২১ জুন ২০২২


সিলেটে প্রশংসায় ভাসছে জেলা পুলিশ

শেয়ার করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক : ‘পুলিশ জনগনের বন্ধু’ এটির পুলিশের মুল শ্লোগান হলেও পুলিশকে নিয়ে জনগনের মধ্যে সাধারণত বিরুপ ধারনাই থাকতে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে অবশ্য এর ব্যতিক্রমও ঘটে। ‘মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার, পুলিশ হবে জনতার’ এই শ্লোগান নিয়ে মুজিববর্ষ থেকে শুরু হয় পুলিশের নবযাত্রা। প্রবাদ আছে ‘বিপদেই বন্ধুর পরিচয়’ বিপদ না আসলে বন্ধু চেনা যায়না। চলতি বন্যায় সিলেটবাসীর এই চরম বিপদে জনগনের পাশে দাঁড়িয়ে এখন প্রশংসায় ভাসছে সিলেট জেলা পুলিশ।

বন্যার শুরু থেকেই বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্র সহ পানিবন্দি বানবাসী মানুষদের রান্না করা খাবার সহ খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন জেলা পুলিশের সদস্যরা। আর এতে মাঠে থেকে মুল নেতৃত্ব দিচ্ছেন জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও মুখপাত্র লুৎফুর রহমান এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অ্যাপস) শাহরিয়ার বিন সালেহ।

জানা যায়, অতিরিক্ত ডিআইজি পদে সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত সিলেট জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম এর প্রত্যক্ষ তত্তআবধানে বিভিন্ন থানা এলাকায় অনাহারি বন্যার্তদের মাঝে খাবার পৌঁছে দেওয়ার জন্য একাধিক টিম গঠন করা হয়। এই টিমগুলি ইতিমধ্যে পানিবন্দি বিভিন্ন উপজেলার ২১শ ৫০ জনের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করেছে।

জেলা পুলিশ জানায়, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড আ্যপস) শাহরিয়ার বিন সালেহের নেতৃত্বে গোয়াইনাঘাট সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার প্রবাস কুমার সিংহ ও কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সুকান্ত চক্রবর্তী, পুলিশ পরিদর্শক শ্যামল বনিকসহ একাধিক টিমে বিভক্ত হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানা এলাকার বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় ৬০০ জন বানবাসির মধ্যে রান্না করা খিচুড়ি বিতরণ করা হয়ছে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মোঃ লুৎফর রহমানের নেতৃত্বে কানাইঘাট সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার আব্দুল করিম ও জেলা গোয়েন্দা শাখা (উত্তর) এর অফিসার ইনচার্জ রেফায়েত উল্লাহ চৌধুরীর সমন্বয়ে একটি টিম জৈন্তাপুর থানার বিভিন্ন এলাকার প্রায় ৫০০ বানবাসি মানুষের মধ্যে রান্না করা খিচুড়ি বিতরণ করা হয়। দীর্ঘ সময় আশ্রয় কেন্দ্রে অনাহারে অর্ধাহারে থাকার পর জেলা পুলিশের পক্ষ হতে রান্না করা খাবার পেয়ে অনেকে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

এছাড়া ওসমানীনগর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে ওসমানীনগর থানা এলাকায় রান্না করা খিচুড়ি বিতরণ করা হয়।

জকিগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হোসাইন এর নেতৃত্বে বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ হিল্লোল রায়সহ একটি টিম বিয়ানীবাজার থানা এলাকায় প্রায় ১০০ জন বানবাসি মানুষের মধ্যে খিচুড়ি এবং ২০০ জন মানুষের মধ্যে চাল, ডাল ও বিশুদ্ধ পানি বিতরন করা হয়।

গোলাপগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পরিত্রাণ তালুকদার এর নেতৃত্বে গোলাপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনূর রশিদ চৌধুরীর সমন্বয়ে একটি টিম থানা এলাকার বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় ৩০০ জন বানবাসি মানুষের মধ্যে রান্না করা খিচুড়ি বিতরণ করা হয়।

কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ তাজুল ইসলাম পিপিএম এর নেতৃত্বে থানা এলাকার বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় ২৫০ বানভাসি মানুষের মাঝে রান্না করা খিচুড়ি বিতরণ করা হয়।

বালাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ রমাপ্রসাদ চক্রবর্তীর নেতৃত্বে বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ২০০ বানভাসি মানুষের মধ্যে চিড়া, মুড়ি, গুড়, বিশুদ্ধ পানি ও চাল বিতরণ করা হয়।

গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম নজরুল ইসলাম এর নেতৃত্বে থানার অফিসার ফোর্সসহ একাধিক টিমে বিভক্ত হয়ে থানা এলাকার বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে রান্না করা খাদ্য বিতরণ করা হয়।

সিলেট জেলার পুলিশ সুপার (অতিরিক্ত ডিআইজি পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম বলেন, মাননীয় আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ, বিপিএম-বার এর নির্দেশে বাংলাদেশ পুলিশ সিলেট জেলার বানবাসি মানুষের পাশে আছে। বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়া পর্যন্ত জেলা পুলিশের এমন মানবিক কার্যক্রমের ধারা অব্যাহত থাকবে।

শেয়ার করুন