আজ শুক্রবার, ৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

কিবরিয়ার খুনিদের আড়াল করা হয়েছে : রেজা কিবরিয়া

  • আপডেট টাইম : May 28, 2019 8:13 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিলেট : সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমস কিবরিয়া হত্যা মামলার অভিযোগপত্র অসম্পূর্ণ এবং তাতে মূল খুনিদের আড়াল করা হয়েছে বলে অভিযোগ করে কিবরিয়াপুত্র ড. রেজা কিবরিয়া বলেছেন, যেদিন চার্জশীটে সত্য বেরিয়ে আসবে, মূল আসামিদের নাম অন্তর্ভূক্ত হয়ে আসবে, সেদিন মামলা লড়তে আদালতমুখী হবো। দুটি প্রশ্নের উত্তর তদন্ত কর্মকর্তারা বের করতে অনিহা দেখাচ্ছেন, প্রথমটি হচ্ছে- এই হামলার মূলহুতা কারা, আর হামলার ব্যাবহৃত গ্রেনেডের উৎস কোথায়। তিন তিনবার তদন্ত প্রতিবেদন দেয়া হয়েছে কিন্তু একটার সাথে আরেকটির কোন মিল নেই। এই ‘অসম্পূর্ণ’ অভিযোগপত্র মেনে নিতে আমাদের পরিবারকে হুমকি দেওয়া হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এনম অভিযোগ করেন গণফোরামের এই নতুন সারধারণ সম্পাদক।

২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারী হবিগঞ্জে এক জনসভায় গ্রেনেড হামলায় নিহত হন আওয়ামী লীগ সরকারের সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া। ১৪ বছরেও কিবরিয়া হত্যার বিচার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে এজন্য টানা দশ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকা আওয়ামী লীগকে দায়ি করেন তিনি।

গত নির্বাচনে গণফোরামের মনোনয়নে এক্যফ্রন্টের প্রার্থী হয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেন অর্থনীতিবিদ রেজা কিবরিয়া। সেই নির্বাচনে পরাজিত হলেও নির্বাচনের পর গণফোরামের সম্মেলনে দলটির সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হন তিনি। সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর প্রথমবারের মতো সিলেট এসে মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

এতে ড. রেজা কিবরিয়া দেশে গণতন্ত্র নেই দাবি করে বলেন, গণতান্ত্রিকভাবে বিরোধীতা করারও জায়গা নেই। আর গণতন্ত্র কাঠামো বজায় থাকলে মানুষের বাকস্বাধীনতা থাকে। রাস্তায় দাঁড়িয়েও অনেক কিছু বলা যায়। গণফোরাম ক্ষমতায় গিয়ে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবে।

তিনি বলেন, গণফোরাম গণতন্ত্র পূণরোদ্ধারে নেমেছে। এটা শুধু আমাদের দলের লড়াই না, আপনাদের সবার লড়াই। এই লড়াইয়ে গণমাধ্যমের গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা আছে।

রেজা কিবরিয়া বলেন, সরকার ভোট চুরি করে ক্ষমতায় গেছে, যে কারণে সরকারের উপর জনগণের আস্থা নেই। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে গণফোরাম বিপুলভাবে বিজয় লাভ করে ক্ষমতায় যাবে। ক্ষমতায় গেলে জনগণের আস্থার প্রতিদান দেবেন বলেন তিনি।
তিনি বলেন, আমরা চাই দেশ ভাল হোক। দেশের নাগরিক হিসেবে আমরা ভাল থাকি। অথচ বর্তমানে মানুষের মধ্যে ভয়, দুশ্চিন্তা বিরাজ করছে। মানুষ ভয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করতে পারে না। অপরাধ, অনিয়ম দেখলেও আতঙ্কে কথা বলে না।
ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, আমরা সুষ্ঠু নির্বাচনমুখী দল। নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় যেতে চাই। এখন সাংগঠনিকভাবে দলকে গুছাচ্ছি।

তিনি বলেন, রাজনীতিতে বিএনপিও আমাদের সঙ্গে আছে। তবে জামায়াত দেশে উন্নয়ন ও পরিবর্তন আনার মতো কোনো ক্ষমতা রাখে না বলে মন্তব্য তাঁর।

তিনি বলেন, দেশে বৈষম্য বেড়ে গেছে। বিশেষ করে মানুষের বৈষম্য। অথচ সরকারে থেকে অনেক ভাল কিছু কাজ করার ছিল। কিন্তু এখন ক্ষমতায় থাকা সরকার জনগণের না। রাতের অন্ধকারে তারা ভোট চুরি করে এমপি হয়ে ক্ষমতায় গেছে। নির্বাচনে এদেশে ১০৪ শতাংশও ভোট পড়ে।

সংসদ সদস্য মোকাব্বির খানকে দল থেকে বরখান্তের পর প্রেসিডিয়াম মেম্বার করার বিষয়ে তিনি বলেন, তিনি দলের তালিকাভূক্ত প্রার্থী ছিলেন না। তিনি পরে বাইরে থেকে এসে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছেন।

রেজা কিবরিয়া বলেন, আমার বাবা যে দলের রাজনীতি করেছেন। বাবার আদর্শের সে দল এখন নেই। বাবার দলে নেই, তাই বলে আমার বাবার নিরপপেক্ষ নীতি থেকে সরে আসিনি। বরং আওয়ামী লীগ গণতান্ত্রিক পথ থেকে সরে গেছে।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ