নবীগঞ্জে দুপক্ষের সংঘর্ষ, পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:২৪

মার্কেট ও দোকানপাঠ ভাংচুর : টিয়ারশেল-রাবার বুলেট নিক্ষেপ, আটক ১৪

নবীগঞ্জে দুপক্ষের সংঘর্ষ, পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৯/০২/২০২৪ ০১:০৪:৪৮

নবীগঞ্জে দুপক্ষের সংঘর্ষ, পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত


নবীগঞ্জে দুই গ্রুপের তিনঘন্টাব্যাপী ভয়াবহ সংঘর্ষে শহর রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। এতে পুলিশসহ উভয়পক্ষের অর্শধতাধিক লোক আহত হয়েছে। ভাংচুর করা হয়েছে মার্কেটসহ বিভিন্ন দোকানপাঠ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে টিয়ারশেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। এঘটনায় উভয় পক্ষের ১৪ জনকে আটক করা হয়েছে।

বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত নবীগঞ্জ শহরের নতুন বাজার এলাকায় এক টানা সংঘর্ষ চলে।

পুলিশ জানায়, কুর্শি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান খালেদুর রহমান খালেদের লোকজন ও আনমনু গ্রামের লোকজনের মধ্যে আদিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বাগবিতণ্ডা হয়। এ ঘটনার জের ধরে সন্ধ্যায় আনমনু গ্রামের লোকজন ইউপি চেয়ারম্যান খালেদুর রহমানের মালিকানাধীন মার্কেট রাজা কমপ্লেক্স ভাংচুর করে। খবর পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান খালেদের অনুসারী ও এনাতাবাদ গ্রামের লোকজন রাজা কমপ্লেক্সে জড়ো হয়।

পরে কুর্শি ইউনিয়নের এনাতাবাদ গ্রামের লোকজন ও আনমনু গ্রামের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ে। দফায় দফায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে উভয় পক্ষ। ভাংচুর করা হয় রাজা কমপ্লেক্সসহ ২০টি দোকানপাঠ। অগ্নি সংযোগ করা হয় একটি মোটরসাইকেলে। শহর পরিণত হয় রণক্ষেত্রে।

দফায় দফায় টিয়ারশেল-রাবার বুলেট নিক্ষেপের পরও নবীগঞ্জ থানা পুলিশের নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে যায় পরিস্থিতি। টানা ৩ ঘন্টা চলে সংঘর্ষ। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অনুপম দাস অনুপ, সার্কেল এএসপি আবুল খায়ের, সহকারী কমিশনার ভূমি শাহীন দেলোয়ারসহ বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে।

আজকের সিলেট/প্রতিনিধি/এসটি

সিলেটজুড়ে


মহানগর