আজ সোমবার, ২৫শে মে, ২০২০ ইং

বিশ্বনাথে রামপাশা-বৈরাগী-সিংগেরকাছ সড়কের বেহাল দশা

  • আপডেট টাইম : June 19, 2019 10:36 AM

উপজেলা প্রতিনিধি

বিশ্বনাথ : যথাসময়ে সংস্কার কাজ না করায় বিশ্বনাথের জনগুরুত্বপূর্ণ রামপাশা-বৈরাগী-সিংগেরকাছ বাজার সড়ক এখন বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় সড়কের বিভিন্ন স্থানে জলাবদ্ধতার কারণে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্ত। ফলে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন। এছাড়া জলাবদ্ধতার কারণে পানিবন্দি অবস্থায় মানবেতর জীবনযাপন করছেন প্রায় ৪০টি পরিবারের লোকজন।

এদিকে, প্রায় সাড়ে ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে রামপাশা-বৈরাগী-সিংগেরকাছ বাজার সড়ক সংস্কার কাজের জন্য দরপত্র (টেন্ডার) আহ্বান করা হয়। কিন্ত কোন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওই সংস্কার কাজের দায়িত্ব না নেয়ায় আবারো নতুন করে ২য় পর্যায়ে সংস্কার কাজের দরপত্র আহ্বান প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

জানা গেছে, বিশ্বনাথ উপজেলা প্রধান সড়কগুলোর মধ্যে অন্যতম ‘রামপাশা-বৈরাগী বাজার-সিংগেরকাছ বাজার সড়ক’। জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়ক দিয়ে বিশ্বনাথ, জগন্নাথপুর ও ছাতক-এই তিন উপজেলার মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করেন। সড়কের সাথে সরকারি ও বে-সরকারি অফিস, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বেশ কয়েকটি বাজারসহ গুরুত্বপূর্ণ অনেক প্রতিষ্ঠানের সংযোগ রয়েছে। ২০১৫ সালে সড়কের সংস্কার কাজ করা হয়। কিন্তু সংস্কারের কিছু দিন যেতে না যেতেই ফের সড়কের বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠে সৃষ্টি হয় গর্ত।

স্থানীয় রহমান নগর, বৈরাগী বাজার ও কাটলীপাড়া নামক স্থানে সড়কে যে বিশাল গর্ত সৃষ্টি হয়েছে তা দেখলে মনে হয় এটি সড়ক নয়, যেন মিনি পুকুর। পানি নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা না থাকায় বিশেষ করে সড়কের এই তিনটি স্থানে বছরের ১২টি মাসই জলাবদ্ধতা থাকে। স্থানীয়দের অভিযোগ- রহমান নগর গ্রামের কিছু লোক তাদের বাড়ির পাশ দিয়ে প্রবাহিত সরকারি নালাটি বেআইনিভাবে বন্ধ করে দেয়ার কারণে এই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। পানি নিষ্কাশনের সরকারি নালাটি বন্ধ করে জলাবদ্ধতা সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ ও নালাটি পূর্বের ন্যায় খনন করে দেয়ার দাবিতে বছর খানেক পূর্বে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এর কাছে স্মারকলিপি দিয়েছিলেন এলাকাবাসী। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি।

এছাড়া, সড়কটি ভেঙ্গে যাওয়ায় সময়মতো শিক্ষার্থী ও চাকুরিজীবীসহ লোকজন তাদের নিজ নিজ কর্মস্থলে গিয়ে পৌঁছাতে পারছেন না। জরুরী রোগীদের নিয়ে হাসপাতালে যেতে হলে বিপাকে পড়তে হয় অনেককে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল মুকিত সুমন জানান, জলাবদ্ধতা হওয়ায় সড়কটির করুণ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। ফলে আমাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাই জরুরী ভিত্তিতে জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি সংস্কারের জন্য আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

অটোরিক্সা চালক তজম্মুল আলী জানান, জীবিকার তাগিদে প্রতিদিন এ সড়কে ঝুঁকি নিয়ে বাধ্য হয়ে আমাদের গাড়ী চালাতে হচ্ছে। ফলে প্রায়ই নষ্ট হচ্ছে গাড়ীর যন্ত্রাংশ।

উপজেলা প্রকৌশলী হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া জানান, সড়কটির সংস্কারের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হলেও কোন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আবেদন না করায় আবারো টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সড়কের যে সকল স্থানের বড় বড় গর্ত রয়েছে তা জরুরী ভিত্তিতে ভরাট করা হবে বলেও জানান তিনি।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ