মনোনয়নের ক্ষেত্রে চারটি বিষয় বিবেচনায় নিচ্ছে আ.লীগ
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৫:০৫

৪৮ আসনে আওয়ামীলীগের এমপি হতে চান ১৫৪৯ নারী নেত্রী

মনোনয়নের ক্ষেত্রে চারটি বিষয় বিবেচনায় নিচ্ছে আ.লীগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০/০২/২০২৪ ১১:০৪:১২

 মনোনয়নের ক্ষেত্রে চারটি বিষয় বিবেচনায় নিচ্ছে আ.লীগ


জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থী আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি চূড়ান্ত করবে আওয়ামী লীগ। এই দিন সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে দলের মনোনয়ন বোর্ড বসে প্রার্থী চূড়ান্ত করবে। ইতোমধ্যেই দৌড়ঝাঁপ শুরু করছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, যারা দলের ত্যাগী নেতা ও সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী, আওয়ামী পরিবার, দক্ষ ও এলাকায় জনপ্রিয়তা আছে তাদেরকে সংরক্ষিত আসনের মনোনয়ন দেবে আওয়ামী লীগ। এছাড়া জনপ্রিয়তা ছিল কিন্তু আওয়ামী লীগের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চেয়ে পাননি সেসব নেত্রীদেরকে গুরুত্ব দেওয়া হবে। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে যেসকল নেত্রীরা আছেন তাদেরকে এবার মনোনয়নে দেবে দলটি। এছাড়া বিভিন্ন উপকমিটিতে আছেন এমন নেত্রীদেরকে মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্ব দেবে দলটি। চলতি মাসেই সংরক্ষিত আসনের এমপি নির্বাচিত করা হবে।

মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষেত্রে ত্যাগীদের গুরুত্ব দেবে আওয়ামী লীগ। দলীয় নেতাদের এমন বক্তব্যের ভিত্তি নেই দাবি করে মহিলা আওয়ামী লীগ ও যুব মহিলা লীগের কয়েকজন নেত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ বলে ত্যাগীদের মনোনয়ন দেবে আসলেই সকল কী ত্যাগীদের মনোনয়ন দেয়। তারা দেয় না। তাই এই কথার ভিত্তি নেই। যারা দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতি করে দলীয় মনোনয়ন পান না তাদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। কিন্তু বিভিন্ন সেলেব্রিটি আছে তারা উড়ে এসে জুড়ে বসে। দলের রাজনীতি সঙ্গে তারা ওইরকমভাবে জড়িত না হয়েও দলীয় মনোনয়ন পেয়ে এমপি হচ্ছেন। তাই এনিয়ে ক্ষোভ বিরাজ করছে অনেকের মধ্যে।

খোজঁখবর নিয়ে জানা গেছে, ৪৮টি আসনের বিপরীতে এবার সংরক্ষিত নারী আসনে ১৫৪৯টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করছে ক্ষমতাসীন দলটি।

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি হতে ছোট ও বড় পর্দার অভিনেত্রী মিলে প্রায় দেড় ডজন অভিনেত্রী আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। এছাড়া ঢাকা ও ঢাকার বাইরে তৃতীয় লিঙ্গের প্রায় ১০ জন মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।

সংরক্ষিত আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী মহিলা আওয়ামী লীগের এক নেত্রী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতি করেছি, বার বার দলের মনোনয়ন চেয়েও পাইনি। কিন্তু কিছু ব্যক্তিরা আছে রাজনীতি করে না। কোনো নেতার আর্শিবাদ নিয়ে মনোনয়ন তুলে আর এমপি হয়ে যায়। তারপর বিভিন্ন সুপারিশে অনেকেই সংরক্ষিত আসনে ছাড় পায়। তাহলে আমাদের রাজনীতি করে লাভ কী। এভাবেই নারীদের সংরক্ষিত আসন সীমিত। তারপর কিছু সেলব্রিটি আছে উড়ে এসে জুড়ে বসে।

নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলাফলের সরকারি গেজেট প্রকাশের পর ৯০ দিনের মধ্যে সংসদের সংরক্ষিত আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সেটাকে মাথায় রেখেই কাজ শুরু করেছে দলটি। এরইমধ্যে দলের মনোনয়ন বিক্রি শেষ করে প্রার্থীর একটি খসড়া তালিকা তৈরি করেছেন দলের সভাপতি শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগ সূত্রে এমনটাই জানা গেছে।

দলীয় প্রধানের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য নারী নেত্রীরা গণভবনে আসা-যাওয়া বাড়িয়েছেন প্রার্থীরা। একই সঙ্গে দলীয় শীর্ষ নেতাদের নজর কাড়তে প্রতিদিনই ধানমন্ডি সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ভিড় করছেন সংরক্ষিত আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। এমপি হতে নিজের মতো করে প্রার্থীরা জানান দিচ্ছেন সক্রিয়তার। আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে নিজের প্রার্থিতা জানান দেওয়ার পাশাপাশি সমর্থন চাচ্ছেন তাদের। বিশেষ করে ধানমণ্ডি আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিকালের পরে সংরক্ষিত আসনের প্রার্থীদের ভিড় থাকে চোখে পড়ার মতো।

তবে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ৭১ জন এমপিকে দলীয় মনোনয়ন না দিয়ে যে সংস্কার শুরু করেছেন শেখ হাসিনা। সংরক্ষিত আসনের ক্ষেত্রেও সেই ধারা অব্যাহত থাকবে বলে জানান মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যরা।

আওয়ামী লীগের সূত্র মতে, ৪৮টি আসনের বিপরীতে এবার সংরক্ষিত নারী আসনে ১৫৪৯টি মনোনয়ন ফরম বিক্রি করছে ক্ষমতাসীন দলটি। এরমধ্যে দুই থেকে তিনজন সেলব্রিটিকে মনোনয়ন দেওয়া হতে পারে। এছাড়াও এবার একজন তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়া হতে পারে। বতর্মানে যারা সংরক্ষিত আসনে এমপি আছেন তাদের মধ্যে দুই থেকে তিনজনকে রেখে বাকি সব নতুনদের মনোনীত করবে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল বলেন, সংরক্ষিত নারী আসনের মনোনয়ন দেবেন দলের সভাপতি শেখ হাসিনা। ত্যাগী, পরীক্ষিত, সাবেক ছাত্রলীগ এবং জনপ্রিয়তা আছে তাদেরকে দল মনোনীত করবে।

dhakaআওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সংরক্ষিত নারী আসনে আওয়ামী লীগ তাদেরকে মনোনয়ন দেবে যাদের জনপ্রিয়তা আছে। দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতি করছে, দলের ত্যাগী, পরীক্ষিত নেতা, তার পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনীতির করে তাদেরকে মনোনয়ন দেওয়া হবে।

আজকের সিলেট/ডিটি/ডি/এসটি

সিলেটজুড়ে


মহানগর