আজ সোমবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

বাবরি মসজিদ জায়গায় হবে রাম মন্দির

  • আপডেট টাইম : নভেম্বর ৯, ২০১৯ ১:৫৮ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : দীর্ঘ জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বাবরি মসজিদ মামলার রায় ঘোষণা করল ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট।অযোধ্যার বিতর্কিত জমি পেল রামমন্দির। সুন্নীদের দাবি খারিজ করে দিয়ে বিকল্প জমিতে বাবরি মসজিদ নির্মাণের জন্য রাজ্য সরকারকে ৫ একর জমি বরাদ্দের নির্দেশ দিয়েছে ভারতের সুপ্রীমকোর্ট। পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ সর্বসম্মতভাবে এই রায় ঘোষণা করেছে৷

রায়ে সুন্নিদের দাবি অগ্রাহ্য করে বলা হয়, অযোধ্যাতেই সুন্নিদের বিকল্প পাঁচ একর জমি দেবে কেন্দ্র বা রাজ্য সরকার। ভিতর ও বাইরের চত্বরের মালিকানা থাকবে ট্রাস্টের হাতে। বিতর্কিত জমির মালিকানা থাকবে কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে। তিনমাসের মধ্যে কেন্দ্রকে একটি ট্রাস্ট বোর্ড গঠন করতে হবে। বিকল্প জমি দেওয়া হবে মুসলমানদের। মুসলিম সম্প্রদায় বিতর্কিত জমির উপর নিজেদের মালিকানার দাবি প্রমাণ করতে পারেনি। বিতর্কিত জমিকে সম্পূর্ণ একটি কাঠামো হিসেবে গণ্য করা হবে ৷ বাবরি মসজিদ ফাঁকা জমিতে তৈরি হয়নি ৷ বিশ্বাসের উপর নির্ভর করে আইন হয় না। বিতর্কিত এলাকায় প্রার্থনা করতেন মুসলিমরা । সেই অধিকার কেড়ে নিতে পারি না, বলল পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ । মসজিদের নিচের স্থাপত্য ইসালামিক নয় ৷ এইএসআই র রিপোর্টকে স্বীকৃতি । নির্মোহী আখড়া সেবায়েত নয় ৷ নির্মোহী সংগঠনের দাবি খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট ৷শিয়া সংগঠনের আবেদন খারিজ করল পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ ৷অযোধ্যার বহু বিতর্কিত জমি মামলার সর্বসম্মত রায় ঘোষণা করছে শীর্ষ আদালত৷

৫০০ বছরের বিতর্ক এবং ১৩৫ বছরের আইনি লড়াইয়ের পর ভারতের ইতিহাসে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অযোধ্যার ২ দশমিক ৭৭ একর জমির মামলার রায় দিল ৫ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ গঠন সুপ্রিম কোর্ট। এই রায়ের জন্য প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের সঙ্গে ছিলেন বিচারপতি অশোক ভূষণ, ডিওয়াই চন্দ্রচূড়, এসএ বোবদে এবং এস আবদুল নাজির।

২০১০ সালের সেপ্টেম্বরে অযোধ্যা মামলার রায় দিয়েছিল এলাহাবাদ হাইকোর্ট। অযোধ্যার জমি তিনটি পক্ষকে সমানভাবে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। তিনপক্ষ ছিল হিন্দু সংগঠন নির্মোহি আক্রা, রামলালা ও সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড। কিন্তু কোনো পক্ষই তা না মানায় সেই মমলা গড়ায় সুপ্রিম কোর্টে।

অযোদ্ধা মামলার রায়কে কেন্দ্র করে রাজ্যের উত্তরপ্রদেশের পাশাপাশি পার্শ্ববর্তী রাজ্যগুলোতেও অতিরিক্ত নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়। এছাড়া উত্তরপ্রদেশে ১৪৪ ধারা জারি করেছে রাজ্য সরকার। পাশাপাশি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ