আজ শনিবার, ৭ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

মোহাম্মদ চৌধুরী তুমি কার?

  • আপডেট টাইম : January 22, 2018 6:33 PM

বিশেষ প্রতিবেদক : শায়েখে ড. মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরী। তবে তাকে মোহাম্মদ চৌধুরী নামেই সবাই চিনেন। বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও মাদানী স্কলার। সৌদিআরবের মদিনা ইউনিভার্সিটি থেকে উচ্চতর ডিগ্রী নিয়ে দেশে ফিরেই যোগদেন জামায়াতের রাজনীতিতে। জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও সাবেক এমপি ফরিদ উদ্দিন চৌধুরীর জামাতা হওয়ার সুবাদে দলটির রাজনীতিতে ধীরে ধীরে বেশ প্রভাবশালী হয়ে উঠেন। সর্বশেষ তথ্যমতে, তিনি জামায়াতে ইসলামীর রুকন (সদস্য) হিসেবে দ্বায়িত্বপালন করছেন।

জামায়াতের রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়ার সুবাদে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার দো’ভাষি হিসেবে ছিলেন বেতনভূক্ত কর্মকর্তা। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে চেয়ারপার্সনের রাজনৈতিক উপদেষ্ঠার পদ গ্রহণ করায় তাকে নিয়ে বিভ্রান্তি দেখা দিয়েছে।

জামায়াতের অনেকেই মনে করছেন দলের রুকন (সদস্য) হয়ে অন্যদলের পদপদবী কোন স্বার্থে গ্রহণ করেছেন? আর এটিই বা দলের গঠনতন্ত্র কতটুকু সমর্থন করে?

অন্যদিকে বিএনপির নেতাকর্মীরা মনে করছেন, বিএনপি ধীরে ধীরে জামায়াত নির্ভর হয়ে পড়ছে। না হলে জামায়াতের একজন কেন্দ্রীয় নেতা কিভাবে দলের চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হিসেবে মনোনীত হন?

এনিয়ে দুই দলে চলছে নানান আলোচনা ও সমালোচনা। তবে কি স্বার্থে তিনি দুই তরীতে উঠেছেন? এমন বিষয় অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। যা থাকছে নিউজটির আগামী পর্বে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জামায়াতে ইসলামীর একাধিক সক্রিয় কর্মী আজকের সিলেট ডটকমকে জানান, মোহাম্মদ চৌধুরী দলের রুকন। আর রুকন হয়ে অন্যদলের পদপদবী গ্রহন করা দলের গঠনতন্ত্র বিরুধী। যা দলের জন্য মোটেও সুখকর নয়।

বিএনপির একাধিক মধ্যসারির নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে আজকের সিলেট ডটকমকে বলেন, বিএনপির মধ্যে এখন আর নিজস্ব কোন চিন্তাধারা থাকছেনা। দলের ত্যাগী নেতারা যেখানে পদ বঞ্চিত হচ্ছেন সেখানে জামায়াতের নেতাকে এতবড় পদ দেয়া হয়েছে যা মোটেই কাম্য নয়। জামায়াত তাদের উদ্দেশ্য হাসিল করে ঠিকই চলে যাবে।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে সিলেট মহানগর জামায়াতের নায়েবে আমীর ও ২০দলীয় জোট সিলেট মহানগরীর সদস্য সচিব হাফিজ আব্দুল হাই হারুন আজকের সিলেট ডটকমকে বলেন, তিনি আমাদের রুকন। কিন্তু এখন রুকনিয়াত সম্ভবত নাই।

বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত জানতে সিলেট মহানগর জামায়াতের আমীর এ্যডভোকেট এহছানুল মাহবুব জুবায়েরর সাথে যোগাযোগ করা হলেও ফোন রিসিভ করেন নি।

তবে সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম আজকের সিলেট ডটকমকে বলেন, তিনি জামায়াতের রুকন বলে আমার কাছে কোন তথ্য নেই। জামায়ত অনেককেই তাদের রুকন বলে প্রচার করে। এরকম কিছু আমার জানা নেই।

বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা শায়েখে মোহাম্মদ এনামুল হক চৌধুরীর ফোনে একাধিকবার কল দিলেও রিসিভ করেন নি। এমনকি এসএমএস করেও সাড়া পাওয়া যায়নি।

(আজকের সিলেট/২২ জানুয়ারি/ডি/এমকে/ঘ.)

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ