আজ বৃহস্পতিবার, ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

জ্বালানি মিলবে চা ও মাছের বর্জ্য থেকে

  • আপডেট টাইম : November 29, 2019 10:23 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : জ্বালানি খাতে নতুন আশার সঞ্চার হয়েছে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সিকৃবি) এক গবেষণায়।

এ গবেষণা করেছেন সিকৃবির এক শিক্ষক ও দুই শিক্ষার্থী। বাংলাদেশে ব্যবহূত চা ও মাছের বর্জ্য থেকে বায়োগ্যাস উৎপাদনে প্রথমবারের মতো সফল হয়েছেন তারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি শক্তি ও যন্ত্র বিভাগের চেয়ারম্যান সহযোগী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ রাশেদ আল মামুন এবং শিক্ষার্থী শঙ্খরূপা দে ও জিনাত জাহান এ গবেষণা করেন।

সিকৃবির জনসংযোগ ও প্রকাশনা দপ্তরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

ব্যবহূত চা, মাছ ও গবাদিপশুর বর্জ্য সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে বায়োগ্যাস উৎপাদনের পাশাপাশি সার হিসেবে ব্যবহারের প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। গবেষণায় ভিন্ন ভিন্ন অনুপাতে মাছ, চা ও গরুর সমন্বিত বর্জ্য থেকে ৭২ মিলি. এবং ৪৫ মিলি. গরু ও চায়ের সমন্বিত বর্জ্য থেকে ৩৫ মিলি. এবং গরু ও মাছের সমন্বিত বর্জ্য থেকে ৬৫ মিলি. বায়োগ্যাস বা মিথেন পাওয়া গেছে।

আরও জানানো হয়, বর্জ্য ভেদে বায়োগ্যাস থেকে ৬০-৬৫ শতাংশ মিথেন গ্যাস পাওয়া যায়। বাংলাদেশে প্রতিদিন ব্যাপক পরিমাণ চা, মাছ ও গবাদিপশুর বর্জ্য তৈরি হয়, যা সঠিক ব্যবস্থাপনার অভাবে পরিবেশের ওপর নানাবিধ ক্ষতিকর প্রভাব ফেলছে। ওই বর্জ্য পচে প্রচুর পরিমাণে মিথেন গ্যাস নির্গত হয়, যা গ্রিন হাউস গ্যাস হিসেবে কার্বন ডাই-অক্সাইডের চেয়ে ২৫ গুণ বেশি ক্ষতিকর। এ অবস্থায় মাছের বর্জ্য, চায়ের বর্জ্য ও গোবর মিশিয়ে ৬৫ শতাংশ নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎপাদন করা সম্ভব বলে জানিয়েছে সিকৃবির গবেষক দল।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ