আজ বুধবার, ২৬শে মে, ২০২০ ইং

‘সিলেটকে বাঁচাতে হলে হাওরকে বাঁচাতে হবে’

  • আপডেট টাইম : March 3, 2019 10:27 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : সিলেটকে বাঁচাতে হলে হাওরকে বাঁচাতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন সিলেটের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আরএসএম মনিরুল ইসলাম। এজন্য সরকারের পাশাপাশি পরিবেশ সংগঠনগুলোকে এ বিষয়ে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে বলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

রোববার বিকেলে বিশ্ব বন্যপ্রাণী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ‘সিলেটে বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা : ভবিষ্যৎ ও করণীয়’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। সিলেটের চারটি পরিবেশবাদী সংগঠন সিকৃবি’র ‘প্রাধিকার, শাবিপ্রবি’র গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটি, ভূমিসন্তান বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেট শাখার যৌথ উদ্যোগে এই গোলটেবিলের আয়োজন করা হয়।

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ আলোচনায় তিনি আরও বলেন, সিলেট হাওর অধ্যুষিত অঞ্চল। অনেকগুলো নদীও আছে। হাওরের ইকোসিস্টেম ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। জলজ উদ্ভিদ ও অন্যান্য জীবজন্তুর আবাসস্থল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। বিষয়টি সরকারের নজরে এসেছে।

প্রাধিকার’র উপদেষ্ঠা ও সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি এন্ড এনিমেল সায়েন্স বিভাগের প্রধান প্রফেসর এটিএম মাহবুবু-ই-এলাহীর সভাপতিত্বে গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা সিলেট অঞ্চলে বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনায় যেসব সমস্যা বিদ্যমান তা তুলে ধরেন। বিশেষ করে রাতারগুল, সিলেট বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কেন্দ্র টিলাগড়, খাদিমনগর জাতীয় উদ্যান, আখালুকি, টাঙ্গুয়ার হাওরসহ বন্যপ্রাণীর আবাসস্থল রক্ষায় করণীয় নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়।

সভাপতির বক্তব্যে ড. একেএম মাহবুব-ই-এলাহী বলেন, প্রাণী বলতে কেবল মানুষকে বোঝায় না। আমরা নিজেদের প্রয়োজনে পরিবেশ ধ্বংস করছি, জীববৈচিত্র্য ও তাদের আবাসস্থল ধ্বংস করছি। এ বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে। জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে মানুষের আচরণ হতে হবে প্রাণীবান্ধব।

বৈঠকে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন প্রাধিকার’র উপদেষ্ঠা প্রফেসর ড. মোহন মিয়া, সহযোগি অধ্যাপক ড. মাহফুজুর রহমান। বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) সিলেটের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম কিম, ভূমিসন্তান বাংলাদেশ-এর প্রধান সমন্বয়ক আশরাফুল কবির, প্রাধিকার’র সাবেক সভাপতি ডা. মনজুর কাদের চৌধুরী, প্রাধিকার সভাপতি মো. আনিসুর রহমান, গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটি’র সাধারণ সম্পাদক তাসনীম মুকিত।

প্রাধিকার সেক্রেটারি মইনুদ্দিন হায়দার রিফাতের এর সঞ্চালনায় শুরুতে সিলেটে বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা, প্রেক্ষাপট এবং চার সংগঠনের কার্যক্রম নিয়ে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেনটেশন করেন কোষাধ্যক্ষ আহমেদ রাফী। মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটির প্রেসিডেন্ট হাসনাইন আহমদ, ভূমিসন্তান বাংলাদেশের সমন্বয়ক শুয়াইবুল ইসলাম (শুয়াইব হাসান), প্রাধিকার’র ভাইস প্রেসিডেন্ট নাজমুল ইসলাম মানিক।

আলোচনায় বক্তারা আরও বলেন, সিলেট অঞ্চলে দিন দিন ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে বন্যপ্রাণীর আবাস। এ অবস্থায় প্রায়শ লোকালয়ে ধরা পড়ছে বন্যপ্রাণী। মানুষের সচেতনতার অভাবে বন্যপ্রাণীকে পিটিয়ে মারার ঘটনা ঘটছে। তবে, সাম্প্রতিককালে পরিবেশবাদীদের ও সংবাদ মাধ্যমের কল্যাণে লোকালয়ে চলে আসা বন্যপ্রাণী উদ্ধারের ঘটনা ঘটছে এবং মানুষের মধ্যে সচেতনা তৈরি হয়েছে।

এ অবস্থায় দেশ ও দেশের প্রকৃতি রক্ষা করতে পরিবেশ ও প্রতিবেশ রক্ষা করতে হবে। এজন্য বন্যপ্রাণীকে বিলুপ্তির হাত থেকে বাঁচাতে হবে। সিলেট বিভাগের বনাঞ্চল রক্ষা ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে বন বিভাগের সহায়ক শক্তি হিসাবে কাজ করতে চায় পরিবেশবাদী সংগঠনগুলো।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ