আজ সোমবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

১৪ বছরেও শেষ হয়নি গুলশান সেন্টারে গ্রেনেড হামলার বিচার

  • আপডেট টাইম : আগস্ট ৭, ২০১৮ ৯:২৮ পূর্বাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট : নগরের গুলশান সেন্টারে গ্রেনেড হামলার ঘটনায় আহতরা আজো যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। ঘটনার ১৪ বছর পরও মামলার বিচার কার্যক্রম এখনো শেষ হয়নি। অবশ্য অন্য মামলায় এ ঘটনার আসামী মুফতি আব্দুল হান্নান ও শরীফ সাহেদুল আলম বিপুলের ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় আহতদের যন্ত্রণা কিছুটা হলেও লাঘব হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেটের পিপি এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০০৪ সালের ৭ আগস্ট সন্ধ্যায় নগরের গুলশান সেন্টারে মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যকরী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে নগর আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ সেন্টারের সামনে বের হওয়ার সাথে সাথেই শক্তিশালী গ্রেনেড হামলা করে জঙ্গীরা। এতে দলের বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক ও তৎকালীন মহানগর সাধারণ সম্পাদক মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, দলের নেতা ইব্রাহিম আলীসহ ২০ নেতাকর্মী আহত হন।

পরে আহত ইব্রাহিম আলী মারা যান। মিসবাহ উদ্দিন সিরাজসহ আহতরা গ্রেনেডের স্প্রিন্টারে ক্ষতবিক্ষত হয়ে হাসপাতালের বেডে চিকিৎসা নেন। এ ঘটনায় কোতোয়ালী থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ। প্রথমে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের এ মামলায় গ্রেফতার করা হলেও পরবর্তীতে দৃশ্যপট পাল্টে যায়। পরে মামলার অধিকতর তদন্ত শেষে আদালতে সম্পূরক অভিযোগপত্র দেয় সিআইডি।

বর্তমানে আলোচিত এই মামলাটি বিচারাধীন। মামলার প্রধান আসামী জঙ্গী নেতা মুফতি হান্নান ও বিপুলের মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা হয়েছে। ব্রিটিশ হাই কমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর উপর গ্রেনেড হামলা মামলায় ফাঁসি কার্যকর হয় দু’জনের।

সিলেটের পিপি ও গ্রেনেড হামলায় আহতদের অন্যতম এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেন, ১৪ বছর পরও আজো আমরা যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছি। ঘটনাটি ভিন্নখাতে নিতে সেদিন বিএনপি জামায়াত অনেক চেষ্টা করেছিল। কিন্তু ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠিত হওয়ায় অন্য মামলায় ইতোমধ্যে দু’জঙ্গীর ফাঁসি কার্যকর হয়েছে।

(আজকের সিলেট/৭ আগষ্ট/ডি/এমকে/ঘ.)

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ