আজ সোমবার, ১লা জুন, ২০২০ ইং

যে ৬ শর্তে মেনে রোববার থেকে শুরু হচ্ছে শুটিং

  • আপডেট টাইম : May 16, 2020 10:16 AM

বিনোদন ডেস্ক : সরকারি স্বাস্থ্য বিধি মেনে এবার টেলিভিশন নাটক শুটিংয়ের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আগামীকাল রোববার থেকে টেলিভিশন নাটক সংশ্লিষ্ট শিল্পীরা শুটিং করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন অভিনয় শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম।

এর আগে প্রথম বার করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব ধরনের টিভি নাটকের শুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। টেলিভিশন প্রোগ্রাম প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ, ডিরেক্টর গিল্ড, অভিনয় শিল্পী সংঘের প্রতিনিধিদের বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। পরবর্তীতে তা বাড়ানো হয়। যা শুক্রবার পর্যন্ত বহাল থাকে।

সম্প্রতি সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে শপিংমল, মার্কেট, দোকান খোলার সিদ্ধান্তের কথা জানায়। তবে ৩০ মে পর্যন্ত কার্যকর থাকবে সরকারি ছুটি। বন্ধ থাকছে গণপরিবহন। জনগণের চলাচলেও থাকছে বিধি-নিষেধ।

এর মধ্যেই নাটকের শুটিং শুরুর খবর এল।

শুক্রবার রাতে আহসান হাবিব নাসিম বলেন, ‘প্রায় দুই মাস হতে চলল আমাদের শিল্পী কলা-কুশলীরা ঘরে বসে আছেন। অনেকেই ভীষণ অর্থ কষ্টে দিন যাপন করছেন। আমরা তাদের সাধ্য অনুযায়ী সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু শিল্পীদের অনেকেই চাইছেন ঈদের আগে কিছু কাজ করতে। তারা সরকারি স্বাস্থ্য নির্দেশনা মেনে যেভাবে অফিস চলছে, সেভাবেই শুটিং করবেন।’

ডিরেক্টর গিল্ড সূত্রে জানা গেছে, কেউ শুটিংয়ে অংশ নিতে চাইলে ছয়টি শর্ত পালন করতে হবে। সেগুলো হলো-

১। আন্তঃসংগঠনের পক্ষ থেকে করোনাকালে স্বাস্থ্য অধিদফতরের গাইডলাইন অনুসরণে স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকে মুক্ত থাকতে কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। শুটিং বিষয়ক স্বাস্থ্যবিধির তথ্যাবলি স্ব স্ব সংগঠন থেকে সংগ্রহ করে সেই নিয়মে শুটিং করতে হবে।

২। লকডাউনের সময় সরকারি সংস্থার প্রয়োজনীয় অনুমতি সংগ্রহ করে শুটিং করতে হবে।
শিল্পী, কলাকুশলীরা শুটিং সংশ্লিষ্ট যে কোনও ধরনের কাজ নিজ দায়িত্বে সম্পন্ন করবেন। এর সাথে আন্তঃসংগঠন বা স্ব স্ব সংগঠন কোনোভাবেই সম্পৃক্ত থাকবে না।

৩। শুটিং করতে গিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির উদ্ভব হলে, অথবা কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে আন্তঃসংগঠন বা স্ব স্ব সংগঠন কোনও দায়-দায়িত্ব গ্রহণ করবেন না। সম্পূর্ণ দায় বর্তাবে সংশ্লিষ্ট প্রযোজক, পরিচালক, অভিনয়শিল্পী, চিত্রগ্রাহক, রূপসজ্জাশিল্পীসহ সংশ্লিষ্ট ইউনিটের সবার।

৪। বর্তমান করোনা পরিস্থিতি এবং আন্তঃসংগঠনের সিদ্ধান্ত ভালোভাবে অবগত হয়ে যারা শুটিং করতে আগ্রহী সেই শিল্পী, কলাকুশলী, প্রযোজক স্ব স্ব সংগঠনের সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদক বরাবর এই মর্মে ক্ষুদে-বার্তা অথবা ইমেইল পাঠাবেন। যেখানে লিখতে হবে, ‌‌‘আমি দুর্যোগকালীন সময়ে আন্তঃসংগঠনের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে ভালোভাবে অবগত হয়ে নিজ দায়িত্বে স্বেচ্ছায় শুটিংয়ে অংশগ্রহণ করছি। আমি সংকটে নিপতিত হলে এর দায়ভার সম্পূর্ণভাবে আমার।’

৫। সরকার পরিস্থিতি বিবেচনায় যে ঘোষণা দেবেন সকলকে সেটা মেনে নিয়ে কাজ করতে হবে। অথবা কাজ‌ বন্ধ রাখার পরিস্থিতি উদ্ভব হলে তা বন্ধ করতে হবে।

৬। আন্তঃসংগঠন এই শিথিল সিদ্ধান্ত পরিস্থিতি বিবেচনায় যে কোনও সময় বাতিল করতে পারে। আন্তঃসংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের যৌথ ভাষ্যে, ‘সকলের কাজ করার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করি আমরা। পাশাপাশি এও মনে করি সবকিছুর ঊর্ধ্বে জীবন।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ