আজ বুধবার, ২৭শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

নেশার জালে ৪ নায়িকা

  • আপডেট টাইম : September 27, 2020 11:30 AM

বিনোদন ডেস্ক : বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের বান্ধবী অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীকে টানা তিন দিন জিজ্ঞাসাবাদের পর গেল ৮ সেপ্টেম্বর মাদককাণ্ডে গ্রেফতার করে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)। সুশান্তের মৃত্যুর ৮৬ দিন পর গ্রেফতার হন আলোচিত এই বাঙালি অভিনেত্রী। তার জামিন আবেদন বাতিল করে ১৪ দিনের জন্য পাঠানো হয় মুম্বাইয়ের বাইকুল্লা জেলে।

গত মঙ্গলবার মুম্বাই জেল থেকে রিয়ার মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও তাকে ৬ অক্টোবর পর্যন্ত জেলেই থাকতে হচ্ছে। এদিকে রিয়ার ভাই শৌভিককেও গ্রেফতার করা হয়েছে।

সুশান্তের মৃত্যুর ঘটনায় রিয়াকে গ্রেফতারের পর তার দেয়ার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী এরইমধ্যে মাদককাণ্ডে নাম এসেছে পাতৌদি নবাব সাইফ আলি খানের কন্যা বলিউড অভিনেত্রী সারা আলি খান ও শক্তি কাপুরের কন্যা অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুরের। এমনকি বলিউডের সবচেয়ে দামি অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন ও রাকুল প্রীত সিংও বাদ যাননি।

এবার মাদককাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে এই চার অভিনেত্রীকেই এনসিবির মুখোমুখি হতে তলব করা হয়েছে।

ভারতের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা এএনআই-এর বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, ২৫ সেপ্টেম্বর এনসিবির দফতরে দীপিকা পাডুকোনকে হাজির হতে হবে। সারা আলি খান ও শ্রদ্ধা কাপুরকে হাজির হতে হবে ২৬ সেপ্টেম্বর। তবে রাকুল প্রীত সিং কবে হাজির হবেন, তা জানা যায়নি।

এনসিবির বরাত দিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে জানানো হয়েছে, গেল মঙ্গলবার সুশান্তের সাবেক ম্যানেজার জয়া সাহা জিজ্ঞাসাবাদে এনসিবিকে জানিয়েছেন, রিয়া, শ্রদ্ধা ও সুশান্তের জন্য তিনিই সিবিডি অয়েল (গাঁজা থেকে নিষ্কৃত তেলজাতীয় পদার্থ) কিনে দিয়েছিলেন। রাকুল ও সারার নাম বয়ানে উল্লেখ করেন মাদককাণ্ডে অন্যতম অভিযুক্ত রিয়া।

অন্যদিকে রিয়া চক্রবর্তীর বয়ান অনুযায়ী, সারা আলি খানের সঙ্গে ‘কেদারনাথ’ ছবির শুটিংয়ের সময় থেকেই মাদকে আসক্ত হয়ে পড়েন সুশান্ত। ওই ছবিতে সুশান্তের সহ-অভিনেত্রী ছিলেন সারা। তারা তখন গোপনে সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন।

গেল ১৪ জুন মুম্বাইয়ের বান্দ্রার বাড়ি থেকে সুশান্ত সিং রাজপুতের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। শুরুতে মুম্বাই পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করে। পরে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে তা কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিবিআই) এর হাতে উঠে তদন্তভার।

সুশান্তের মৃত্যুর ঘটনায় করা মামলায় রিয়ার বাড়ি থেকে ল্যাপটপসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস উদ্ধার করা হয়। একপর্যায়ে রিয়ার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাপ থেকে তার মাদক সেবনের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। এরপর রিয়ার মাদককাণ্ড নিয়ে এনসিবি পৃথক তদন্ত শুরু করে।

সুশান্তের মৃত্যুর পর ২৫ জুলাই তার বাবা কে কে সিং অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা ও বিষণ্নতার জন্য তাকে দায়ী করে এফআইআর দায়ের করেন।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ