সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত সাবেক ফুটবলার ফয়সাল জসি
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:১৬

সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত সাবেক ফুটবলার ফয়সাল জসি

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০৪/০২/২০২৪ ০৪:২৯:২৮

সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত সাবেক ফুটবলার ফয়সাল জসি


চলন্তিকা ক্রীড়া চক্রের প্রবাসী শাখার সভাপতি, জৈনপুর কেন্দ্রীয় আহলে সুন্নত জামে মসজিদের মুতাওয়াল্লী ও সাবেক ফুটবলার ফয়সল আহমেদ জসি'র স্বদেশ আগমন উপলক্ষে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।  শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারী) সিলেট মহানগরীর দক্ষিণ সুরমার শিব বাড়ী এলাকায় জৈনপুর দেব মার্কেটস্থ চলন্তিকা কার্যালয়ে এ সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়।

সংগঠনের সভাপতি মানিক মিয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জনার্দন চক্রবর্তী মিন্টুর সঞ্চালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক মো: শাহীন রানা।

স্বাগত বক্তব্যে তিনি বলেন, সংগঠন এবং সংগঠিত হয়ে আমারা এখানে অনুষ্ঠান করতে পারছি, তিনি আমার ভাই হিসাবে নয় একজন সংগঠক হিসাবে বলছি। তিনি পুরস্কার পাওয়ার যোগ্য। তিনি প্রভাবাশে থেকেও সংগঠনের জন্য সময় ও শ্রম দিয়ে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। আমি মহান আল্লাহতালার কাছে ফয়সল আহমেদ জসির সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনি করি। যাতে তিনি তার নির্দেশনায় সংগঠন কে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক) ৩০ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রকিব খান, মাউশি'র সহকারী পরিচালক অধ্যাপক প্রতাপ চৌধুরী। 

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, চলন্তিকা ক্রীড়া চক্রের সহ-সভাপতি প্রমথ দাস, সহ সম্পাদক মো: মইন উদ্দীন, প্রচার- সম্পাদক আফতাবুল কামাল রেকি, সংগঠনের কোষাধ্যক্ষ জুনেদ আহমেদ জুনু, সিনিয়র সদস্য জুবের আহমেদ, সিনিয়র সদস্য আনা মিয়া, ক্রীড়া সম্পাদক আবু সালাম, সিনিয়র সদস্য সুহেল রানা, সিনিয়র সদস্য মো: হাসান শহীদ হাছনু, আব্দুস সালাম, মজিবুর রহমান সহ সংগঠনের সিনিয়র ও নবিন সদস্য বৃন্দ। 

এ সময় বক্তারা বলেন, ফয়সল আহমেদের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামিনাকরে বলেন, ফয়ল আহমেদ আমাদের এলাকা সহ সিলেটের গর্ব। ১৯৮৬ সালে এই চলন্তিকা ক্রীড়া চক্রের জন্ম হয়। আর এই সংগঠনের প্রাণবুমরা ছিলেন ফয়সল আহমেদ। প্রথমে এটি একটি ক্রীড়া সংগঠন হলেও সামাজিক কাজে নেই পিছিয়ে। ১৯৮৮ সালের বন্যা থেকে শুরু করে করোনা মহামারী ও ২০২২ সালের বন্যায় মানবিক কাজ করে আসছে এই সংগঠনটি। দেশ ও বিদেশের মাঠিতে মানবিক কাজে পিছিয়ে নেই চলন্তিকা ক্রীড়া চক্র।

এসময় বক্তারা একটি স্থায়ী কার্যালয় করার কথা তুলে বলেন, আমাদের একটি কার্যালয়ের প্রয়োজন। আমরা ফয়সল আহমেদ সহ প্রবাসী শাখার সবার দৃষ্টি আকর্ষন করছি আমাদের একটি স্থায়ী কার্যালয় হলে ভালো হতো। 

এমন প্রশ্নের জবাবে ও সংবর্ধীত অতিথির বক্তব্যে ক্ননাজরিত কন্ঠে ফয়সল বলেন, আমার শপ্ন ছিলো চলন্তিকা এগিয়ে যাবে ও একটি কার্যালয় হবে। আমরা এই আশা পূরন করতে পারি নি। আপনারা পেরেছেন। আমার জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত চলন্তিকা ক্রীড়া চক্রের জন্য কাজ করে যাবো। এ সময় সংগঠনের স্থায়ী কার্যালয় করার করার আশ্বাসও দেন তিনি।

অনুষ্ঠানের প্রথমে ফয়সল কে ফুল দিয়ে শুভেচছা জানো হয়। এর পর পবিত্র কোরআন পাঠ করেন সংগঠনের শফিক আহমেদ।

সর্বশেষ ফয়সল আহমেদ জসির হাতে সম্মাননা কেস্ট তুলে দেন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, চলন্তিকা ক্রীড়া চক্র ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। এ সংঘটনটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিভিন্ন সামাজিক কাজ করে আসছে।

আজকের সিলেট/৪ ফেব্রুয়ারী/জেকেএস

সিলেটজুড়ে


মহানগর