আজ বুধবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

কোম্পানীগঞ্জে অনলাইন ক্লাস থেকে বঞ্চিত কয়েক হাজার শিক্ষার্থী

  • আপডেট টাইম : September 16, 2020 10:36 AM

কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি : মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম সচল রাখতে সরকার নির্দেশিত অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে সারাদেশে চলছে পাঠদান কার্যক্রম। সারাদেশের মতো কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় ও চলছে অনলাইন ক্লাস। কিন্তু, নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণে অনলাইন পাঠদান থেকে বঞ্চিত রয়েছে কোম্পানীগঞ্জের কয়েক হাজারো শিক্ষার্থী।

কোম্পানীগঞ্জ অনলাইন স্কুল ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা অনলাইন স্কুল নামের দুটো ফেসবুক পেজ থেকে কোম্পানীগঞ্জের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকার মাধ্যমে সরকারি ছুটির দিন ব্যতীত নিয়মিত ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু, এ ক্লাস কতটা করতে পারতেছে শিক্ষার্থীরা?

প্রথমত সমস্যা- স্মার্টফোনের। সকল শিক্ষার্থীর বা পরিবারের স্মার্টফোন না থাকায় অংশগ্রহণ করতে পারছে না শিক্ষার্থী অনলাইন ক্লাসে। দ্বিতীয়ত, ডাটা খরচের অভাবেও অনেকে পারছে না ক্লাস করতে৷ আর উপরোক্ত সমস্যাগুলোর সমাধান করতে পারলেও পারা যাচ্ছে না নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান করতে।

দেশ যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ডিজিটাল হচ্ছে। কিন্তু, দেশের অগ্রগতির সাথে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা। শিক্ষাক্ষেত্রে সিলেটের অন্যান্য উপজেলার চেয়েও অনেকটা পিছিয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা। আর নেটওয়ার্কের সমস্যার কথা তো বলে শেষ করা যাবে না। ফোর জি (৪জি) তো দূরের কথা থ্রি জি (৩জি) ও পাওয়া যায় না কোম্পানীগঞ্জলর অধিকাংশ জায়গায়। ঘরের ভেতরে ঢুকলে ফোর জি, টু জি তো দূরের কথা, ফোন করার মতো ও নেটওয়ার্ক পাওয়া যায় না।

শুধুমাত্র নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণে বর্তমানে অনেকটাই অনলাইন পাঠদান থেকে বঞ্চিত কোম্পানীগঞ্জের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী। অনেকদিন ধরে নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধানের জন্য আন্দোলন করে আসলেও মিলছে না কোনো সমাধান। উপজেলা প্রশাসন থেকে শুরু করে মন্ত্রী বরাবর আবেদন করেও পাচ্ছেন না সমাধান কোম্পানীগঞ্জের শিক্ষার্থীসহ জনসাধারণ।

শুধু স্কুল নয়, কোম্পানীগঞ্জের ৫টি কলেজের শিক্ষার্থীরাও একই সমস্যার কারণে বঞ্চিত অনলাইন পাঠদান থেকে। শিক্ষার্থীদের দাবী- ‘আমরা অনলাইন ক্লাস থেকে তেমন কিছুই শিখতে পারতেছি না। ভিডিওতে ঢুকলেই লোডিং দেখায় বারবার। নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান না হলে, অনলাইন ক্লাস আমাদের জন্য বৃথাই’।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ অনলাইন স্কুলের অন্যতম উদ্দোক্তা ও জালিয়ারপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সাজ্জাদুর রহমান বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যাতে এই বন্ধের সময়েও পড়ালেখায় পিছিয়ে না পড়ে, সেজন্য আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি আর নিয়মিত অনলাইন ক্লাস ও নিচ্ছি। কিন্তু, এতে নেটওয়ার্ক সমস্যা প্রধান বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর কারণে শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে ক্লাসে যোগ দিতে পারতেছে না। এমনকি এই নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণে মাঝে মধ্যে আমাদের নিয়মিত ক্লাস ও বাদ দিতে হয়’।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা অনলাইন স্কুলের অন্যতম উদ্দোক্তা ও তেলিখাল উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমরা সরকার নির্দেশিত অনলাইন ক্লাস করে শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার ঘাটতি পূরণে কাজ করতেছি। কিন্তু, নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণে শিক্ষার্থীরা তো ক্লাস করতে পারতেছে না সাথে আমাদেরকেও অনেকসময় সকালের ক্লাস বিকেলে করতে হয়। আবার বিকেলের ক্লাস বাদ দিতে হয়। প্রত্যন্ত অঞ্চলে ভিডিও ক্লাস দেখার নেটওয়ার্ক তো দূরের কথা ফোন করার নেটওয়ার্ক ও পাওয়া যায় না। যার কারণে আমাদের কষ্ট বৃথা যাচ্ছে আর শিক্ষার্থীরাও পিছিয়ে রয়েছে’।

ইমরান আহমদ কারিগরি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) রুহুল আমিন বলেন, সরকার নির্দেশিত অনলাইন ক্লাস করতে আমরা বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছি। প্রধানত প্রত্যেকটা স্টুডেন্টের স্মার্টফোন নেই। এমনকি অনেকের পরিবারেও নেই ফোন। আর আরেকটি প্রধান সমস্যা হচ্ছে- নেটওয়ার্ক সমস্যা। যার কারণে আমরা নিয়মিত ক্লাস করাতে পারছি না আর শিক্ষার্থীরাও আমাদের ক্লাস দেখতে পারতেছে না। এবিষয়ে আমরা বোর্ডে আবেদন করেছি’।

এছাড়াও অনেক সময় দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা অনলাইন ক্লাস করার জন্য কারো মোবাইল সংগ্রহ করলেও নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণে ৩০ মিনিটের ক্লাস দেখতে হয় ২-৩ ঘণ্টা সময় নিয়ে। এমনকি অনেকসময় তা ও সম্ভব হয় না। এতে করে অনলাইন ক্লাস কোনো কাজেই আসছে না শিক্ষার্থীদের।

বিশেষজ্ঞদের দাবী- কোম্পানীগঞ্জ উপজেলাকে শিক্ষা ও যোগাযোগ ক্ষেত্রে এগিয়ে নিতে প্রথমত এখানের প্রত্যেকটা জায়গার নেটওয়ার্ক সমস্যার সমাধান করতে হবে। কোম্পানীগঞ্জ বালু, পাথরের জন্য সারাদেশে বিখ্যাত হলেও শিক্ষা-যোগাযোগ ক্ষেত্রে তার কোনো ছিটেফোঁটা ও নেই। কোম্পানীগঞ্জ থেকে প্রতি বছর সরকার কোটি টাকা রাজস্ব খাতে পেলেও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সর্বসাধারণ পাচ্ছে না একটুও সুযোগ সুবিধা। তাই, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সর্বস্তরের জনগণ আশাবাদী যে, নেটওয়ার্ক সহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে ডিজিটাল দেশের সাথে তাল মিলিয়ে শিক্ষা সহ সর্বক্ষেত্রে কোম্পানীগঞ্জ এগিয়ে যাবে। এজন্য তারা সরকারি প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন।

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি শেয়ার করুন..

এই সম্পর্কিত আরও নিউজ