আজ সোমবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং

ভাঙ্গন আর নাজুক সড়ক জকিগঞ্জের প্রধান সমস্যা

  • আপডেট টাইম : November 28, 2017 6:02 AM

জকিগঞ্জ প্রতিনিধি : জকিগঞ্জ উপজেলার লোকজন নদী ভাঙন, রাস্তাঘাট ভাঙ্গাচোরা, জকিগঞ্জ-সিলেট সড়কের নাজুক অবস্থার কারণে ক্ষুব্ধ। সাধারণ মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বর্তমান সরকারের প্রায় সাড়ে তিন বছরেও জকিগঞ্জের নদী ভাঙন রোধে কার্যকরী কোন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছেনা। সুরমা-কুশিয়ারা নদী ভাঙনের কবলে পড়ে ভূমিহীন হয়েছেন এ উপজেলার হাজার হাজার মানুষ। এখনো নদী ভাঙনের কবলে রয়েছে উপজেলার একাধিক ইউনিয়নের জনগন। গ্রামগঞ্জের রাস্তাঘাটের অবস্থা খুবই খারাপ।

উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে এলজিইডির বাস্তবায়িত পাকা রাস্তা ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে মানুষ কষ্টের শিকার হচ্ছে। বিভিন্ন গ্রামে কাঁচা রাস্তার কারণে এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীরা দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণে অতিষ্ট উপজেলাবাসী। হালাকা বৃষ্টির দেখা পেলেই বিদ্যুৎ লাপাত্তা। জকিগঞ্জ-সিলেট সড়ক লাইফসাপোর্টে বেঁচে আছে। জোড়াতালির সড়কে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ মানুষ দূর্ভোগ পোহাচ্ছেন। অনেক সময় ভাঙা সড়কের কারণে সড়ক র্দূঘটনায় প্রাণ হারাচ্ছেন শিশু, কিশোর, যুবক, বৃদ্ধ।

এ সড়ক দিয়ে প্রসূতি মা নিয়ে সিলেট যাবার পথে সড়কে ডেলিভারী হওয়ার মতও ঘটনা ঘটেছে। তবু সড়ক সংস্কারের কোন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছেনা বলে উপজেলার সাধারণ মানুষের ধারণা। এ উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের দাবী জকিগঞ্জের বিরাজমান সমস্যাগুলো দ্রুত সমাধানের।

এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্য বিরোধীদলীয় হুইপ সেলিম উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, শিক্ষা, নদী ভাঙন, বিদ্যুৎ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, গ্রামঞ্চলের উন্নয়ন করেই কেটে গেছে তাঁর প্রায় সাড়ে ৩ বছর। এরমধ্যে বিদ্যুৎখাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। ২০১৪ সালে তিনি এমপি হওয়ার পরে এখন পর্যন্ত জকিগঞ্জে ৩৫ হাজার ৬৯৭ ও কানাইঘাটের ৩৯ হাজার ৮৩টি পরিবার নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ পেয়েছে। জকিগঞ্জ-কানাইঘাটের ২৫ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ১৯ কোটি ৬২ হাজার টাকা ব্যয়ে নির্মিত হচ্ছে ভবন। ২০১৫-১৬ অর্থ বছরে নির্মিত হয়েছে ৩ কোটি ৫০ লক্ষ ৮ হাজার ২৬৯ টাকা ব্যয়ে ব্রীজ কালভার্ট।

ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাস্তবায়িত ২০১৪-২০১৫ অর্থ বছর ৫৯ লক্ষ ২৮ হাজার ৬৮৮ টাকা ব্যয়ে কানাইঘাটের বুরহান উদ্দিন রাস্তা হইতে ফাগু বাশবাড়ীগামী রাস্তায় চলিতাবাড়ী খালের উপর ব্রীজ নির্মাণ, বাগান বাজার হইতে কালিজুড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গামী রাস্তায় আব্দুল মান্নানের বাড়ীর উত্তর পার্শ্বে কালিজুড়ি খালের উপর ব্রীজ নির্মাণ, বড়দেশ বাজার হইতে সুরমা ডাইক গামী রাস্তায় বাউরবাগ পূর্ব গ্রামের ইরফান আলীর বাড়ীর পূর্ব পার্শ্বে লামাপাড়া খালের উপর কালভার্ট নির্মাণ।

২০১৫-২০১৬ অর্থ বছর জকিগঞ্জ-কানাইঘাটের ১৪টি খালের উপর ৩ কোটি ৫০ লক্ষ ৮হাজার টাকা ব্যয়ে ব্রীজ নির্মাণ। ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে জকিগঞ্জ-কানাইঘাট উপজেলার ২৩টি খালের উপ ৫ কোটি ৮২ লক্ষ ৬৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ব্রীজ নির্মাণ। সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের অধীণে সিলেট-গোলাপগঞ্জ-চারখাই-জকিগঞ্জ রাস্তার উন্নয়নে ১৭৮ কোটি টাকা একনেকে অনুমোদিত হয়েছে। বর্তমানে ৯ কোটি ১০লক্ষ টাকা ব্যয়ে সিলেট-গোলাপগঞ্জ-চারখাই-জকিগঞ্জ রাস্তার মেরামত ও ১৮কোটি টাকা ব্যয়ে দরবস্ত-কানাইঘাট-শাহবাগহ রাস্তা পাকা করন কাজ চলছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীণে ৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে উন্নয়ন কাজ চলছে।

নদী ভাঙন রোধে জকিগঞ্জের মানিকপুর ইউনিয়নের বাল্লাহ পয়েন্টে ৫ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা, কসকনকপুর ইউনিয়নের মুন্সিবাজার পয়েন্টে ৪ কোটি ১০ লক্ষ টাকা, বিরশ্রী ইউনিয়নের উজিরপুর পয়েন্টে ২ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ব্লকের কাজসহ জকিগঞ্জ-কানাইঘাট উপজেলায় ৫০কোটি টাকার কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। আইআরআইডিপি-২ প্রকল্পের আওতায় ২০ কোটি টাকার মধ্যে জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলায় ইতিমধ্যে ৫ কোটি টাকার রাস্তার কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং ১৩ কোটি টাকার রাস্তার কাজের টেন্ডার হয়েছে। ২কোটি টাকার রাস্তার কাজের টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও তিনি জানান।

(আজকের সিলেট/২৮ নভেম্বর/ডি/এসসি/ঘ.)

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ