আজ শুক্রবার, ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

উদয়ন ও তুর্ণা এক্সপ্রেসের সংঘর্ষে নিহত ১৫

  • আপডেট টাইম : November 12, 2019 7:47 AM

আজকের সিলেট ডেস্ক : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার মন্দবাগ রেলস্টেশনে তূর্ণা নিশীথা ও উদয়ন এক্সপ্রেসের মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষে কমপক্ষে ১৫ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও বহু হতাহতের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার ভোররাত ৩টার দিকে কসবার মন্দবাগ নামক স্থানে এ সংঘর্ষ হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন ১৫জন নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সিগন্যাল না মানায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে।

জানা যায়, সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী ৭২৪ উদয়ন এক্সপ্রেস-২৯৩৪ মন্দভাগ লুপ লাইনে প্রবেশকালে ঢাকা অভিমুখী ৭৪১ তুর্ণা এক্সপ্রেস-২৯২৩ বিপরীত দিক থেকে এসে সংঘর্ষ ঘটায়।তুর্ণার ইঞ্জিনের আঘাতে উদয়নের শেষ তিনটি বগি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ঘটনাস্থলেই বেশ কজন প্রাণ হারান, কয়েকজনের মৃত্যু হয় হাসপাতাল নেয়ার পথে।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, উদয়ন লুপ লাইনে ঢোকার সময় ঢাকাগামী তুর্ণা নিশীথার মেইন লাইনে থেমে থাকার কথা ছিলো। কিন্তু সিগন্যাল না মেনে তুর্ণা সচল থাকায় দুর্ঘটনা ঘটে।

উদয়নের শেষ ৩টি কোচ ও তূর্ণার ইঞ্জিন মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। লাকসাম থেকে ভোর সাড়ে চারটায় রিলিফ ট্রেন রওয়ানা করেছে বলে রেলওয়ে ফ্যানদের ফেসুবক পেজে জানানো হয়েছে। দুর্ঘটনার পর পরই আশপাশের গ্রাম থেকে মানুষজন ছুটে আসে। যতোদূর সম্ভব তারা উদ্ধারকাজ শুরু করে। এরপর উদ্ধার কাজে যোগ দেয় পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস।

সর্বশেষ প্রাপ্ত খবরে জানা গেছে, ভোর ৬টার কিছু আগে ক্ষতিগ্রস্ত ৩টি কোচসহ পেছনের আরো ৩টি, মোট ৬টি কোচ রেখে বাকি কোচগুলো নিয়ে উদয়ন এক্সপ্রেস চট্টগ্রাম রওয়ানা করেছে।

আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশের ওসি শ্যামল কান্তি দাস দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মন্দভাগ রেলওয়ে স্টেশনে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর উদয়ন এক্সপ্রেস ও চট্টগ্রামগামী আন্তঃনগর তুর্ণা নীশিতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সংঘর্ষ হয়। দুইটি ট্রেনের কয়েকটি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে।

কসবার ইউএনও মাসুদ উল আলম বলেন, ‘ঘটনাস্থলে ৯টি লাশ রয়েছে, এরমধ্যে পাঁচজন পুরুষ ও চার জন নারী। কসবা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২৮ জন ভর্তি হন, তারমধ্যে দুজন মারা গেছেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে দুজন মারা গেছেন। কুমিল্লায় ৯ জন ভর্তি হন, তারমধ্যে একজন মারা গেছেন, তিন জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসেছি। উদ্ধার কাজ চলছে। আমরা কন্ট্রোল রুমও খুলেছি। স্থানীয়রা আমাদের জানিয়েছেন, প্রায় ১০০ লোক আহত হতে পারেন।’

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ