ভারতবিরোধিতায় বিএনপি, অস্থিতিশীল পরিস্থিতির শঙ্কায় আ.লীগ
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৪৪

ভারতবিরোধিতায় বিএনপি, অস্থিতিশীল পরিস্থিতির শঙ্কায় আ.লীগ

আজকের সিলেট ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩১/০৩/২০২৪ ০১:৫৩:২৪

ভারতবিরোধিতায় বিএনপি, অস্থিতিশীল পরিস্থিতির শঙ্কায় আ.লীগ


ভারতীয় পণ্য বয়কট ও ভারতবিরোধীরা সাম্প্রদায়িক উসকানিমূলক কর্মকাণ্ড করে দেশের মধ্যে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিত সৃষ্টি করতে চায়- এমন আশঙ্কা করছেন আওয়ামী লীগ নেতারা। তবে বিএনপির সৃষ্ট ‘উসকানিমূলক’ পরিস্থিতি শক্ত হাতে দমন করতে প্রস্তুত রয়েছেন ক্ষমতাসীন দলটির নেতারা। ভারতীয় পণ্য বয়কটের ডাক দুই দেশের সম্পর্কে প্রভাব ফেলবে না বলেও জানান তারা।

ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষনেতারা বলছেন, বিএনপি দেশের মানুষের কথা কখনো ভাবেনি। তাদের কাছে ক্ষমতাই সব। তাই যেকোনো মূল্যে তারা ক্ষমতায় যেতে মরিয়া। বিএনপি মনে করে, কোনোভাবে দেশের মধ্যে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করে দেশের মানুষকে ক্ষেপিয়ে তুলতে পারলে আওয়ামী লীগের পতন ঘটানো সহজ হবে। একইসঙ্গে ভারতবিরোধিতা করলে আওয়ামী লীগ আরও চাপে পড়বে। তাই ভারত ও তাদের পণ্য বয়কট করে দেশের মধ্যে একটা খারাপ পরিস্থিতি সৃষ্টি করাই বিএনপির মূল উদ্দেশ্য। কিন্তু আওয়ামী লীগ এই বিষয়ে সতর্ক আছে এবং বিএনপির আন্দোলন ও তাদের কর্মসূচির দিকে নজর রাখছে।

ভারতীয় আগ্রাসন রোধ ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষীদের গুলিতে নিহত বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের সদস্য রইশুদ্দীনসহ সাধারণ নাগরিক হত্যার প্রতিবাদে গত ২৫ জানুয়ারি সব ধরনের ভারতীয় পণ্য বর্জনের ডাক দেয় গণঅধিকার পরিষদ (ফারুক-মিয়া মসিউজ্জামান)। এরপর থেকে ভারতীয় পণ্য বর্জন আন্দোলনের বিষয়টি সামাজিকমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

২০ মার্চ নয়াপল্টনের দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে সেই আন্দোলনের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে নিজের ব্যবহার করা ভারতীয় চাদর ছুঁড়ে ফেলে দেন।

দলীয় সূত্রমতে, ভারতীয় পণ্য বয়কটে বিএনপির সমর্থন দেওয়ার পর থেকে দলটির নেতাদের কর্মসূচিগুলো গুরুত্ব দিয়ে দেখছে আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারকরা। বিশেষ করে ভারতীয় পণ্য বয়কটে বিএনপি যে সমর্থন দিয়েছে বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করছেন ক্ষমতাসীনরা। বিএনপি ওই ক্যাম্পেইনে সমর্থনের পর থেকে আওয়ামী লীগ নেতারা বিষয়টি নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিতে শুরু করেছেন।

আওয়ামী লীগ নেতারা বলছেন, ভারতীয় পণ্য বর্জন বিএনপির দেউলিয়াত্বের প্রকাশ। ভারতবিরোধিতা বিএনপির নতুন কিছু নয়। তারা যখন ক্ষমতায় থাকে তখন ভারতকে প্রভু মনে করে আর ক্ষমতায় না থাকলে ভারতের বিরোধিতা করে।

তারা বলছেন, দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি। আওয়ামী লীগ সরকারকে চাপে রাখতে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করেও ব্যর্থ হয়েছে। তাই দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করতে নতুন কৌশল গ্রহণ করে ভারতকে বয়কট করার পাঁয়তারা করছে দলটি। তাদের উদ্দেশ্য দেশের মানুষকে কষ্ট দিয়ে সরকারকে চাপে রাখা। কিন্তু দেশের মানুষ তা অনুধাবন করে ভারতকে নয়, বিএনপিকে বয়কট করছে।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী বলেন, “ভারত আমাদের অকৃত্রিম বন্ধু, মহান মুক্তিযুদ্ধে তারা আমাদের পাশে ছিল। এমন একটা দেশের বিরোধিতা করা দুঃখজনক। বিএনপি প্রতিহিংসা থেকে এবং চরম অকৃতজ্ঞভাবে ভারতের বিরোধিতা করছে। ভারতবিরোধিতা করা বিএনপির চিরাচরিত অভ্যাস। বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে ভারতকে প্রভু মনে করে আর ক্ষমতায় না থাকলে ভারতের বিরোধিতা করে।”

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন, “বিএনপির সাম্প্রতিক ভারতবিরোধী অবস্থান নতুন কিছু নয়। যেহেতু বিএনপির হাতে নতুন কোনো ইস্যু নেই এবং তারা জনগণের রাজনীতি করেন না, কেবল ক্ষমতার মোহে অন্ধ, সেহেতু তারা প্রকাশ্যে ভারতবিরোধিতা, গোপনে পদলেহনের নীতিতে ফিরে এসেছেন। তাদের এই কর্মসূচি সফল হবে না। বর্তমানে মানুষের কাছে বিএনপির আন্দোলন অপ্রয়োজনীয়। তারা কিছুটা উসকানিমূলক পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে সচেষ্ট থাকবেন কিন্তু তা জনগণকে সঙ্গে নিয়ে শক্তভাবে প্রতিহত করা হবে। সবার ওপরে দেশ, দেশ ও জনগণের বৃহত্তর স্বার্থে জননিরাপত্তা সমুন্নত রাখা হবে।”

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, “বিএনপি-জামায়াত সবসময় সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাস করতে চায়, সংঘাত করতে চায়। বিএনপি জন্ম থেকে সাম্প্রদায়িক বিভেদ, বিভক্তি, সন্ত্রাস, সাম্প্রদায়িক বিষবাষ্প ছড়িয়ে এসবের মধ্য দিয়েই নিজেদের বিকাশ ঘটাতে চায়। তারা মনে করে দেশপ্রেমিক মানুষকে কষ্ট দিয়ে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করে এগিয়ে যাবে। এটা এক ধরনের বিভ্রান্তিমূলক রাজনীতি। ভারতবিরোধিতার নামে বাংলাদেশের সঙ্গে যে সম্প্রীতি আছে, সেই সম্পর্ক নষ্ট করতে তারা পিছপা হয়নি। বিএনপি সবসময় ভারতবিরোধী উসকানি দিয়ে থাকে। ভারতবিরোধী যে নাটক বিএনপির, এটা হলো হঠকারী রাজনীতি। বিএনপির ভারতবিরোধিতা বিষয়টি প্রকাশ্যে।”

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, “মুক্তিযুদ্ধে আমাদের সঙ্গী ভারতের বিরোধিতা করার মাধ্যমে বিএনপি তার দেউলিয়াত্ব প্রকাশ করেছে। বিএনপি জনবিচ্ছিন্ন হয়ে এখন নতুন ইস্যু তৈরি করতে ভারতীয় পণ্য এবং ভারতের বিরোধিতা করছে। কিন্তু দেশের মানুষ ভারতকে নয় বিএনপিকে বয়কট করবে।”

আজকের সিলেট/ডিটি/ডি/এসটি

সিলেটজুড়ে


মহানগর