আজ মঙ্গলবার, ৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং

বাংলাদেশের স্বার্থে ১৭১ জনকে না ফেরানোর পরামর্শ চীনা রাষ্ট্রদূতের

  • আপডেট টাইম : February 17, 2020 5:27 PM

ডেস্ক রিপোর্টস : করোনা ভাইরাসের আক্রমণে বিপর্যস্ত চীনের হুবেই প্রদেশে আটকা পড়া ১৭১ বাংলাদেশি নাগরিককে এখনই ফিরিয়ে না আনার পরামর্শ দিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত লি জিমিং। করোনার ঝুঁকি বিবেচনা করে দেশের এবং জনগণের স্বার্থে বাংলাদেশকে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা বলেছেন চীনা রাষ্ট্রদূত।

সোমবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘ডিক্যাব টক’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। কূটনৈতিক প্রতিবেদকদের সংগঠন ডিক্যাব এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এর আগে গত ১ ফেব্রুয়ারি চীনের উহান থেকে ৩১২ জন শিক্ষার্থীকে ঢাকায় ফেরত আনা হয়। তাদের সবাইকে আশকোনার হজ ক্যাম্পে ১৪ দিন পর্যবেক্ষণে (কোয়ারেন্টাইন) রেখে সুস্থতা নিশ্চিত হওয়ার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। এখন আরও ১৭১ বাংলাদেশি চীনের হুবেই প্রদেশ থেকে দেশে ফিরতে আগ্রহী। এজন্য তারা আবেদন জানালেও এ বিষয়ে একটু সময় নিচ্ছে বাংলাদেশ।

কূটনৈতিক লি জিমিং বলেন, ১৭১ জন বাংলাদেশিকে এখনই ফেরত আনার প্রয়োজন নেই। কেননা, করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি তৈরি হতে পারে। যারা সেখানে আছেন, তারা সবাই সেখানে সুরক্ষিত আছেন। তাদের আনতে সেখানে যে ফ্লাইট যাবে, ওই বিমান এবং তার পাইলট-ক্রুদের এই মুহূর্তে অন্য কোনো দেশ ঢুকতে দেবে না।

আটকা পড়া ১৭১ বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে চীনের অনুমতি পাওয়া যাচ্ছে না বলে যে সংবাদ ছড়িয়েছে এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অনুমতি এখানে কোনো সমস্যা নয়। এখানে মূল সমস্যা হচ্ছে টেকনিক্যাল। ফ্লাইটের পাইলট-ক্রুরাও এই টেকনিক্যাল সমস্যায় পড়বেন।

লি জিমিং বলেন, ঢাকায় চীনের দূতাবাস চীনাদের এ দেশে থাকার ক্ষেত্রে বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন কাজে যুক্ত যারা চীনে ফিরে গেছেন, তাদের এখনই ফিরে আসতে নিষেধ করেছে। বাংলাদেশে থাকা কোনো চীনা নাগরিক এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হননি। আবার চীনে থাকা কোনো বাংলাদেশিও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হননি। কিন্তু সিঙ্গাপুরে ৫ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, যদিও তাদের চিকিৎসা চলছে।

এ সময় চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে লেখা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চিঠির কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেন, করোনা ভাইরাসের আক্রমণে স্বজন হারানো চীনা পরিবারগুলোর প্রতি শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চীন সরকার কর্তৃক দেশটিতে অবস্থানরত বাংলাদেশি নাগরিকদের সঠিকভাবে সেবা প্রদানেরও প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। করোনা ভাইরাসে বিপর্যস্ত চীনে মাস্ক, গাউন, ক্যাপ, হ্যান্ড গ্লোভ ও স্যানিটাইজারসহ স্বাস্থ্য সামগ্রী পাঠাচ্ছে বাংলাদেশ।

করোনা ভাইরাস শনাক্ত করতে বাংলাদেশকে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ৫০০টি স্বাস্থ্য পরীক্ষার উপকরণ (কিট) দিচ্ছে চীন। যা আগামী দুদিনের মধ্যে বাংলাদেশে এসে পৌঁছাবে বলেও জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন—ডিক্যাব সভাপতি আঙ্গুর নাহার মন্টি ও সাধারণ সম্পাদক তৌহিদুর রহমান।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ