আজ সোমবার, ৮ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

কানাইঘাটে বসছে বাংলাদেশ-ভারতের সীমান্ত হাট

  • আপডেট টাইম : June 15, 2019 7:22 PM

উপজেলা প্রতিনিধি

কানাইঘাট : কানাইঘাট উপজেলার সীমান্তবর্তী সোনাতনপুঞ্জি এলাকায় বসছে বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ সীমান্ত বাজার বা বর্ডার হার্ট। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশের মধ্যে ইতোমধ্যে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়ে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। সব কিছু ঠিক থাকলে কিছুদিনের মধ্যেই বসবে এ বাজার। বর্ডার হাট বা সীমান্ত বাজারে দুই দেশের ক্রেতা-বিক্রেতা অংশগ্রহণ করবেন। সপ্তাহে একদিন প্রতি বৃহস্পতিবার এ বাজার বসবে। থাকবে দুই দেশের পণ্য।

কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা বিষয়টি করে বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সম্পর্ক আরো দৃঢ় করতে উভয় দেশের সীমান্তবর্তী এলাকায় বর্ডার হাট চালু করা হচ্ছে। কানাইঘাট সীমান্তে উভয় দেশের ১৩১৫ মেইন পিলারের পাশে বর্ডার হাট বা সীমান্ত বাজার স্থাপনের লক্ষ্যে প্রশাসনিক পর্যায়ে সব ধরনের কাজ বৈঠকে সম্পন্ন করা হয়েছে। আমাদের পক্ষ থেকে বর্ডার হাট বাজারের যাবতীয় ফাইল চূড়ান্ত ভাবে বাণিজ্য ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। দ্রুত সময়ের মধ্যে বর্ডার হাট বাজারের কার্যক্রম শুরু হবে বলে তিনি জানান।

শনিবার কানাইঘাট উপজেলার সীমান্তবর্তী সোনাতনপুঞ্জি এলাকায় উভয় দেশের প্রতিনিধি দলের চূড়ান্ত বৈঠক নো-মেনস্ ল্যান্ড এলাকায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে উভয় দেশের সীমান্তবর্তী ১৩১৫ মেইন পিলারের পাশে বর্ডার হাট বাজার স্থাপনের লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ৭ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবুল কালাম, সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মাহবুবুল আলম, কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা, সিলেট আবগারি শুল্ক ও ভ্যাট অফিসের যুগ্ম কমিশনার মিনহাজ উদ্দিন পালোয়ান, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) লুসিকান্ত হাজং, ১৯ বর্ডার গার্ড জকিগঞ্জ ব্যাটালিয়নের সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির চেয়ারম্যান জেমসলিও ফারগুশন নানকা।

অপরদিকে ১৫ সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধি দলের মেঘালয় রাজ্যের ইস্ট জৈন্তা পার্বত্য জেলার ডেপুটি কমিশনার এফএম দপ্ত এর নেতৃত্বে উপস্থিত ছিলেন, ইস্ট জৈন্তা পার্বত্য জেলা মেঘালয়ের কর্মাস ইন্ডাস্ট্রিজের জেনারেল ম্যানেজার এস পাসউয়েত, ডেপুটি ডিরেক্টর ডাব্লু ওয়ারসং, করিমগঞ্জ ডিভিশনের কাস্টমস প্রিভেন্টিভ ফোর্সের এসিস্টেন্ট কমিশনার এইচ কে দাস, শিলং মাউপাত ৯৭ বিএন বিএসএফ’র এসিস্টেন্ট কমান্ডেন্ট দিপক কুমার, ব্লক ডেভলাপমেন্ট অফিসার এস মারুয়েন, ইস্ট জৈন্তা পার্বত্য জেলা মেঘালয়েল জেলা কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ ফাংশনাল ম্যানেজার জিপালা, ইন্ডাস্ট্রিয়াল প্রমোশন অফিসার একে ফানকন, মেঘালয় ইন্ডাস্ট্রিয়াল ডেভলাপমেন্ট কর্পোরেশন শিলং এর এসিস্টেন্ট জেনারেল ম্যানেজার ডি.ডি নঙ্গমালীহ, এসিস্টেন্ট ম্যানেজার এ.জি.ডি. ওয়ানবাহ, বিএসএফের ৯৭ ব্যাটালিয়নের কর্নেল এইচ.এস রাওয়াত মেঘালয়ের ইস্ট জৈন্তা পার্বত্য জেলার এসপি বিবেকানন্দ, রাম্বাই প্রতিনিধি ডালই ই শের প্রমুখ।

দুই দেশের প্রতিনিধি দলের বৈঠকে বর্ডার হাট বা সীমান্ত বাজারের জায়গা উভয় দেশের প্রতিনিধি দলের উপস্থিতিতে ভারত ও বাংলাদেশের ১ একর ১৭ শতক জায়গা সনাক্ত করন ও যাবতীয় প্রশাসনিক কাজ বৈঠকে সম্পন্ন হয়। একই সাথে সীমান্ত বাজার প্রতি বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বসবে বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বৈঠকের সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট বিভাগে নিযুক্ত ভারতের সহকারী হাইকমিশনার এল কৃষ্ণ মূর্তি, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা ফারুক আহমদ চৌধুরী, কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, সাংবাদিক শাহীন আহমদসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিবৃন্দ।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ