আজ সোমবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

রবীন্দ্র স্মরণোৎসব মেতেছে নগরী

  • আপডেট টাইম : নভেম্বর ৫, ২০১৯ ৫:৪৮ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট : ঠিক একশ বছর আগে ১৯১৯ সালের ৫ নভেম্বর সকালে সিলেটে এসেছিলেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। সিলেট রেলওয়ে স্টেশন থেকে প্রথমে চাঁদনিঘাট হয়ে তিনি প্রবেশ করেছিলেন সিলেট শহরে। তাঁর আগমন উপলক্ষে সেদিন রেলওয়ে স্টেশনে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয় তাঁকে। এরপর চাঁদনিঘাটে তাঁকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দিয়ে বরণ করে নেয় সিলেটের মানুষ। তাঁর সাথে এসেছিলেন পুত্র রথীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও পুত্রবধূ।

সেদিন সিলেটের ব্রাহ্ম সমাজের আমন্ত্রণে সিলেটে এসে ব্রাহ্ম মন্দিরের একটি প্রার্থনাতেও যোগ দেন তিনি। সিলেটের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে সিলেটকে নাম দিয়েছিলেন শ্রীভূমি। দীর্ঘকাল পেরিয়ে কবিগুরুর আগমনের শতবর্ষ পূর্ণ হলো আজ।

কবিগুরুর সিলেট আগমনের শতবর্ষকে স্মরণীয় করে রাখতে সিলেটে চলছে নানা আয়োজন। এসব আয়োজনের মধ্যে সকাল ৭টায় তার আগমনীস্থল চাঁদনিঘাটের সুরমা নদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেছে ‘শ্রীহট্ট ব্রাহ্ম সমাজ’। এরপর একটি সংগীত শোভাযাত্রা নিয়ে বন্দরবাজারস্থ ব্রাহ্ম মন্দিরে আসেন কবিপ্রেমীরা। এরপর ব্রাহ্ম মন্দিরে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ‘শব্দে ছন্দে রবীন্দ্র স্মরণ’। এতে ব্রাহ্ম মন্দিরে রবীন্দ্রনাথের প্রার্থনা সভায় অংশগ্রহণের সময়কালের আবহে স্তোত্র, গান ও নৃত্যাঞ্জলি পরিবেশিত হয়। এতে অংশ নেন বিভিন্ন সংগঠনের শিল্পীরা। দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে সন্ধ্যায় থাকছে সিলেটের কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে কবিগুরুকে নিয়ে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এছাড়াও শতবর্ষ স্মরণোৎসব আয়োজন পর্ষদের আয়োজনে ক্বিনব্রিজ, সিংহবাড়ী ও এমসি কলেজে আয়োজন করা হয়েছে ৪ দিনব্যাপী ‘সিলেটে রবীন্দ্রনাথ শতবর্ষ স্মরণ উৎসব’। যার মূল পর্ব শুরু হয় বিকেল সাড়ে ৩টায় ক্বিন ব্রিজস্থ চাঁদনী ঘাটে রবীন্দ্রনাথের প্রতিকৃতি উন্মোচন ও কেক কাটার মধ্য দিয়ে। সিলেটে রবীন্দ্রনাথ : শতবর্ষ স্মরণোৎসব পর্ষদের এই আয়োজন আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন পর্ষদের আহ্বায়ক ও সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীসহ অন্য অতিথিরা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দুই বাংলার দুই খ্যাতকীর্তি রবীন্দ্র গবেষক ভারতের গোহাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের প্রাক্তন ডিন ঊষা রঞ্জন ভট্টাচার্য্য ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক গোলাম মুস্তাফা।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ