আজ শনিবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

জটিল এনজিওপ্লাস্টি করে আন্তর্জাতিক সম্মাননা পেলেন ডা. ফজিলা তুন-নেসা মালিক

  • আপডেট টাইম : October 26, 2020 10:28 AM

আবু তালেব মুরাদ : জটিল এনজিওপ্লাস্টি করে (স্টেনটিং বা রিং বসানো) আন্তর্জাতিক সম্মাননা পেয়েছেন ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট এর কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা. ফজিলা তুন-নেসা মালিকের নেতৃত্বে একটি চিকিৎসক দল।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন বলছে, এটি বাংলাদেশের জন্য বিরল গৌরবের । হৃদরোগের চিকিৎসা জগতে বাংলাদেশ যে আর্ন্তজাতিক মানসম্পন্ন সেটিরই প্রমাণ এটি। ইউরোপিয়ান বাইফার্কেশন ক্লাব একটি আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সংগঠন যারা জটিলতর করোনারি হৃদরোগের চিকিৎসা, গবেষণা, জটিল এনজিওপ্লাস্টি পদ্ধতির গাইডলাইন প্রস্তুত নিয়ে কাজ করে থাকে। প্রতি বছর এই সংস্থা বিশ্বের সেরা তিনটি জটিল এনজিওপ্লাস্টিকে সম্মাননা দেয়।

এবছর সংস্থাটির এই সম্মানে ভূষিত হয়েছেন বাংলাদেশের ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্স ইনস্টিটিউট এর কার্ডিওলজি বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা. ফজিলা-তুন-নেসা মালিকের নেতৃত্বে একটি চিকিৎসক দল। এই দলের একটি জটিল এনজিওপ্লাস্টি (স্টেনটিং বা রিং বসানো) প্রসিডিউরকে বিশ্বের সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং প্রসিডিউরগুলোর মধ্যে সেরা হিসাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ইংল্যান্ড ও জাপানে হওয়া প্রসিডিউরগুলো দ্বিতীয় ও তৃতীয় হিসাবে নির্বাচিত হয়েছে।

উল্লেখ্য, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ একটি অলাভজনক, সেবামূলক, সরকার কর্তৃক সাহায্যপুষ্ট ও অনুমোদিত বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশে হৃদরোগ চিকিৎসার পথিকৃত জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার (অব.) আব্দুল মালিক কিছু সংখ্যক ডাক্তার ও অন্যান্য পেশার সমাজসেবীদের নিয়ে ১৯৭৮ সালে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশের যাত্রা শুরু করেন। প্রতিষ্ঠানটিতে ১৯৯৯ সালের মার্চ মাস থেকে ২০২০ আগস্ট মাস পর্যন্ত ১ লাখ ৭৭ হাজার ৯৬৪টি ক্যাথল্যাব প্রসিডিউর ও ৩২ হাজার ৮৬৩টি কার্ডিয়াক অপারেশন হয়েছে।

ডা. ফজিলা তুন-নেসা মালিক ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান, জাতীয় অধ্যাপক, আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ব্রিগেডিয়ার (অব:) অধ্যাপক ডা: এম এ মালিকের বড় কন্যা।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ