শাবির নিরাপত্তাকর্মীকে বিনা নোটিশে চাকরিচ্যুত
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:২৯

শাবির নিরাপত্তাকর্মীকে বিনা নোটিশে চাকরিচ্যুত

শাবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৯/০৩/২০২৪ ০২:২৫:৪৬

শাবির নিরাপত্তাকর্মীকে বিনা নোটিশে চাকরিচ্যুত


শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিনা নোটিশে এক নিরাপত্তাকর্মীকে চাকরিচ্যুত করার অভিযোগ উঠেছে। ওই নিরাপত্তাকর্মীর নাম সানুর মিয়া। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে যমুনা স্টার সেইভ গার্ড সার্ভিস লিমিটেডের অধীনে কাজ করতেন।

সানুরের অভিযোগ, শারীরিক জটিলতায় ২০২৩ সালের ২ নভেম্বর থেকে ১৫ দিনের ছুটি নিয়ে চিকিৎসা নিতে ঢাকায় ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনে যান সানুর মিয়া। সেখানে ডাক্তার বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তাকে বাইপাস সার্জারি করার পরামর্শ দেন। সে সময়ে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম সাইফ ও যমুনা স্টার সেইভ গার্ড সার্ভিস লিমিটেডের তত্ত্বাবধায়ক হাবিবুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার সমস্যার বিষয়টি অবগত করেন। এসময় তারা দুজনই তাকে আশ্বস্ত করেন এবং চিকিৎসা চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেন।

এরপর গত ২২ ডিসেম্বর সানুর মিয়া হার্ট বাইপাস সার্জারি করান। সুস্থ হয়ে তিনি রমজান মাসের ৩-৪ দিন পূর্বে কাজে যোগদান করতে চান। এসময় যোগাযোগ করা হলে হাবিবুর রহমান তাকে বলেন, ‘কোম্পানি আপনাকে বাঁশ দিয়েছে। আপনার চাকরি চলে গেছে।’

সানুর মিয়া বলেন, ২০১৯ সাল থেকে আমি নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করে আসছি। এখন আমি সুস্থ আছি। আমার চাকরি চলে যাওয়ার বিষয়ে কোনো ধরনের নোটিশ দেওয়া হয় নি। আমার পরিবারের অবস্থা শোচনীয়। আমার চাকরি ফিরে পেলে পরিবারের ভরণপোষণ চালিয়ে যেতে পারতাম।

যমুনা স্টার সেইভ গার্ড সার্ভিস লিমিটেডের তত্ত্বাবধায়ক হাবিবুর রহমান বলেন, কোম্পানি থেকে বলা হয়েছে অসুস্থ কাউকে চাকরিতে রাখা যাবে না। তাই তাকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

কোনো ধরনের নোটিশ দেওয়া হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোম্পানির উর্ধ্বতন কর্মকর্তা থেকে মৌখিকভাবে বলা হয়েছে। আমিও তাকে মৌখিকভাবে বলেছি।

সার্বিক বিষয়ে জানতে কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সেলিম রেজাকে কল দিলে তিনি রিসিভ করেন নি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র নিরাপত্তা কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম সাইফ বলেন, কোম্পানির অধীনে যেসব নিরাপত্তাকর্মী আছেন তাদের সম্পূর্ণ দেখভাল তত্ত্বাবধায়ক করেন। কাউকে নিয়োগ দেওয়া হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা শাখা সুপারিশ করতে পারে। সানুর দীর্ঘদিন ক্যাম্পাসে কাজ করায় তাকে রাখার জন্য আমরা সুপারিশ করেছিলাম।

আজকের সিলেট/জেএন/এসটি

সিলেটজুড়ে


মহানগর