আজ শনিবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

রায়হান হত্যায় জড়িত সবার বিচার হবে : এসএমপি কমিশনার

  • আপডেট টাইম : October 27, 2020 9:39 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেট মেট্টোপলিটন পুলিশের নব নিযুক্ত কমিশনার নিসারুল আরিফ বলেছেন,   বন্দরবাজার ফাঁড়িতে পুলিশি নির্যাতনে রায়হান আহমদ হত্যার ঘটনায় আমরা লজ্জিত। তবে এ ঘটনায় পুলিশসহ যারাই জড়িত তাদের বিচার হবে।

মঙ্গলবার রাতে সিলেটে পৌঁছেই নিহত রায়হানের বাড়িতে গিয়ে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন। এর আগে রাত ৮ টা ৩৫ মিনিটে রায়হানের বাড়িতে এসে পৌঁছান সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের নতুন পুলিশ কমিশনার নিশারুল আরিফ। এসেই তিনি রায়হানের মা সালমা বেগম ও পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলেন।

এসময় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় এসএমপি বারবার বিতর্কে জড়াচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি নিজস্ব একটি পরিকল্পনা নিয়ে এসেছি। এছাড়াও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কিছু নির্দেশনা রয়েছে। আমি বিশ্বাস করি সকল কিছু গুছানো সম্ভব। এসআই আকবরকে কেউ যদি মদদ দিয়ে থাকে সবাইকে শনাক্ত করা হবে। সম্পৃক্ততা পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে। তারাও মামলার আসামি হবেন।

আকবরকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে করা এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পলাতক এসআই আকবরকে গ্রেপ্তার করতে আইন শৃঙ্খলা বাহীনির সকল ইউনিট কাজ করছে। তবুও জনসাধারণের মধ্যে কেউ আকবরের অবস্থান শনাক্ত করতে পারেন বা ধরতে পারবেন। আর যদি আকবরকে জনসাধারণের কেউ গ্রেপ্তার করেন তাহলে দ্রুত আমাদের সাথে যোগাযোগ করবেন।

এরআগে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজারে এশার নামাজ আদায় করেন তিনি। এরপর মাজার জিয়ারত শেষে তিনি রায়হানের বাড়িতে যান।

প্রসঙ্গত, গত ১১ অক্টোবর ভোরে পুলিশের নির্যাতনে রায়হান উদ্দিন (৩৩) নামে এক যুবক নিহত হওয়ার অভিযোগ তুলেন তার স্বজনরা। নিহত ওই যুবক সিলেটের আখালিয়ার নেহারিপাড়ার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে।

পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, ছিনতাইকালে গণপিটুনিতে মারা গেছেন রায়হান। তবে নিহতের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, পুলিশ ধরে নিয়ে নির্যাতন করে রায়হানকে হত্যা করেছে। পরিবারের অভিযোগে ভিত্তিতে তদন্ত কমিটি গঠিত করেছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ। তদন্তে নেমে পুলিশ হেফাজতে রায়হান উদ্দিনের মৃত্যু ও নির্যাতনের প্রাথমিক সত্যতাও পায় তদন্ত কমিটি।

এরপর বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াসহ ৫ পুলিশ সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ।

আর বহিষ্কারের পরপর গত ১৩ অক্টোবর থেকে লাপাত্তা হয়ে যান বরখাস্তকৃত এসআই আকবর। এরপরই পুলিশ কমিশনারের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠে। শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনা। এসব আলোচনা-সমালোচনার মধ্যেই বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার গোলাম কিবরিয়া বদলী করা হয়।

একই আদেশে সিলেট মে‌ট্রোপ‌লিটন পু‌লিশ (এসএমপি) ক‌মিশনার হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন নিশারুল আ‌রিফ।

এসএমপির নতুন কমিশনার নিশারুল আরিফ ২০১৯ সালের অক্টোবরে রাজশাহী রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি থাকাকালীন সময়ে ডিআইজি পদে পদোন্নতি পান। এরপর ওই বছরের ৯ ডিসেম্বর এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে নিশারুল আরিফকে এসপিবিএনের উপ-মহাপরিদর্শক হিসেবে পদায়ন করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ