আজ শুক্রবার, ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

অলরাউন্ডার কামরান, অপ্রতিদ্বন্দ্বী কামরান

  • আপডেট টাইম : December 4, 2019 2:00 PM

মাহমুদা খানম : সিলেটের রাজনীতির মাঠ বা খেলার মাঠ, সব জায়গায়ই অলরাউন্ডার প্লেয়ারের নাম বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। আধ্যাতিক রাজধানীর প্রথম মেয়র তিনি। জীবনের শুরু থেকেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছেন নিজের সর্বোচ্চ শক্তি দিয়েই। তাইতো সিলেট আওয়ামী লীগের কামরান এখনো অপ্রতিদ্বন্দ্বী। তাই তো সিলেটের রাজনীতির মাঠে কামরানের বিকল্প কামরানই।

রাত পোহালেই সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন। এই সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে একাধিক শক্তিশালী প্রার্থী থাকলেও মহানগর আওয়ামী লীগে তার সঙ্গে লড়াই করছেন না কেউ। সিলেট মহানগর সভাপতির পদে তিনি একাই প্রার্থী। তবে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থীর অভাব নেই। এই পদকে ঘিরে ইতিমধ্যে অর্ধডজন প্রার্থী আলোচনায় এসেছেন। চলছে জোর লবিং। পাশাপাশি জেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী ডজনখানেক। কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ।

দীর্ঘ ৮ বছর পর বৃহষ্পতিবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন। এই সম্মেলনকে ঘিরে সিলেট আওয়ামী লীগের ভেতরে লবিং আর গ্রুপিংয়ের অন্ত নেই। পুরাতনদের পাশাপাশি এবার আলোচনায় এসেছেন নতুনরাও। তারাও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে লড়াইয়ে নেমেছেন। সম্মেলনকে সামনে রেখে ইতিমধ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের বাকি থাকা ৬টি ইউনিটের সম্মেলন শেষ করেছে। এরপর তারা বর্ধিত সভা করে সম্মেলনের পুরোপুরি প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। সম্মেলনের জন্য গঠন করা হয়েছে বিভিন্ন উপ-কমিটিও। মহানগর আওয়ামী লীগের বর্তমান সভাপতি সিলেটের একাধিক বারের মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। পাশাপাশি তিনি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যও। কামরানের নেতৃত্বে থাকা সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক অবস্থা সুসংহত রয়েছে।

ওয়ার্ড পর্যায়ে দলের কার্যক্রমে তেমন কোন্দল নেই। পাশাপাশি বহিরাগত কিংবা লুটপাটকারীর সংখ্যাও কম। কামরান দীর্ঘদিন সভাপতির পদে থাকায় তিনি মহানগরের কার্যক্রমকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্ষম হয়েছেন। এবারো তিনি মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রার্থী।

সম্মেলনের সার্বিক বিষয়ে বদরউদ্দিন আহমদ কামরান বলেন, আমি বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার কর্মী। নেত্রী যেখানে আমাকে যে দায়িত্ব দেবেন সেই দায়িত্ব তিনি পালন করবেন। দলের প্রয়োজনে আমি যেকোনো স্থানে কাজ করতে প্রস্তুত।

তবে আওয়ামী লীগের একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, এবার দলটির জাতীয় সম্মেলনে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হওয়ার দৌড়েও এগিয়ে রয়েছেন কামরান। মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে এবার প্রার্থী অর্ধ ডজন। বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদও এবার এ পদে প্রার্থী। তার সঙ্গে এবার এ পদে শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলেছেন যুগ্ম সম্পাদক ফয়জুল আনোয়ার আলোয়ার, অধ্যাপক জাকির হোসেন, বিজিত চৌধুরী ও শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলসহ একাধিক প্রার্থী। তারা শক্তভাবে লবিং চালাচ্ছেন।

নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, দলীয় সভানেত্রী যদি বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে মনোনীত করেন তবে তিনি মহানগর সভাপতি পদে থাকবেন না। আর এমনটি হলেই কেবল কামরানের জায়গায় অন্যকাউকে সভাপতির দায়িত্ব দেয়া হতে পারে।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ