আজ শনিবার, ২৮শে নভেম্বর, ২০২০ ইং

১৭ বছর পর দশঘর ইউপিতে চলছে ভোটের লড়াই

  • আপডেট টাইম : October 29, 2020 9:30 AM

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি : বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়নে দীর্ঘ ১৭ বছর পর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হওয়া এই ভোটগ্রহন চলবে টানা বিকেল ৫টা পর্যন্ত। ৯টি ওয়ার্ডের ১০টি ভোট কেন্দ্রে চলছে এই ভোটগ্রহণ।

এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। তরা হচ্ছেন- নৌকা প্রতীক নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব জবেদুর রহমান, ধানের শীষ নিয়ে দশঘর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি এমাদ উদ্দিন খান, জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম-আহ্বায়ক আবদুল মান্নান। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী) ঘোড়া প্রতীক নিয়ে নড়ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সামছু মিয়া লয়লুছ ও ইউনিয়ন বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন (বিএনপি’র বিদ্রোহী) আনারস প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

এছাড়া, সংরক্ষিত সদস্য প্রার্থী হিসেবে ১১ জন ও ৯ ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ৪৯ জন নির্বাচনে লড়ছেন।

ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে ১০টি ভোট কেন্দ্র রয়েছে। সেগুলো হলো, দশঘর নোয়াগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নোয়াগাঁও নিজামুল উলুম উচ্চ বিদ্যালয়, দশঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, শাড়ইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বর“নী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাউসি কাশিমপুর উচ্চ বিদ্যালয়, ধরারাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চান্দ ভরাং উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজ, ভল্লবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রায়কেলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

ইউনিয়নের ১৪ হাজার ১১৮ জন ভোটারগন ১০টি ভোট কেন্দ্রে ৪৫টি ভোটকক্ষে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ২৯ ও মহিলা ভোটার ৬ হাজার ৯০৯ জন রয়েছে।

অন্যদিকে যে কোন গোলযোগ এড়াতে ইউনিয়নে ১ জন করে ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ৩টি স্ট্রাইকিং টিম রয়েছে বলেও জানা গেছে। সুষ্ট ও শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহনে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ১ জন এসআই, ১জন এএসআই ৪ জন পুলিশ কনস্টেবল এবং ১৭ জন করে আনসার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য- সর্বশেষ ২০০৩ সালে এ ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্টিত হয়েছিল। সেই নির্বাচনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ও দশঘর ইউনিয়নের শফিকুর রহমান। ২০১২ সালে বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী ‘নিখোঁজের’ পর হঠাৎ করেই যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান তিনি। এরপর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দিয়েই চলছিল ইউনিয়ন পরিষদের কার্যক্রম। এর পর থেকে মামলার জটিলতায় আটকে থাকে এ পরিষদের নির্বাচন।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ