলিজাবেত সেন্টারের সামনে প্রধানমন্ত্রীর উপর হামলা চালানো হয়। এসময় বিএনপি নেতা মিছবাহ উদ্দিনের নেতৃত্বে দলবদ্ধভাবে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার লক্ষে শেখ হাসিনার পথরুদ্ধ করে ঢিল মারা হয়। পরদিন আবারও তার নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি হাতে নিয়ে ঝাঁড়ু প্রদর্শন করে দেশদ্রোহী শ্লোগান দেওয়া হয়। বর্তমানে মিছবাহ উদ্দিন দেশে এসে ওই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে তার নেতৃত্বে সরকার উৎখাতসহ বিভিন্ন রাষ্ট্রবিরোধী কাজে চালিয়ে যাচ্ছেন। এমনকি জঙ্গি সংগঠন জামাতের সাথে আতাঁত করে গোপনে একাধিকবার রাষ্ট্রবিরোধী বৈঠক করেছেন বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

অভিযোগপ্রাপ্তির সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামছুদ্দোহা পিপিএম বলেন, ঘটনাটি লন্ডনে ঘটেছে যে কারণে উচ্চ পর্যায়ে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। থানায় অভিযোগের প্রেক্ষিতে তারাও (থানা পুলিশ) তদন্ত করবেন এবং ব্যবস্থা নিবেন বলেও জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ