আজ সোমবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

বালাগঞ্জে প্রথম দিনে অনুপস্থিত ২৪পরীক্ষার্থী

  • আপডেট টাইম : নভেম্বর ২, ২০১৯ ২:২৬ অপরাহ্ণ

বালাগঞ্জ প্রতিনিধি : বালাগঞ্জে জেএসসিতে ও জেডিসিতে বাংলা ও কুরআন মজিদ ও তাজবিদ পরীক্ষা অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ ও নকলমুক্ত পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেএসসিতে দুটি কেন্দ্রে উপজেলার ১৬ টি বিদ্যালয়ের সর্বমোট ১৯৫৮ জন পরীক্ষার্থী পরিক্ষা দিচ্ছে।

বালা-১ কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ১২১৭জন। তন্মধ্যে মূল কেন্দ্র বালাগঞ্জ সরকারি ডি.এন উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষার্থী ৫৮৭জন,ছাত্র-২৩২ জন ও ছাত্রী ৩৫৫ জন এবং ভ্যানু কেন্দ্র বালাগঞ্জ সরকারি কলেজে মোট পরীক্ষার্থী ৬৩০ জন, এখানে ছাত্র ১৯৯ জন ও ছাত্রী ৪৩১ জন।

উল্লেখ্য যে, বালা-১ কেন্দ্রে বাংলা বিষয়ে পরীক্ষার্থী ছিল ৯৪৮ জন, উপস্থিত ৯৪২ জন, অনুপস্থিত ৬জন।

বালা-২ কেন্দ্রে মোট পরীক্ষার্থী ৭৪১ জন। তন্মধ্যে মূল কেন্দ্র দেওয়ান অাব্দুর রহিম স্কুল এন্ড কলেজে মোট পরীক্ষার্থী ৩৮৪ জন,ছাত্র ১১৩ জন ও ছাত্রী ২৭১ জন এবং ভ্যানু কেন্দ্র দেওয়ারবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মোট পরীক্ষার্থী ৩৫৭ জন, এখানে ছাত্র ১৫১ জন ও ছাত্রী ২০৬ জন।

উল্লেখ্য যে, বালা-২ কেন্দ্রে বাংলা বিষয়ে পরীক্ষার্থী ছিল ৬০৮ জন, উপস্থিত ৬০৪ জন, অনুপস্থিত ৪ জন।

কেন্দ্র দুটি হচ্ছে- দেওয়ান আব্দুর রহিম উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ এবং বালাগঞ্জ সরকারী ডিএন উচ্চ বিদ্যালয়। দুটি কেন্দ্রে বাংলা বিষয়ের পরিক্ষায় মোট অনুপস্থিত ছিল ২০ জন পরীক্ষার্থী। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন দেওয়ান আব্দুর রহিম উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব মো: খলিলুর রহমান ও বালাগঞ্জ সরকারী ডিএন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব মো: সাইফুল ইসলাম।

জেডিসিতে ১টি কেন্দ্রে উপজেলার ৬টি মাদ্রাসার সর্বমোট ৩৮৬ জন পরীক্ষার্থী ছাত্র ১৬৩জন, ছাত্রী ২২৩জন। অাজ ১ম দিন কোরঅার মজিদ ও তাজবিদ পরীক্ষার্থী ৩৭৪ জন, উপস্থিত ৩৬০জন অনুপস্থিত ১৪জন। কেন্দ্রটি হচ্ছে – ইসলামিয়া মোহাম্মদিয়া আলিম মাদ্রাসা। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন ইসলামিয়া মোহাম্মদিয়া আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব আব্দুল জব্বার চৌধুরী।

বালাগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো: নজরুল ইসলাম বলেন, পরীক্ষা অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ ও শৃঙ্খলার সাথে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১ম দিনের ন্যায় অন্যান্য পরিক্ষা গুলোও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন হওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করছি।

বালাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুস সাকিব বলেন, নকলমুক্ত পরিবেশে পরিক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে, পরিক্ষার আগে থেকেই আমরা উপজেলার সব কোচিং সেন্টার গুলো বন্ধ করে দিয়েছি। বাকি পরিক্ষা গুলোতেও নকল মুক্ত ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছি।

তিনি আরোও বলেন, পরীক্ষার হলে কোন ধরনের ছবি তুলা যাবে না এতে ছাত্রদের লিখার মনযোগ বিঘ্ন ঘটে।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ