গোলাপগঞ্জে ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশন’র ফ্রি চক্ষু শিবির
মঙ্গলবার, ০৫ মার্চ ২০২৪, ০৫:৫৯

গোলাপগঞ্জে ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশন’র ফ্রি চক্ষু শিবির

আজকের সিলেট ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩১/০১/২০২৪ ০৯:২১:৫৮

গোলাপগঞ্জে ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশন’র ফ্রি চক্ষু শিবির


 মানুষ মানুষের জন্য এ কথা যুগ যুগ ধরে সমাদৃত। অসহায় দুস্থদের পাশে দাঁড়ানো মানুষগুলোই এই প্রবচণটির যথার্থতা রক্ষা করে চলেছেন। সমাজের অবহেলিত মানুষদের পাশে দাঁড়ানোটা সবার পক্ষে সম্ভব হয় না। কারো সাধ আছে তো সাধ্য নাই। আবার কারো সাধ্য আছে তো সাধ নেই। তবুও এত সবের মাঝে কোনো না কোনো এক বা একাধিক মানুষ সমাজের ধ্রুবতারা হয়ে আবির্ভূত হন এই অসহায়দের জন্য। তেমনি কিছু মানুষদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় গত কয়েক দিনে দৃষ্টিশক্তি ফিরে পেয়েছেন গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজারের প্রায় ২ হাজার মানুষ।

সমাজ সেবার ব্রত নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে মাঠে কাজ করছেন আব্দুর নুর, আবু তাহের, মো. দিলওয়ার হোসেন, তালাত সিদ্দিকী, সেলিম উদ্দীন আহমদ, ফারুক মিয়া, খলিলুর রহমান, সুলতান হায়দার জসিম, সুহেল উদ্দিন ও মোহাম্মদ আব্দুল মুনিম জাহেদী ক্যারল। যুক্তরাজ্য প্রবাসী এই মানুষগুলোর একাত্মতায় গড়ে উঠে ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশন ইউকে। এই ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজারের তিনটি স্পটে বসানো হয় ফ্রি চক্ষু ক্যাম্প। আল-মোস্তফা ট্রাস্ট ফ্রি আই ক্যাম্প-এর ব্যানারে প্রায় ২ হাজার মানুষের দৃষ্টিশক্তি ফেরানোর যাবতীয় অর্থ ব্যয় করে ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশন ইউকে।

গত ২৭ জানুয়ারি গোলাপগঞ্জের চন্দরপুর ও আজ (৩১ জানুয়ারি) গোলাপগঞ্জের নিমাদল মোকামবাজার এলাকায় পৃথক পৃথক ক্যাম্প বসিয়ে এলাকার দৃষ্টিহীন মানুষদের চিকিৎসা, ওষুধ ও চশমা প্রদান করা হয়। সেই সাথে প্রতি ক্যাম্পে ৩০ জন করে রোগীদের ফ্রি চক্ষু অপারেশনের ব্যবস্থা করা হয়। আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি বিয়ানীবাজার উপজেলার তিলপাড়া গ্রামে আরো একটি ফ্রি চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত হবে। তিন ক্যাম্প মিলিয়ে প্রায় ২ হাজার রোগী পাচ্ছেন সম্পূর্ণ ফ্রি চক্ষু চিকিৎসা সেবা, ওষুধ ও অপারেশনের সুবিধা।

বুধবার (৩১ জানুয়ারি) দুপুরে নিমাদল মোকাম বাজার ফ্রি চক্ষু শিবিরে দেখা হয় যুক্তরাজ্য প্রবাসী, ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশন ইউকে’র অন্যতম সদস্য মোহাম্মদ আব্দুল মুনিম জাহেদী ক্যারল-এর সঙ্গে। এসময় তার সাথে ছিলেন আরেক যুক্তরাজ্য প্রবাসী মো. ফরহাদ আহমেদ। তারা ক্যাম্পটি উদ্বোধন করেন ও রোগীদের সাথে কথা বলে তাদের সার্বিক খোঁজ-খবর নেন এবং সহযোগিতার ব্যবস্থা করেন।

মোহাম্মদ আব্দুল মুনিম জাহেদী ক্যারল বলেন, ‘ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশন ইউকে’র উদ্যোগে ফ্রি চক্ষু শিবির ছাড়াও বিভিন্ন রকম উদ্যোগ গ্রহণ ও তা বাস্তবায়ন করা হয়। এ পর্যায়ে আমরা ফ্রি চক্ষু শিবিরের উদ্যোগ নিয়েছি। ইতোপূর্বে তিনটি স্পটের দুইটিতে ক্যাম্পের কার্যক্রম শেষ হয়েছে। আগামী ০৩ ফেব্রুয়ারি বিয়ানীবাজারের বিয়ানীবাজার উপজেলার তিলপাড়া গ্রামে আরো একটি ফ্রি চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত হবে। সময় স্বল্পতার কারণে আমি সেখানে উপস্থিত থাকতে পারছি না। আমাকে যুক্তরাজ্য ফিরতে হচ্ছে। আমাদের এসব মানবিক উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে। আমরা সমাজ সেবার উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করছি। আমাদের দ্বারা যদি অসহায় মানুষের সামান্যতমও উপকার হয়, তাতেই আমরা খুশি।’

তিনি বলেন, ‘ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশন ইউকে’র সকলেই মানবসেবায় খুবই আন্তরিক। আমরা সব সময় দেশের অসহায় পরিবারের খোঁজ খবর রাখছি এবং সাধ্যমতো তাদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি।’

এসময় ফ্রি চক্ষু শিবিরে সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান, চিকিৎসক ও ক্যাম্পের সাথে সংশ্লিষ্ট স্থানীয় জনসাধারণকে ধন্যবাদ জানান।

আজকের সিলেট/ডেস্ক/কে.আর

সিলেটজুড়ে


মহানগর